ঢাকা,রবিবার,২৮ শ্রাবণ ১৪২৭,১১,এপ্রিল,২০২১
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : * বাংলাদেশ ১৬-২০ গ্রেড সরকারি কর্মচারী সমিতির কেন্দ্রীয় কমিটি গঠন   * বিএনপির অপরাজনীতিতে বিভ্রান্তির কারণে করোনা বাড়ছে : কাদের   * ক্যান্সার আক্রান্ত আম্পায়ার নাদির শাহর পাশে পিচ ফাউন্ডেশন   * পেঁয়াজের দাম কমেছে   * আবারও বাড়ল আমদানির চাল বাজারে আনার সময়   * ‘শিশুবক্তা’ রফিকুলের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা   * ঢাকা আসছেন ভারতের সেনাপ্রধান   * ঝড়-বৃষ্টি বাড়ছে, তাপমাত্রা আরও কমবে   * ভারতে করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ, সোয়া লাখ শনাক্তে ফের রেকর্ড   * ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমণের মধ্যেই শুরু হলো টিকার দ্বিতীয় ডোজ  

   বাংলাদেশ -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
দেশে করোনা শনাক্তের রেকর্ড, আরও ৪৫ জনের মৃত্যু

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও ৪৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। গত ৭ মাসের মধ্যে এটাই সর্বোচ্চ মৃত্যু। এ নিয়ে দেশে পর্যন্ত ৮ হাজার ৯৪৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। নতুন করে ৫ হাজার ১৮১ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে, যা দেশে সর্বোচ্চ শনাক্তের রেকর্ড। এ নিয়ে দেশে এ পর্যন্ত শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬ লাখ ৮৯৫ জন। দেশে ২৪ ঘণ্টায় ২৮ হাজার ১৯৫ জনের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। সোমবার দুপুরে করোনা ভাইরাসের বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, দেশে মোট সুস্থ হয়েছেন ৫ লাখ ৩৮ হাজার ১৮ জন হয়েছে। বাংলাদেশে গত ৮ মার্চ প্রথম করোনা ভাইরাসের রোগী শনাক্ত হলেও প্রথম মৃত্যুর খবর আসে ১৮ মার্চ। দিন দিন করোনা রোগী শনাক্ত ও মৃতের সংখ্যা বাড়ায় নড়েচড়ে বসে সরকার। ভাইরাসটি যেন ছড়িয়ে পড়তে না পারে সেজন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ সব সরকারি-বেসরকারি অফিস বন্ধ ঘোষণা করা হয়। করোনার বর্তমান পরিস্থিতির মধ্যেই ৩১ মে থেকে দেশের সরকারি-বেসরকারি অফিস খুলে দেওয়া হয়েছে। তবে বেশ কয়েক ধাপ বাড়ানোর পর আগামী ২২ মে স্কুল-কলেজ খুলে দেওয়ার কথা রয়েছে। 

দেশে করোনা শনাক্তের রেকর্ড, আরও ৪৫ জনের মৃত্যু
                                  

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও ৪৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। গত ৭ মাসের মধ্যে এটাই সর্বোচ্চ মৃত্যু। এ নিয়ে দেশে পর্যন্ত ৮ হাজার ৯৪৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। নতুন করে ৫ হাজার ১৮১ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে, যা দেশে সর্বোচ্চ শনাক্তের রেকর্ড। এ নিয়ে দেশে এ পর্যন্ত শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬ লাখ ৮৯৫ জন। দেশে ২৪ ঘণ্টায় ২৮ হাজার ১৯৫ জনের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। সোমবার দুপুরে করোনা ভাইরাসের বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, দেশে মোট সুস্থ হয়েছেন ৫ লাখ ৩৮ হাজার ১৮ জন হয়েছে। বাংলাদেশে গত ৮ মার্চ প্রথম করোনা ভাইরাসের রোগী শনাক্ত হলেও প্রথম মৃত্যুর খবর আসে ১৮ মার্চ। দিন দিন করোনা রোগী শনাক্ত ও মৃতের সংখ্যা বাড়ায় নড়েচড়ে বসে সরকার। ভাইরাসটি যেন ছড়িয়ে পড়তে না পারে সেজন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ সব সরকারি-বেসরকারি অফিস বন্ধ ঘোষণা করা হয়। করোনার বর্তমান পরিস্থিতির মধ্যেই ৩১ মে থেকে দেশের সরকারি-বেসরকারি অফিস খুলে দেওয়া হয়েছে। তবে বেশ কয়েক ধাপ বাড়ানোর পর আগামী ২২ মে স্কুল-কলেজ খুলে দেওয়ার কথা রয়েছে। 

একদিনে ৩৫ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৩৯০৮
                                  

দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৩৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। তাদের মধ্যে ২১ জন পুরুষ ও নারী ১৪ জন। এ নিয়ে দেশে এ মহামারিতে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮ হাজার ৯০৪ জনে। একই সময়ে করোনায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন আরও ৩ হাজার ৯০৮ জন। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৫ লাখ ৯৫ হাজার ৭১৪ জনে। রোববার (২৮ মার্চ) স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। সারাদেশের সরকারি ও বেসরকারি ল্যাবরেটরিতে গত ২৪ ঘণ্টায় ২২ হাজার ৪২৫টি নমুনা সংগ্রহ ও ২২ হাজার ১৩৬টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এ নিয়ে মোট নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা দাঁড়াল ৪৫ লাখ ৮৮ হাজার ৮৩০টি। ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষায় শনাক্তের হার ১৭ দশমিক ৬৫ শতাংশ। গত বছরের ৮ মার্চ প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১২ দশমিক ৯৮ শতাংশ। একই সময়ে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২ হাজার ১১৯ জন। এ নিয়ে দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে ওঠা রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫ লাখ ৩৫ হাজার ৯৪১ জন। ২৪ ঘণ্টায় সুস্থতার হার ৮৯ দশমিক ৯৭ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ৩৫ জনের মধ্যে ত্রিশোর্ধ্ব তিনজন, চল্লিশোর্ধ্ব ছয়জন, পঞ্চাশোর্ধ্ব পাঁচজন এবং ষাটোর্ধ্ব ২১ জন। বিভাগওয়ারী হিসাবে দেখা গেছে, করোনায় মৃত ৩৫ জনের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ২৫ জন, চট্টগ্রামে দুজন, রাজশাহীতে দুজন, খুলনায় একজন এবং বরিশাল বিভাগে পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে।

আরও ৩৪ মৃত্যু, টানা তৃতীয়দিনে সাড়ে তিন হাজারের বেশি শনাক্ত
                                  

দেশে টানা তৃতীয়দিনের মতো সাড়ে তিনহাজারেরও বেশি করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় নমুনা পরীক্ষায় নতুন তিন হাজার ৫৮৭ জন রোগী শনাক্ত হয়। এ নিয়ে দেশে করোনা ভাইরাসে শনাক্ত মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল পাঁচ লাখ ৮৪ হাজার ৩৯৫ জনে। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৩৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশে মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল আট হাজার ৭৯৭ জনে। বৃহস্পতিবার (২৫ মার্চ) স্বাস্থ্য অধিদফতরের নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

ফের শনাক্ত সাড়ে ৩ হাজারের ওপরে, মৃত্যু ২৫
                                  

করোনাভাইরাসে শনাক্ত রোগী ও মৃতের সংখ্যা আরও বেড়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ২৫ হাজার ৭০২টি নমুনা পরীক্ষা করে নতুন তিন হাজার ৫৬৭ জন রোগী শনাক্ত হয়েছে। পূর্ববর্তী ৪৮ ঘণ্টায় এ সংখ্যা ছিল যথাক্রমে তিন হাজার ৫৫৪ জন ও দুই হাজার ৮০৯ জন। গতকাল ১৮ জনের মৃত্যুর কথা জানায় স্বাস্থ্য অধিদফতর। তার আগের ২৪ ঘণ্টায় এ সংখ্যা ছিল ২৫। বুধবার (২৪ মার্চ) স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা গেছে।

সাড়ে আট মাস পর করোনায় সর্বোচ্চ শনাক্ত
                                  

করোনাভাইরাসে শনাক্তকৃত রোগী লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ২৫ হাজার ৯৫৪টি নমুনা পরীক্ষা করে তিন হাজার ৫৫৪ জন রোগী শনাক্ত হয়। এটি গত সাড়ে আট মাসে সর্বোচ্চ শনাক্ত। এর পূর্ববর্তী ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তকৃত রোগীর সংখ্যা ছিল দুই হাজার ৮০৯ জন। শনাক্ত বাড়লেও কমেছে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ১৮ জনের। মঙ্গলবার (২৩ মার্চ) স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা গেছে।

আড়াই মাস পর করোনায় একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু
                                  

সারাদেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৩০ জন মারা গেছেন। তাদের মধ্যে পুরুষ ২৫ জন ও নারী পাঁচজন। আড়াই মাস পর করোনায় একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু হলো। এর আগে গত ৭ জানুয়ারি প্রাণঘাতী এ ভাইরাসে ৩১ জনের মৃত্যু হয়। সোমবার (২২ মার্চ) স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। গত একদিনে মৃত ৩০ জনসহ দেশে করোনায় মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল আট হাজার ৭২০ জনে। এছাড়া এই সময়ে ২ হাজার ৮০৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল পাঁচ লাখ ৭৩ হাজার ৬৮৭ জনে। দেশে ২৪ ঘণ্টায়  শনাক্ত রোগীর সংখ্যা গত সাত মাসের মধ্যে সবচেয়ে বেশি। এর আগে ২০২০ সালের বছরের ২০ আগস্ট ২ হাজার ৮৬৮ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের সরকারি ও বেসরকারি ২১৯টি ল্যাবরেটরিতে ২৬ হাজার ১টি নমুনা সংগ্রহ ও ২৫ হাজার ১১১টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এ নিয়ে মোট নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা দাঁড়াল ৪৪ লাখ ৩৪ হাজার ৩২০ জনে। ২৪ ঘণ্টায় রোগী শনাক্তের হার ১১ দশমিক ১৯ শতাংশ। এতে আরও বলা হয়েছে, একই সময়ে করোনাভাইরাস থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছে এক হাজার ৭৫৪ জন। এ নিয়ে দেশে মোট সুস্থ রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল পাঁচ লাখ ২৪ হাজার ১৫৯ জনে।

করোনায় মৃত্যু ১৮ জনের, শনাক্ত ১১৫৯
                                  

করোনাভাইরাসে শনাক্ত নতুন রোগী ও মৃত্যু অব্যাহতভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ১ হাজার ১৫৯ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে। এদিন মৃত্যু হয়েছে আরও ১৮ জনের। নমুনা পরীক্ষার হিসাবে শনাক্তের হার ৭ দশমিক ১৫ শতাংশ। মাত্র কয়েক দিন আগেও শনাক্তের হার ছিল ৩ শতাংশেরও কম। রোববার (১৪ মার্চ) স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মারা যাওয়া ১৮ জনের মধ্যে পুরুষ ১২ জন ও নারী ছয়জন। তাদের সবাই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। এ নিয়ে এ মহামারিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৮ হাজার ৫৪৫ জনে। গত ২৪ ঘণ্টায় ২১৯টি ল্যাবরেটরিতে ১৬ হাজার ৫২৮টি নমুনা সংগ্রহ ও ১৬ হাজার ২০৬টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এ নিয়ে মোট নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪২ লাখ ৬৪ হাজার ৫৫১টি।

রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন হাসপাতাল ও বাড়িতে উপসর্গবিহীন রোগীসহ গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৩৮৫ জন। এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ৫ লাখ ১১ হাজার ৬৯৫ জন। গত বছরের ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত এবং ১৮ মার্চ প্রথম করোনা রোগীর মৃত্যু হয়। ১১ মার্চ পর্যন্ত মোট মৃত্যু হয়েছে ৮ হাজার ৫১৫ জন। এদের মধ্যে পুরুষ ৬ হাজার ৪৪২ জন ও নারী ২ হাজার ৭৩ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত ১৮ জনের মধ্যে দশোর্ধ্ব একজন, পঞ্চাশোর্ধ্ব পাঁচজন ও ষাটোর্ধ্ব ১২ জন। তাদের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ১০ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে পাঁচজন, রাজশাহী বিভাগে দুইজন এবং বরিশাল বিভাগের একজন আছেন।

টানা দ্বিতীয় দিনের মতো করোনা শনাক্ত আরো বেশি
                                  

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা টানা দ্বিতীয় দিনের মতো হাজার ছাড়িয়েছে। বৃহস্পতিবার (১১ মার্চ) এ ভাইরাসে আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে ১ হাজার ৫২ জন। গতকাল (১০ মার্চ) শনাক্ত হয়েছিল এক হাজার ১৮ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ছয়জনের। মৃত্যুবরণকারী ছয়জনই পুরুষ। তারা সকলেই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। বৃহস্পতিবার (১১ মার্চ) স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজধানীসহ সারাদেশের ২১৯ ল্যাবে ১৮ হাজার ৫৮টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এ নিয়ে সর্বমোট নমুনা পরীক্ষা সংখ্যা দাঁড়াল ৪২ লাখ ১৬ হাজার ২৮ জন এবং শনাক্তকৃত রোগীর সংখ্যা পাঁচ লাখ ৫৪ হাজার ১৫৬ জন। ৬ জনের মৃত্যুতে দেশে এই মহামারিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৮ হাজার ৫০২ জনে। এদের মধ্যে পুরুষ ৬ হাজার ৪৩০জন (৭৫ দশমিক ৬৩ শতাংশ) ও নারী দুই হাজার ৭২ জন (২৪ দশমিক শূন্য ৩৭ শতাংশ)। এদিকে, রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ও বাড়িতে উপসর্গবিহীন রোগীসহ গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন এক হাজার ৩০৭ জন। এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ৫ লাখ সাত হাজার ৯২০ জন। গত বছরের ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত ও ১৮ মার্চ প্রথম করোনা রোগীর মৃত্যু হয়।

দেশে করোনা ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৮
                                  

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। অর্থাৎ প্রতি তিন ঘণ্টায় একজন করে মারা গেছে। এখন পর্যন্ত করোনায় মারা গেছে ৮ হাজার ২২৯ জন। এছাড়া গত একদিনে আরও  ৩৮৭ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে করোনায় আক্রান্ত হলেন মোট ৫ লাখ ৩৮ হাজার ৭৬৫ জন। মঙ্গলবার (৯ ফেব্রুয়ারি) স্বাস্থ‌্য অধিদপ্তরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ‌্য জানানো হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হিসাবে বাসা ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আরও ৬৪২ জন রোগী সুস্থ হয়েছেন।  এ পর্যন্ত সুস্থ রোগীর মোট সংখ্যা বেড়ে ৪ লাখ ৮৪ হাজার ৫৭৩ জন হয়েছে। মৃতদের মধ্যে পুরুষ ৭ জন, নারী একজন। 

করোনাতে মৃত্যু ১৩, শনাক্ত ৪৮৫
                                  

করোনাভাইরাসে দেশে আরও ১৩ জনের মৃত‌্যু হয়েছে। এ নিয়ে করোনায় মৃতের সংখ‌্যা দাঁড়ালো ৮ হাজার ১৭৫ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৪৮৫ জন। এ নিয়ে মোট  আক্রান্তের সংখ‌্যা দাঁড়ালো ৫ লাখ ৩৭ হাজার ৩০ জন। বৃহস্পতিবার (৪ ফেব্রুয়ারি)  বিকেলে স্বাস্থ‌্য অধিদপ্তরের এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ‌্য জানানো হয়।  বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন আরও ৬১১ জন। এ নিয়ে মোট সুস্থ ব্যক্তির সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪ লাখ ৮১ হাজার ৯১৭ জনে। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৯ দশমিক ৭৪ শতাংশ। বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, দেশের সরকারি ও বেসরকারি ২০৬টি ল্যাবে গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ১৫ হাজার ২৭৩টি। এ নিয়ে মোট নমুনা পরীক্ষা করা হলো ৩৭ লাখ ৮ হাজার ৯০৭টি। নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ৩ দশমিক ১৮ শতাংশ। আর মোট পরীক্ষায় এ পর্যন্ত শনাক্ত হয়েছেন ১৪ দশমিক ৪৮ শতাংশ। নতুন যে ১৩ জন মারা গেছেন তাদের মধ্যে পুরুষ ৮ জন, নারী ৫ জন। শনাক্ত বিবেচনায় মোট মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৫২ শতাংশ। 

করোনায় ১৭ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৫২৮
                                  

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আরো ১৭  জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ৮ হাজার ৭২ জনে। নতুন করে রোগী শনাক্ত হয়েছে ৫২৮ জন। মোট শনাক্ত ৫ লাখ ৩৩ হাজার ৪৪৪ জনে দাঁড়িয়েছে। ২৪ ঘণ্টায়  ৫০৯ জন এবং এখন পর্যন্ত ৪ লাখ ৭৭হাজার  ৯৩৫ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। আজ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য  জানানো হয়েছে। এতে আরো জানানো হয়, ২০০টি পরীক্ষাগারে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৫ হাজার ৯৩২ টি নমুনা সংগ্রহ এবং ১৫ হাজার ৭২০টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত ৩৬লাখ৫০৮ টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার  ৩ দশমিক ৩৬ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৯ দশমিক ৫৯ শতাংশ এবং শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৫১ শতাংশ।। 

করোনায় আরও ১৭ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৯৭৮
                                  

করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে আরও ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে ভাইরাসটিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৭ হাজার ৬৮৭ জনে। বুধবার (৬ জানুয়ারি) বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে ১৮১টি ল্যাবে ১৫ হাজার ৫৪৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এ পর্যন্ত পরীক্ষা হয়েছে ৩৩ লাখ দুই হাজার ৪২৯টি নমুনা। এ সময়ে আক্রান্ত হিসেবে নতুন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন আরও ৯৭৮ জন। দেশে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল পাঁচ লাখ ১৮ হাজার ৮৯৮ জনে।

প্রত্যাশা নতুন বছরে
                                  

বিষাদময় যাত্রা শেষে বিদায় নিচ্ছে ২০২০। অন্য যে কোনো বছরের চেয়ে আলাদা এ বছরের শেষ সূর্য ডুবছে আজ বিশ্বজুড়ে কভিড-১৯জনিত রোগে প্রায় সাড়ে সাত লাখ মানুষের না ফেরার দেশে চলে যাওয়ার গভীর বেদনা নিয়ে। একদিকে এই ভয়ংকর অতিমারির টিকা আবিস্কার ও তা প্রয়োগের গভীর স্বস্তি, অন্যদিকে ভাইরাসের নতুন ধরনের বিস্তারের শঙ্কা জমে আছে ২০২০-এর এই বিদায়ী সূর্যজুড়ে।
সারাবিশ্বের আট কোটির বেশি মানুষের শরীরে এখনও এই মহামারির বিষ জমে আছে। এই বিষাক্ত হাওয়ার ভেতরেই শুরু হবে নতুন বছর ২০২১।
২০১৯ সালের ৩১ ডিসেম্বর চীনের উহান থেকে খবর এসেছিল, করোনাভাইরাসের নতুন একটি ধরন গ্রাস করতে আসছে পৃথিবীকে। তারপর যত দিন গেছে, সেই আতঙ্ক আরও প্রবল হয়েছে। মহামারি দ্রুতগতিতে ছড়িয়ে পড়েছে চীনের সীমানা পেরিয়ে ইউরোপ, উত্তর আমেরিকা, দক্ষিণ আমেরিকা, আফ্রিকা হয়ে এশিয়ার প্রায় সব দেশে। বছরের দ্বিতীয় মাসেই কভিড-১৯ মহামারিতে মৃত্যুপুরীতে পরিণত হয় ইউরোপের ইতালি, স্পেন, যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য। প্রতিদিন আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বাড়তে থাকে বিশ্বের প্রায় সব দেশে। ঘরবন্দি হতে বাধ্য হয় প্রযুক্তিগত উৎকর্ষতার চরম শিখরে থাকা একবিংশ শতাব্দীর মানুষ।
এমন অভূতপূর্ব অবস্থার সঙ্গে পরিচিত ছিল না বিশ্ববাসী। `লকডাউন` শব্দটি আগে ব্যবহূত হয়েছে কালেভদ্রে, আইনশৃঙ্খলা রক্ষার স্বার্থে। এবার মানবসভ্যতার অদৃশ্য শত্রুর সঙ্গে লড়তে সেই `লকডাউন` শব্দটি বিশ্বজুড়ে সবচেয়ে চর্চিত শব্দে পরিণত হলো। মার্চ মাস পর্যন্ত চীন, পূর্ব এশিয়া ও ইউরোপের বিভিন্ন দেশ থেকে লকডাউনের খবর আসছিল। এর মধ্যে বাংলাদেশেও মার্চের শেষ থেকে কভিড-১৯-এর প্রকোপ বাড়তে থাকে। প্রতিদিন গড়ে ২৫ থেকে ৩০ জনের মৃত্যুর খবর আসতে থাকে। এ অবস্থায় এখানেও `লকডাউন` ঘোষণা করা হয়। তবে সরকারের নানামুখী পদক্ষেপের কারণে বাংলাদেশে কভিড-১৯ ইউরোপ, আমেরিকা, দক্ষিণ আমেরিকা কিংবা মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর মতো ভয়াবহ আকার ধারণ করেনি। তারপরও সাত হাজারের বেশি মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন করোনাভাইরাসের ছোবলে।
শুধু জীবনযাপন নয়, বিশ্বব্যবস্থা বা ভূ-রাজনীতির ক্ষেত্রেও ব্যাপক পরিবর্তন এনেছে ২০২০ সাল। গত এক দশক থেকে চীনের উত্থানের ফলে বিশ্ব অর্থনীতির ভরকেন্দ্র এশিয়ার দিকে চলে আসছিল। কিন্তু কভিড-১৯-এর মারাত্মক বিস্তারের পর এর টিকা আবিস্কার ও এর বিতরণ নিয়ন্ত্রণের ক্ষেত্রে পশ্চিমা দেশগুলোর অবস্থান সেই ভরকেন্দ্রকে আবারও ফিরিয়ে নিতে চলেছে পাশ্চাত্যের দিকে।
করোনাভাইরাসের প্রকোপজনিত অবস্থায় বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও অফিস, স্কুলসহ দৈনন্দিন কাজে অনলাইন মাধ্যমের ব্যাপক ব্যবহার শুরু হয়। যেখানে ২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাসেও দেশে ইন্টারনেট ব্যান্ডউইথ ব্যবহারের পরিমাণ এক হাজার জিবিপিএসের কম ছিল, সেখানে মে-জুন মাসেই তা এক হাজার পাঁচশ জিবিপিএসে পৌঁছে যায়। ডিসেম্বর মাসে এসে এই ব্যান্ডউইথ ব্যবহারের পরিমাণ দাঁড়ায় দুই হাজার একশ জিবিপিএস। তবে ডিজিটাল বাংলাদেশের মজবুত অবকাঠামো থাকায় বর্ধিত ইন্টারনেট ব্যান্ডউইথ চাহিদা মেটাতে কোনো সমস্যা হয়নি; বরং লকডাউনে নতুন করে জনপ্রিয় হয়ে ওঠে ই-কমার্স। স্মার্টফোন, ল্যাপটপের মতো ডিভাইসের বিক্রিও বেড়ে যায় স্বাভাবিকের চেয়ে দ্বিগুণ। ফলে ডিজিটাল ডিভাইস ব্যবহারে মানুষ অভ্যস্ত হয়ে ওঠে।
মহামারির এ সময় বছরজুড়েই প্রত্যাশা ছিল ভ্যাকসিনের। বিশ্বের বড় বড় দেশ থেকে ভ্যাকসিন আবিস্কারের কার্যক্রম শুরু হয়। এমনকি বাংলাদেশের ওষুধ কোম্পানি গ্লোব বায়োটেকও দেশেই ভ্যাকসিন তৈরির ঘোষণা দেয়। ফলে কভিড-১৯ ভ্যাকসিন উদ্ভাবনকারী দেশের তালিকায় বাংলাদেশও যুক্ত হয়। তবে বছর শেষে ভ্যাকসিনটির হিউম্যান ট্রায়াল শুরু হতে পারেনি অবশ্যপালনীয় কয়েকটি প্রক্রিয়া সম্পন্ন না হওয়ায়।
এই অতিমারির মধ্যেও বাংলাদেশের জন্য আশা বয়ে আনে বছরের শেষ মাসে দেশের সুদীর্ঘ পদ্মা সেতুর সর্বশেষ ৪১তম স্প্যান বসানোর সংবাদ। এর মাধ্যমে দৃশ্যমান হয়ে ওঠে ছয় হাজার ১৫০ মিটারের পুরো সেতু। নিজস্ব অর্থায়নে নির্মিত এ সেতু দেশের ভাবমূর্তিকে আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রেও উজ্জ্বল করে তুলেছে। আগামী বছরের জুনে এ সেতুর নির্মাণকাজ শেষ হবে বলে প্রত্যাশা করা হচ্ছে। করোনার মধ্যেও দেশে রেমিট্যান্স প্রবাহ ছিল স্বাভাবিক। বছরের শেষ ভাগে বিশ্বব্যাংক এক প্রতিবেদনে জানায়, রেমিট্যান্স প্রবাহের ক্ষেত্রে ২০২০ সালে বিশ্বে বাংলাদেশের অবস্থান হবে অষ্টম। এ প্রতিবেদনমতে, এ বছর বাংলাদেশের রেমিট্যান্স বাড়ছে ৮ শতাংশ। কৃষকদের একাগ্র ভূমিকার ফলে কৃষি ও কৃষিজাত পণ্য উৎপাদন ছিল এ বছর আগের মতোই স্বাভাবিক, যা স্বস্তি বয়ে এনেছে অর্থনীতিতে।

 ২০২০-এর মার্চে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মুজিববর্ষের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে আসার কথা থাকলেও শেষ পর্যন্ত তিনি আসতে পারেননি। তবে বছরের শেষে গত ১৭ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তার ভার্চুয়াল দ্বিপক্ষীয় বৈঠক হয়। এর ফলে দু`দেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক আবারও নতুন মাত্রা পায়। এ বৈঠকের আগে সাতটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয় দুই দেশের মধ্যে।

বছরের শেষে গত ৪ ডিসেম্বর রোহিঙ্গাদের কক্সবাজার ক্যাম্প থেকে ভাসানচরে স্থানান্তর শুরু হয়। ভাসানচরে পৌঁছে সেখানে বসবাসের উন্নত ও আধুনিক ব্যবস্থা দেখে মুগ্ধ হন তারা। বাংলাদেশ সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তারা। তবে এ ক্ষেত্রে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে কার্যকর ব্যবস্থা নিতে ব্যর্থ জাতিসংঘের নেতিবাচক ভূমিকা ও বিবৃতি সবাইকে বিস্মিত করে। রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে বাংলাদেশ জোর কূটনৈতিক প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখলেও আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় এ ব্যাপারে কার্যকর ভূমিকা নিতে পারেনি।
বছরের শেষে এসে হেফাজতে ইসলামের নেতা মামুনুল হক বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য স্থাপনের বিরোধিতা করে এবং ভাঙার ঘোষণা দিয়ে চরম ঔদ্ধত্য দেখালে দেশজুড়ে ক্ষোভ দেখা দেয়। উগ্র ধর্মীয় মৌলবাদী সংগঠনগুলোর উদ্দেশ্যমূলক তৎপরতার বিষয়টি তখন আবারও সামনে আসে। এর মধ্যেই কুষ্টিয়ায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙে মাদ্রাসার কয়েকজন শিক্ষক ও ছাত্র। দেশজুড়ে ব্যাপক প্রতিবাদের মধ্যেই কুষ্টিয়ায় ফের ব্রিটিশ ঔপনিবেশবিরোধী বিপ্লবী বাঘা যতীনের ভাস্কর্য ভাঙা হয়। এসব ঘটনায় উত্তপ্ত হয়ে ওঠে রাজনৈতিক অঙ্গন। বছরজুড়ে রাজনৈতিক অঙ্গন উত্তপ্ত ছিল গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের কভিড-১৯ কিট বিতর্ক ও পাল্টাপাল্টি বক্তব্যে। মহামারিজনিত কারণে রাজনীতি বৃত্তাবদ্ধ হয়ে পড়ে অনলাইন মাধ্যমে। আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি ও বিভিন্ন বাম দলের নেতাকর্মীরা সক্রিয় ছিলেন অনলাইন ও বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে।
২০২১ সাল বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর বছর। ২০২০ সালের শেষে এসে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে `মুজিববর্ষ` উদযাপনের সময়সীমাও বাড়ানো হয়েছে। নতুন বছর তাই আশার আলোও জ্বালছে। প্রত্যাশা করা হচ্ছে, ভ্যাকসিন আসার ফলে মহামারির ছোবল মিইয়ে পড়বে, রক্ষা পাবে মানবসভ্যতা, সুপ্রতিষ্ঠিত হবে মুক্তিযুদ্ধের প্রত্যাশা ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শ। নতুন সূর্যের কাছে এমনই প্রত্যাশা মানুষের।

২৪ ঘণ্টায় ২৪ মৃত্যু
                                  

 দেশে করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় ২৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশে মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ৭ হাজার ৪৫২ জন।

এছাড়া শনাক্ত হয়েছে আরও ১ হাজার ৪৯ জন।  এ নিয়ে দেশে করোনাভাইরাসে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৫ লাখ ৯ হাজার ১৪৮ জন হয়েছে। রোববার (২৭ ডিসেম্বর) বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, রোববার সকাল পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৪৭৩ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৪ লাখ ৫১ হাজার ৯৬১ জন। 

করোনায় প্রাণ গেলো আরও ১৭ জনের, শনাক্ত ১৩১৮
                                  

দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রাণ গেলো আরও ১৭ জনের। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭ হাজার ৩২৯ জনে। এছাড়া, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ১ হাজার ৩১৮ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে দেশে করোনা শনাক্ত হলো মোট ৫ লাখ ৩ হাজার ৫০১ জনের। মঙ্গলবার (২২ ডিসেম্বর) স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। 

করোনায় মৃত্যু ৩৬, শনাক্ত ২১৯৮
                                  

দেশে করোনায় আরও ৩৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে করোনায় মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ৬ হাজার ৮৭৪ জনে। সোমবার (৭ ডিসেম্বর)  বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে গণমাধ‌্যমে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হয়েছে দুই হাজার ১৯৮ জন। এ নিয়ে মোট শনাক্ত করোনা রোগীর সংখ‌্যা দাঁড়ালো ৪ লাখ ৭৯ হাজার ৭৪৩ জন।  


   Page 1 of 39
     বাংলাদেশ
দেশে করোনা শনাক্তের রেকর্ড, আরও ৪৫ জনের মৃত্যু
.............................................................................................
একদিনে ৩৫ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৩৯০৮
.............................................................................................
আরও ৩৪ মৃত্যু, টানা তৃতীয়দিনে সাড়ে তিন হাজারের বেশি শনাক্ত
.............................................................................................
ফের শনাক্ত সাড়ে ৩ হাজারের ওপরে, মৃত্যু ২৫
.............................................................................................
সাড়ে আট মাস পর করোনায় সর্বোচ্চ শনাক্ত
.............................................................................................
আড়াই মাস পর করোনায় একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু
.............................................................................................
করোনায় মৃত্যু ১৮ জনের, শনাক্ত ১১৫৯
.............................................................................................
টানা দ্বিতীয় দিনের মতো করোনা শনাক্ত আরো বেশি
.............................................................................................
দেশে করোনা ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৮
.............................................................................................
করোনাতে মৃত্যু ১৩, শনাক্ত ৪৮৫
.............................................................................................
করোনায় ১৭ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৫২৮
.............................................................................................
করোনায় আরও ১৭ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৯৭৮
.............................................................................................
প্রত্যাশা নতুন বছরে
.............................................................................................
২৪ ঘণ্টায় ২৪ মৃত্যু
.............................................................................................
করোনায় প্রাণ গেলো আরও ১৭ জনের, শনাক্ত ১৩১৮
.............................................................................................
করোনায় মৃত্যু ৩৬, শনাক্ত ২১৯৮
.............................................................................................
করোনায় আরও ৩৫ মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ২৩১৬
.............................................................................................
জাতিসংঘে ‘শান্তির সংস্কৃতি’ বজায় রাখতে বাংলাদেশের আহ্বান
.............................................................................................
বাংলাদেশ উত্থাপিত ‘শান্তির সংস্কৃতি’ রেজুলেশন জাতিসংঘে গৃহীত
.............................................................................................
করোনায় প্রাণ গেলো আরও ৩৮ জনের, শনাক্ত ২১৯৮
.............................................................................................
মুক্তিযোদ্ধা আতিক হত্যা: আসামিদের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন
.............................................................................................
আগামী সপ্তাহ থেকে ফাইজারের টিকা ব্যবহার করবে যুক্তরাজ্য
.............................................................................................
ডাচ-বাংলা ব্যাংকে চাকরির সুযোগ
.............................................................................................
দু`টি এয়ারলাইন্স মানবপাচারে জড়িত: সিআইডি
.............................................................................................
করোনায় আরও ৩১ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২২৯৩
.............................................................................................
করোনার প্রাথমিক লক্ষণ নাকে
.............................................................................................
নারী নির্যাতনকারীদের দলে আশ্রয় দেবেন না
.............................................................................................
আমৃত্যু উল্লেখ না থাকলে যাবজ্জীবন অর্থ ৩০ বছর কারাদণ্ড: আপিল বিভাগ
.............................................................................................
দেশে করোনায় আরও ৩৫ মৃত্যু, শনাক্ত ২৫২৫
.............................................................................................
‘সরকার দ্রব্যমূল‌্যের ঊর্ধ্বগতি পরোয়া করে না’
.............................................................................................
রোববার বঙ্গবন্ধু রেলসেতুর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন
.............................................................................................
করোনায় আরও ৩৬ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৯০৮
.............................................................................................
ম্যারাডোনার মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক
.............................................................................................
পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন করোনায় আক্রান্ত
.............................................................................................
এবার পুড়লো কালশীর বস্তি
.............................................................................................
ট্রাকের ধাক্কায় সড়কে প্রাণ গেল পুলিশ সদস্যের
.............................................................................................
পাপুলের স্ত্রী ও মেয়ের সম্পদের হিসাব চেয়ে দুদকের নোটিশ
.............................................................................................
আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ শুরু হচ্ছে আজ
.............................................................................................
গোল্ডেন মনির, প্রবাসী সাংবাদিক, ব্লগারসহ ১৬ জনের ব্যাংক হিসাব তলব
.............................................................................................
শীত বাড়তে পারে রোববার থেকে
.............................................................................................
ধামরাইয়ে ২ বাসের সংঘর্ষে নারী নিহত, আহত ৩০
.............................................................................................
জাবি শিক্ষক কবি হিমেল বরকত আর নেই
.............................................................................................
`গোল্ডেন মনিরের` উত্থান যেভাবে
.............................................................................................
দেশে করোনায় আরও ৩৮ মৃত্যু
.............................................................................................
দৃশ্যমান হলো পদ্মা সেতুর পৌনে ৬ কিলোমিটার
.............................................................................................
দেশে করোনায় মৃত্যু আরো ২৮, শনাক্ত ১৮৪৭
.............................................................................................
বেড়েছে মৌসুমি ভিক্ষুক, বেশির ভাগই নারী
.............................................................................................
নারী পোশাকশ্রমিকদের হয়রানির ঝুঁকি বাড়িয়েছে করোনা
.............................................................................................
জঙ্গি আস্তানায় অভিযান সমাপ্ত
.............................................................................................
ওয়ারীতে গাড়ির চাপায় নিহত স্কুলছাত্র
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো : মাহবুবুর রহমান ।
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মো: হাবিবুর রহমান । সম্পাদক কর্তৃক বিএস প্রিন্টিং প্রেস ৫২/২ টয়েনবি সার্কুলার রোড, সুত্রাপুর ঢাকা খেকে মুদ্রিত
ও ৬০/ই/১ পুরানা পল্টন (৭ম তলা) থেকে প্রকাশিত বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৫১,৫১/ এ রিসোর্সফুল পল্টন সিটি (৪র্থ তলা), পুরানা পল্টন, ঢাকা -১০০০।
ফোনঃ-০২-৯৫৫০৮৭২ , ০১৭১১১৩৬২২৬

Web: www.bhorersomoy.com E-mail : dbsomoy2010@gmail.com
   All Right Reserved By www.bhorersomoy.com Developed By: Dynamic Solution IT & Dynamic Scale BD