ঢাকা,শনিবার,৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৮,২৪,জুলাই,২০২১
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : * ফরিদপুরে বিসিআই’র অক্সিজেন ও হাইফ্লো ক্যানোলা হস্তান্তর   * এলজিইডিতে করোনা মোকাবেলায় নানা কর্মসূচি নিয়েছেন   * চীন-রাশিয়া সম্পর্ক, মাঝখানে পোয়াবারো মঙ্গোলিয়ার   * রূপগঞ্জে হতাহতদের পরিবারকে সমবেদনা জানাতে যাচ্ছেন ডা. জাফরুল্লাহ   * কারখানা শ্রমিকদের জীবন নিরাপদ হয়নি: জিএম কাদের   * সরকারি অফিসের সব দাপ্তরিক কাজ ভার্চ্যুয়ালি করার নির্দেশ   * ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর জন্য ৮০০ কেজি আনারস পাঠালেন   * ‘ব্রাজিলের মাটিতে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার আনন্দ দ্বিগুণ’   * শেখ হাসিনার জন্য ২০ মণ আনারস পাঠালেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী   * করোনায় ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড ২০১ জনের মৃত্যু  

   তথ্যপ্রযুক্তি -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
জেসিআই ঢাকা হেরিটেজের উদ্যোগে রোবটিক্স নিয়ে অনলাইন আলোচনা

সম্প্রতি ‘রোবটিক্স: ফোস্টারিং গ্রোথ ইন কান্ট্রিস অটোমেশন সেক্টর’ শীর্ষক অনলাইনভিত্তিক আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ও জেসিআই ঢাকা হেরিটেজের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত অনুষ্ঠানটি অনলাইনভিত্তিক টিভি চ্যানেল ক্যাম্পাস টিভিতে সরাসরি সম্প্রচার করা হয়। ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সহকারী অধ্যাপক কৌশিক সরকারের সঞ্চালনায় শুরুতে বাংলাদেশের রোবটিক্সের বিভিন্ন কার্যক্রম এবং ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির বেশ কিছু উল্লেখযোগ্য উদ্যোগ নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেন বাংলাদেশ রোবটিক্স ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির প্রভাষক মো. হাফিজুল ইমরান। আলোচনা অনুষ্ঠানের শুরুতে বাংলাদেশ সরকারের এটুআই প্রোগ্রামের টেকনোলজি এক্সপার্ট মো. ফজলে মুনিম চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা ও রোবটিক্সসহ বিভিন্ন ইমার্জিং টেকনোলজি নিয়ে সরকারের বর্তমান ও ভবিষ্যৎ কর্মপরিকল্পনা তুলে ধরেন। আলোচনায় অংশ নিয়ে ডটলাইনস গ্রুপের ডিরেক্টর এবং চিফ স্ট্রেটেজি অফিসার শারফুল আলম বাংলাদেশের বর্তমান অর্থনৈতিক প্রেক্ষাপটে রোবটিক্সে বিনিয়োগের বিভিন্ন ক্ষেত্র ও চ্যালেঞ্জসমূহ তুলে ধরেন। আলোচনার অপর বক্তা নগদের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর এবং জেসিআই বাংলাদেশের ন্যাশনাল প্রেসিডেন্ট নিয়াজ মোর্শেদ নতুন প্রজন্মের উদ্যোক্তাদের জন্য রোবটিক্সে বিনিয়োগের অপার সম্ভাবনার কথা তুলে ধরেন এবং বর্তমান চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় বিভিন্ন রূপরেখা নিয়ে আলোচনা করেন। আলোচনার সর্বশেষ বক্তা ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্টের হেড ড. ইমরান মাহমুদ রোবটিক্স নিয়ে গবেষণার বিভিন্ন চ্যালেঞ্জসমূহ তুলে ধরেন এবং এ ধরনের গবেষণায় সরকারি ও বেসরকারি পৃষ্ঠপোষকতার গুরুত্ব তুলে ধরেন। অনুষ্ঠানের সমাপনী বক্তা নাহিদা আক্তার জেসিআই ঢাকা হেরিটেজের লোকাল প্রেসিডেন্ট জেসিআই বাংলাদেশ সম্পর্কিত একটি তথ্যচিত্র উপস্থাপন করেন এবং সবাইকে ধন্যবাদ জ্ঞাপনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপনী ঘোষণা করেন।

জেসিআই ঢাকা হেরিটেজের উদ্যোগে রোবটিক্স নিয়ে অনলাইন আলোচনা
                                  

সম্প্রতি ‘রোবটিক্স: ফোস্টারিং গ্রোথ ইন কান্ট্রিস অটোমেশন সেক্টর’ শীর্ষক অনলাইনভিত্তিক আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ও জেসিআই ঢাকা হেরিটেজের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত অনুষ্ঠানটি অনলাইনভিত্তিক টিভি চ্যানেল ক্যাম্পাস টিভিতে সরাসরি সম্প্রচার করা হয়। ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সহকারী অধ্যাপক কৌশিক সরকারের সঞ্চালনায় শুরুতে বাংলাদেশের রোবটিক্সের বিভিন্ন কার্যক্রম এবং ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির বেশ কিছু উল্লেখযোগ্য উদ্যোগ নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেন বাংলাদেশ রোবটিক্স ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির প্রভাষক মো. হাফিজুল ইমরান। আলোচনা অনুষ্ঠানের শুরুতে বাংলাদেশ সরকারের এটুআই প্রোগ্রামের টেকনোলজি এক্সপার্ট মো. ফজলে মুনিম চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা ও রোবটিক্সসহ বিভিন্ন ইমার্জিং টেকনোলজি নিয়ে সরকারের বর্তমান ও ভবিষ্যৎ কর্মপরিকল্পনা তুলে ধরেন। আলোচনায় অংশ নিয়ে ডটলাইনস গ্রুপের ডিরেক্টর এবং চিফ স্ট্রেটেজি অফিসার শারফুল আলম বাংলাদেশের বর্তমান অর্থনৈতিক প্রেক্ষাপটে রোবটিক্সে বিনিয়োগের বিভিন্ন ক্ষেত্র ও চ্যালেঞ্জসমূহ তুলে ধরেন। আলোচনার অপর বক্তা নগদের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর এবং জেসিআই বাংলাদেশের ন্যাশনাল প্রেসিডেন্ট নিয়াজ মোর্শেদ নতুন প্রজন্মের উদ্যোক্তাদের জন্য রোবটিক্সে বিনিয়োগের অপার সম্ভাবনার কথা তুলে ধরেন এবং বর্তমান চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় বিভিন্ন রূপরেখা নিয়ে আলোচনা করেন। আলোচনার সর্বশেষ বক্তা ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্টের হেড ড. ইমরান মাহমুদ রোবটিক্স নিয়ে গবেষণার বিভিন্ন চ্যালেঞ্জসমূহ তুলে ধরেন এবং এ ধরনের গবেষণায় সরকারি ও বেসরকারি পৃষ্ঠপোষকতার গুরুত্ব তুলে ধরেন। অনুষ্ঠানের সমাপনী বক্তা নাহিদা আক্তার জেসিআই ঢাকা হেরিটেজের লোকাল প্রেসিডেন্ট জেসিআই বাংলাদেশ সম্পর্কিত একটি তথ্যচিত্র উপস্থাপন করেন এবং সবাইকে ধন্যবাদ জ্ঞাপনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপনী ঘোষণা করেন।

বাংলাদেশে ই-স্পোর্টস: টুর্নামেন্ট ও ইউটিউব থেকে আয় হচ্ছে
                                  

করোনা ভাইরাসের মহামারিতে বিশ্বে যে কয়টি শিল্প খুব দ্রুত এগিয়েছে তার মধ্যে ই-স্পোর্টস অন্যতম। অনলাইন গেম খেলে অনেকেই প্রতি মাসে লাখ লাখ টাকা রোজগার করছে। বাংলাদেশেও অনেকে ই-স্পোর্টসকে পেশা হিসেবে বেছে নিচ্ছেন। তবে ই-স্পোর্টস সম্পর্কে অনেকের ধারণা নেই। সম্ভাবনাময় এই শিল্প সম্পর্কে তরুণ-তরুণীদের ধারণা দিতে ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশ করছে ইত্তেফাক অনলাইন। আজ থাকছে দ্বিতীয় পর্ব-

শুরুতেই জেনে নেওয়া যাক ই-স্পোর্টস কি?

অনলাইনভিত্তিক কম্পিউটার কিংবা মোবাইল গেমিং টুর্নামেন্টগুলোকে বলা হয় ইলেকট্রনিক স্পোর্টস বা ই-স্পোর্টস। পশ্চিমা দেশগুলোতে বড় বড় মিলনায়তন ও স্টেডিয়ামে জাকজমকভাবে এসব টুর্নামেন্টের আয়োজন করা হয়। টুর্নামেন্টে অংশ নেওয়া গেমারদের বলা হয় পেশাদার ই-স্পোর্টস খেলোয়াড়। তারা দলগত কিংবা এককভাবে টুর্নামেন্টে অংশ নিতে পারেন। অনলাইন গেম খেললে সময়ের অপচয়, পড়ালেখার ক্ষতি ও মানসিক সমস্যা হয়-এসব বিষয় নিয়ে আমাদের দেশে আলোচনা হলেও এটি একটি সম্ভাবনাময় খাত তা নিয়ে কোনো আলোচনা হয় না। আমাদের দেশে এই শিল্প হতে পারে অর্থ আয়ের এক স্বর্ণ খনি। পার্শ্ববর্তী দেশ নেপাল ও পাকিস্তানে ই-স্পোর্টসকে আনুষ্ঠানিক খেলার মর্যাদা দিলেও এখনো অন্ধকারে বাংলাদেশ। তবে কিছু তরুণের হাত ধরে সম্ভাবনাময় এই খাত দিন দিন জনপ্রিয় হচ্ছে। অনেকেই পেশা হিসেবে ই-স্পোর্টসকে বেছে নিচ্ছেন। তাদেরই একজন রাজশাহীর তরুণ মোহাম্মদ শাকিল। বাংলাদেশের অন্যতম জনপ্রিয় পেশাদার পাবজি মোবাইল খেলোয়াড় তিনি। সবাই তাকে সিনিস্টার হিসেবেই চিনে। খেলছেন বাংলাদেশের অন্যতম শীর্ষ পাবজি দল এ১ ই স্পোর্টসে। গত বছর দিয়েছেন এইচএসসি পরীক্ষা। এখন বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির অপেক্ষায় আছেন। ছোটকাল থেকেই ছিলো গেম খেলার শখ। সেই শখকে পেশা হিসেবে পরিণত করেছেন তিনি। তার পেশাদার ই-স্পোর্টস খেলোয়াড় হিসেবে জীবনযাপনের বিষয়টি তুলে এনেছে ইত্তেফাক অনলাইন-

শুরুটা কীভাবে হলো?

বন্ধুদের থেকেই প্রথন শুনা হয় পাবজি মোবাইল গেমটির কথা। এতে নাকি সবার সঙ্গে কথা বলে খেলা যায়। আগে আমার এইরকম গেম খেলা হয়নি। তাই বেশ আকর্ষণ নিয়েই খেলা শুরু করি। বন্ধুদের সঙ্গেই শুরু দিকে খেলতাম। গেমটি অনেক হাই রেজুলেশনের আর শুরুর দিকে আমার দিকে উন্নত ডিভাইস ছিলো না। যার কারণে খেলতে অনেক বেগ পেতে হতো। এরপর আস্তে আস্তে টুর্নামেন্টগুলো সম্পর্কে জানতে শুরু করি। প্রথম টুর্নামেন্টটি আমি বন্ধু ও পরিচিত বড় ভাইদের নিয়েই খেলি। এর আর থামা হয়নি। সেসব প্রতিযোগিতামূলক খেলাগুলো খেলতে খেলতেই আমি কিছু ভালো খেলোয়ার খুজে পাই। যাদের মধ্যে দান্তে ও কাপশি অন্যতম। তাদের নিয়ে ২০১৯ সালের দিকে টাইটান ই স্পোর্টস দলটি গঠন করি। পরে সেখান থেকে ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারিতে সৃষ্টি হয় এ১ ই স্পোর্টস দলটির। বলে রাখা ভালো, শাকিলের নেতৃত্বাধীন এ১ ই স্পোর্টস বাংলাদেশের অন্যতম সেরা পাবজি দল। গেমটির দেশীয় টুর্নামেন্টে দাপটের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও সুনাম কুড়িয়েছে দলটি।

বাংলাদেশে ই স্পোর্টদের ভবিষ্যৎ কেমন দেখছেন?

স্পন্সর ছাড়া এই খাতের উন্নতি করা একটু কঠিন। একটি দল পরিচালনা করতে হলে অনেক কিছু প্রয়োজন হয়। তার মধ্যে স্পন্সর অন্যতম। পৃথিবীর অন্যান্য দেশের দলগুলো ভালো স্পন্সর পেয়ে অনেক সুযোগ সুবধা পাচ্ছে। যা হয়তো আমাদের দেশের ই স্পোর্টস খেলোয়াড়রা পাচ্ছে না। সেসব সুযোগ তাদের স্ব-উদ্যোগে তৈরি করে নিতে হচ্ছে। তবে বাংলাদেশে এই খাত দ্রুত এগোচ্ছে। স্পন্সরের বিষয়টি আরও গতিশীল হলে দ্রুত এই শিল্প এগিয়ে যাবে। এতে পাবজির পাশাপাশি অন্যান্য গেমগুলোও দেশের বাজারে প্রবেশ করতে সক্ষম হবে। সেইসঙ্গে স্ট্রিমিং সাইটগুলোতে গেমিংয়ের সাড়া বেশ ভালো। অনেকেই ইউটিউবসহ অন্যান্য স্ট্রিমিং সাইটগুলোতে কাজ করছে।

একজন পেশাদার ই স্পোর্টস খেলোয়াড় কী কী উপায়ে আয় করতে সক্ষম?

বিশ্বব্যাপী পাবজি গেমের প্রতিযোগিতাগুলোতে যেসব দল ভালো করছে তাদের খেলোয়াড়া বেতনভুক্ত। স্পন্সর ও টিম কর্তৃপক্ষ তাদের বেতন দেওয়ার পাশাপাশি অন্যান্য সুযোগ সুবিধা দিয়ে থাকে। তাদের কারও কারও মাসিক বেতন ৮০ হাজার থেকে ১ লাখ টাকা পর্যন্ত। পাশাপাশি টুর্নামেন্টগুলোর প্রাইজমানি থেকে তো আয় আছেই। বাংলাদেশে বেতনের এই প্রক্রিয়া তেমন চালু হয়নি। আমরা যারা খেলছি তারা কেও বেতনভুক্ত না। টুর্নামেন্ট গুলো থেকে যেসব আয় হয় সেগুলোই আমাদের আপাতত উপার্জন। এছাড়া ইউটিউব ও অন্যান্য স্ট্রিমিং সাইট থেকেও কন্টেন্ট ক্রিয়েটর হিসেবে আয় হচ্ছে। ভবিষ্যতে হয়তো আমাদের দেশের খেলোয়াড়রা ভালো স্পন্সর পাবে, বড় বড় গেমিং প্রতিষ্ঠান আমাদের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হবে। আমাদের দেশের খেলোয়াড়রাও বেতনভুক্ত হয়ে খেলবে। বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, মোহাম্মদ শালিকের বর্তমান মাসিক আয় এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যা ১০-১৫ বছর কোনো বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরী করার পর একজন কর্মকর্তা আয় করেন। মূলত টুর্নামেন্ট ও স্ট্রিমিং সাইটগুলো যেমন- ইউটিউব ও লোকো থেকে আয় করছেন তিনি। বিভিন্ন পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, টুর্নামেন্ট খেলে এ১ ই-স্পোর্টস দলটি এখন পর্যন্ত আয় করেছে ৩৩ হাজার ডলার (বাংলাদেশি টাকায় যা প্রায় ২৮ লাখ টাকা)। এছাড়া দলটির প্রত্যেকে স্ট্রিমিং সাইটগুলো যেমন- ইউটিউব ও লোকো থেকে আয় করছেন।

ফুটবল, ক্রিকেটের পেশাদার খেলোয়াড়রা খেলার আগে নিজেদের অনুশীলন করে ম্যাচের জন্য প্রস্তুত করেন। আপনাদের কী এমন কোনো বিষয় আছে?

অবশ্যই আছে। মোবাইল গেম হলেও আমাদের খেলার আগে প্রস্তুতি গ্রহণ করতে হয়। জড়তা কাটাতে হয়। প্রতিদিন খেলার আগে আমরা ৩০ মিনিট থেকে ১ ঘণ্টা পর্যন্ত গেমে বিভিন্ন মুভমেন্টের অনুশীলন করি। যাতে করে ম্যাচে কোনো জড়তা কাজ না করে।

 

গেম খেলা নিয়ে বাসায় কেমন সমালোচনার শিকার হয়েছেন এবং বর্তমান পরিস্থিতি কেমন?

শুরুর দিকে তেমন সমর্থন পাইনি। রাত জেগে খেলা এবং অন্যান্য খেলোয়াড়দের সঙ্গে জোরে কথা বলার জন্য অন্যান্যদের ঘুমের সমস্যা হতো। তাছাড়া দেরি করে ঘুমানোর কারণে দিনেও দেরি করে উঠতাম। সকালে প্রায়ই ক্লাস করতে পারতাম না। যার কারণে বাসা থেকে গেম খেলার জন্য শুরুর দিকে তেমন সমর্থন পাওয়া সম্ভব হয়নি। তবে পাবজি বিশ্বক্যাপ খ্যাত পিএমজিসি কাপ খেলার জন্য যখন দুবাই গেলাম তখন সবকিছুর পরিবর্তন হয়েছে। এখন রাত জেগে খেলার জন্য তেমন কিছু বলেনা। সবদিক দিয়ে ভালোই সমর্থন পাচ্ছি।

সফলতা পাওয়ার পর বন্ধুরা কীভাবে সাপোর্ট করে?

তারা অনেক সাহায্য করে। আমি বাসা থেকে তেমন বের হই না। যদি জরুরী কিছুর প্রয়োজন তারাই এনে দেয়। সব সময় তারা আমাকে সমর্থন ও সাহায্য করে আসছে। আমার সাফল্যে তারাও খুশি। উন্নত দেশগুলোতে ই-স্পোর্টস সম্ভাবনাময় ক্যারিয়ার হলেও বাংলাদেশ অনেক পিছিয়ে। সময় কি হয়েছে বাংলাদেশে ই-স্পোর্টসকে একটি ক্যারিয়ার হিসেবে গণ্য করার? বাংলাদেশে এই খাত দ্রুত এগোচ্ছে। খুব ভালো গ্রো হচ্ছে। এখন ই-স্পোর্টসের সুযোগ সুবিধা সীমিত থাকলেও ভবিষ্যতে এটি ফুলটাইম ক্যারিয়ার হতেই পারে। তবে যারা নতুন আসছেন বা আসতে আগ্রহী তাদের একাগ্র ও নিয়মিত থাকতে হবে। পরিশ্রম ও নিয়মিত অনুশীলন ছাড়া উন্নতি পাওয়া অনেক কঠিন হবে। সেইসঙ্গে আপনাদের পড়ালেখাও চালিয়ে যেতে হএ। মনে রাখতে হবে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার কোনো বিকল্প নেই।

গুগল ফটোসের বিনামূল্যের সেবা বন্ধ হচ্ছে
                                  

বন্ধ হচ্ছে গুগল ফটোসের ফ্রি সার্ভিস। এতদিন সব ফটো ডিভাইস থেকে মুছে ফেলার পরও গুগল ফটোসের অনলাইন ফ্রি ক্লাউড স্টোরেজে রাখা যেত। কিন্তু আনলিমিটেড স্টোরেজের সেই সুবিধা শেষ হচ্ছে ১ জুন থেকে। বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান গুগল ইতিমধ্যেই ঘোষণা করেছে, ১ জুন থেকে শুধু ১৫ জিবি ক্লাউড স্টোরেজ বিনামূল্যে পাবেন গ্রাহকরা। তার বেশি হয়ে গেলেই টাকা দিয়ে স্টোরেজ কিনতে হবে। উল্লেখ্য, এই চার্জ কেবল নতুন ফটো-ভিডিও সেভ করার জন্য। অর্থাৎ আপনার পুরনো ফটো-ভিডিও আগের মতোই সেভড্ থাকবে। যদিও গুগল পিক্সেল ফোন ব্যবহারকারীদের ক্ষেত্রে এই নিয়ম প্রযোজ্য হবে না। তারা আগের মতোই ফ্রি স্টোরেজ পাবেন।

স্মার্টফোন ভিজে গেলে কী করবেন?
                                  

স্মার্টফোন ছাড়া আমরা এক মুহূর্তও চলতে পারি না। সব সময়ই আমাদের সঙ্গেই থাকে। কিন্তু বৃষ্টিতে বা যেকোনোভাবে এটি ভিজে যেতে পারে। ফোন পানিতে ভিজে গেলে প্রথমে পরিষ্কার করে মুছে ফেলুন ৷ যত বেশি তরল পদার্থ থাকবে ফোনটি তত তাড়াতাড়ি ফোনের বিভিন্ন পার্টস খারাপ হওয়ার সম্ভাবনা থাকবে ৷ বেশিক্ষণ থাকলে শর্ট সার্কিট হয়ে যেতে পারে ৷ এতে ফোনে থাকা সমস্ত ডেটা নষ্ট হয়ে যায় ৷ ফোন স্টার্ট করার আগে ভালো করে মুছে নিন ৷ ফোনের ভেতরের সব কিছু, অর্থাৎ ব্যাটারি, সিম কার্ড, মেমরি কার্ড খুলে ফেলুন শিগগিরই। ফোনের খোলা অংশগুলো একটি শুকনো কাপড়ে মুছে কাপড়টি মুড়ে রেখে দিন। দেখবেন ফোনের কোনো ক্ষতি হবে না। ফোনের ভিতরের অংশ পাতলা কাপড় দিয়ে ভালো করে মুছে ফেলুন ৷ সিম কার্ডও বের করে রাখুন ৷ এরপর ফোনের ভেতর ভালো করে মুছে ফেলুন ৷ তারপর সিম কার্ড ইনসার্ট করুন ৷ ফোনে স্ক্রিন গার্ড লাগানো থাকলে সেটাও খুলে রাখুন ৷ ভুল করেও ফোনে হেয়ার ড্রাইয়ারের প্রয়োগ করবেন না ৷ হেয়ার ড্রাইয়ারের গরম হাওয়ায় ভিতরের পার্টসগুলো গলে যেতে পারে ৷ এরপর কিছুক্ষণ ফোনটিকে রোদে রাখুন ৷ যদি কোথাও অল্প পানি থেকে যায় তাহলে রোদে রাখলে তা শুকিয়ে যাবে ৷

এসএমই ব্যবসায়ীদের জন্য ‘অনলাইন স্টোর’ নিয়ে এল এস-ম্যানেজার
                                  

ক্ষুদ্র ও মাঝারি ব্যবসায়ী এবং উদ্যোক্তাদের দৈনন্দিন ব্যবসা পরিচালনার অ্যাপ এস-ম্যানেজার বুধবার (৩ মার্চ) ঢাকায় তাদের অন্যতম ফিচার ‘অনলাইন স্টোর’-এর উদ্বোধন করেছে। প্রধান অতিথ হিসেবে উপস্থিত হয়ে ‘অনলাইন স্টোর’ -এর উদ্বোধন করেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। এছাড়া অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন এসএমই ফাউন্ডেশনের চেয়ারপারসন ড. মো. মাসুদুর রহমান, স্টার্ট আপ বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী টিনা এফ জাবিন, সেবা প্ল্যাটফর্ম লিমিটেডের সিওও ইলমুল হক সজীব, সেবা প্ল্যাটফর্ম লিমিটেডের ভাইস প্রেসিডেন্ট ও হেড অব এমএসএমই বিজনেস আব্দুর রহমান তন্ময় এবং এস ম্যানেজারের কর্মকর্তা ও ব্যবহারকারীবৃন্দ। ‘অনলাইন স্টোর’ ক্ষুদ্র এবং মাঝারি ব্যবসায়ীদের জন্য এমন একটি যুগোপযোগী ফিচার যার মাধ্যমে ব্রিক অ্যান্ড মর্টার ব্যবসাগুলোর জন্য অনলাইনে ব্যবসা করার দ্বার মাত্র এক মিনিটে উন্মুক্ত হয়ে যায়। এই ফিচারের মাধ্যমে মাত্র কয়েকটি ধাপে পাড়া-মহল্লা এলাকার ছোট মুদি দোকান থেকে শুরু করে যেকোনো ব্যবসাতে ই-কমার্স অনলাইন স্টোর তৈরি করা যায়। ব্যবসা ছোট হোক কিংবা বড় এস-ম্যানেজার অনলাইন স্টোর- এর মাধ্যমে এখন পৃথিবীর যেকোনো জায়গা থেকে যে কাউকে ব্যবসার যেকোনো পণ্য দেখানো যাবে। গ্রাহক কাস্টমার লিংকে ক্লিক করার মাধ্যমে অনলাইন স্টোর- এ গিয়ে অনলাইনে অর্ডার করতে পারবেন যেকোনো সময়, পেমেন্ট লিংকের মাধ্যমে অনলাইনে টাকা পরিশোধ করতে পারবেন আরও সহজে। আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এস-ম্যানেজারের এই সাত লাখের বেশি এমএসএমই ব্যবসায়ীদের কাছে পৌঁছানো এবং ধারাবাহিকভাবে এই ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের জীবনে প্রভাব রাখার জন্য প্রশংসা করেন। তিনি বলেন, ‘এখানে ডিজিটাল অন্তর্ভুক্তির মাধ্যমে অপারেশন দক্ষতা এবং প্রবৃদ্ধির আরও বিশাল সুযোগ এখনো রয়েছে। ১৪ মাস আগে যাত্রা শুরু করার সময় আমরা এস-ম্যানেজারের সঙ্গে ছিলাম এবং এমএসএমই ব্যবসায়গুলোর জন্য উপকারী হবে এমন যেকোনো উদ্যোগের সঙ্গে থাকবো আমরা।’ এসএমই ফাউন্ডেশনের চেয়ারপারসন ড. মো. মাসুদুর রহমান বলেছেন, ‘আমাদের নিশ্চিত করতে হবে কেবল শহুরে জনগোষ্ঠী নয়, সারা বাংলাদেশ ব্যাপী ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা ও ব্যবসায়ীগণ ডিজিটাল অন্তর্ভুক্তি প্রক্রিয়ার সঙ্গে যুক্ত রয়েছে। ডিজিটাল অন্তর্ভুক্তির এই প্রক্রিয়া ছড়িয়ে দিতে হবে প্রতিটি গ্রাম, ইউনিয়ন ও থানা পর্যায়ে। এসএমইগুলো যেসব সমস্যার মুখোমুখি হয় তা দূরীকরণের যেকোনো উদ্যোগের পাশে এসএমই ফাউন্ডেশন সব সময় থাকবে।’ স্টার্ট আপ বাংলাদেশের এমডি ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা টিনা এফ জাবিন বলেছেন, ‘আর্থিক অন্তর্ভুক্তি প্রক্রিয়াতে এমএসএমইদের অন্তর্ভুক্ত করার ক্ষেত্রে এস-ম্যানেজারের উদ্যোগ সত্যিই প্রশংসনীয়। আমরা এস-ম্যানেজার এবং সেবা প্ল্যাটফর্মকে সবসময় পর্যবেক্ষণ করেছি এবং তাদের এই যাত্রার চলার পথের অংশ হতে পেরে আমরা সত্যিই গর্বিত।’ অনুষ্ঠানে সেবা প্ল্যাটফর্ম লিমিটেডের সিইও আদনান ইমতিয়াজ হালিম এবং সেবা প্ল্যাটফর্ম লিমিটেডের সিওও ইলমুল হক সজিব এস-ম্যানেজারের আগামী দিনের পথ চলা ও লক্ষ্যের কথা জানান। অনুষ্ঠানের মূল বক্তব্য উপস্থাপনের পাশাপাশি এস-ম্যানেজারের ভাইস প্রেসিডেন্ট অ্যান্ড হেড অব বিজনেস আবদুর রহমান তন্ময় এস ম্যানেজারের থিম সং উন্মুক্ত করেন। প্রসঙ্গত, এস-ম্যানেজার সেবা প্ল্যাটফর্মের একটি উদ্যোগ যা ২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাসে শুরু হয় এবং এর ১৭তম ফিচার হিসেবে ‘অনলাইন স্টোর’-এর উদ্বোধন ঘোষণা করা হলো। এই ফিচার লঞ্চ প্রোগ্রামটি সেবা প্ল্যাটফর্ম লিমিটেডের ‘ডিজিটাল উদ্যোক্তা জয়যাত্রা’ ক্যাম্পেইনের একটি অংশ।

ফেসবুক প্রোফাইল সুরক্ষিত রাখবেন যেভাবে
                                  

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে মানুষের সম্পৃক্ততা বেড়েছে অনেকাংশে। নিজেদের মধ্যে যোগাযোগ রক্ষা, সময় কাটানো ছাড়াও ব্যবসার একটি বড় প্ল্যাটফর্ম হয়ে উঠেছে ফেসবুক। এ কারণে ফেসবুকে ছবি ছাড়াও অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য থাকে। তাই ফেসবুক প্রোফাইল সুরক্ষিত রাখা অনেক জরুরি। কারণ বর্তমান সময় অনেকেই ফেসবুকে প্রতারিত হচ্ছেন। আবার হ্যাকিংয়ের ঘটনাও ঘটছে। তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক ম্যাগাজিনগুলো জানিয়েছে, কয়েকটি কৌশল অবলম্বন করলেই সুরক্ষিত রাখা যায় ফেসবুক প্রোফাইল। ফেসবুক প্রোফাইল সুরক্ষিত রাখার জন্য ব্যবহারকারীদের প্রোফাইলে ‘টু ফ্যাক্টর অথেনটিকেশন’ করে রাখা দরকার। এর ফলে অচেনা কেউ কারো প্রোফাইলে ঢুকতে পারবে না। এছাড়াও প্রোফাইল লক করে রাখলেও এ জাতীয় সমস্যা থেকে অনেকটাই রেহাই পাওয়া যাবে। এই ফিচারের ফলে অচেনা ব্যক্তিরা প্রোফাইল দেখতে পারবে না। তবে প্রোফাইলে থাকা বন্ধুরা ফেসবুকের প্রোফাইল দেখতে পারবেন। পাশপাশি নিজের প্রোফাইল কাদের দেখাতে চান সেই বিষয়ে ধারণা রাখতে হবে। সে অনুযায়ী নিজের টাইম লাইন ঠিক করতে হবে। এর ফলে কোনো পোস্ট বা শেয়ার করা হলে তা সহজেই নির্দিষ্ট কিছু ব্যক্তি দেখতে পারবেন। অচেনা কেউ এই পোস্ট দেখতে পারবেন না। নিজের ফেসবুক টাইমলাইনে কী রাখতে চান সেই বিষয়েও ধারণা রাখতে হবে। এছাড়া পুরনো পোস্ট বা ছবি ডিলিট করে দিতে হবে। এর ফলে সহজেই প্রোফাইল নিয়ন্ত্রণ করতে সুবিধা হবে সকলের। তাই মনে করা হচ্ছে নিজেদের ফেসবুক প্রোফাইল বাঁচানোর জন্য মানুষের কাছে এই কয়েকটি পদ্ধতি বেশ গুরুত্বপূর্ণ। আর এর ফলে সহজেই হ্যাকারদের হাত থেকে রক্ষা করা যাবে ফেসবুক প্রোফাইল। পাশাপাশি ফেসবুকের প্রয়োজনীয় তথ্যের নিরাপত্তা নিয়েও উদ্বিগ্ন হওয়ার প্রয়োজন পরবে না।

শিশু-কিশোরদের নিয়ে টেলিস্কোপ মেকিং ওয়ার্কশপ
                                  

মহাকাশের অজানা রহস্য উন্মোচনে কাজ করার জন্য শিশু-কিশোরদের নিয়ে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে টেলিস্কোপ মেকিং ওয়ার্কশপ। বাংলাদেশ ইনোভেশন ফোরাম এবং স্পেস ইনোভেশন ক্যাম্প যৌথভাবে ওয়ার্কশপটি আয়োজন করবে। এই ওয়ার্কশপে বাচ্চারা বাসায় বসে টেলিস্কোপ বানাবে। নিজেদের বানানো টেলিস্কোপ দিয়েই তারা দেখবে দূর আকাশের চাঁদ-তারা।

টেলিস্কোপ বানানোর প্রতিটি ধাপ অভিজ্ঞ মেন্টররা ডিজিটাল প্রসপেক্টাস, ভিডিও এবং লাইভ সেশনের মাধ্যমে শিশুদের ধারণা দেবেন।

এরপর ২৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে টেলিস্কোপটি বানিয়ে একটি ভিডিও প্রেজেন্টেশন আয়োজকদের কাছে পাঠাতে হবে। পরবর্তিতে করোনা পরিস্থিতি ভালো হলে রাজধানীর ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি মাঠে রাতের আকাশ পর্যবেক্ষণের ব্যবস্থা করা হবে। সেখানে বাচ্চারা তাদের বানানো টেলিস্কোপ নিয়ে আসবে। বাংলাদেশ ইনোভেশন ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা আরিফুল হাসান অপু বলেন, ‘শিশু-কিশোরদের মাঝে মহাকাশ বিজ্ঞান নিয়ে নতুন নতুন আবিষ্কারে উৎসাহিত করার লক্ষ্যে আমাদের এই আয়োজন।’

আয়োজনে অংশগ্রহন করতে হলে অংশগ্রহনকারীকে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে http://telescope.spacecampbd.com/-এই ঠিকানায় আয়োজনটিতে ই-টিকেট পার্টনার ই-সফট এবং আউটরিচ পার্টনার হিসেবে রয়েছে টিং টং টিউব।

আনারস পাতার ড্রোন বানালেন মালয়েশিয়ার গবেষকরা
                                  

বর্তমান বিশ্বে প্রযুক্তির ব্যবহার অপরিহার্য। নানা ধরনের প্রযুক্তি পণ্য বাজারে এসেছে। এর মধ্যে ভিডিও ধারণে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ হয়ে উঠছে ড্রোন। বৈজ্ঞানিক গবেষণা থেকে শুরু করে যেকোনো এলাকার নজরদারিতে ড্রোন এখন অপরিহার্য। এছাড়া সিনেমার শুটিং, পণ্য সরবরাহ এমনকি মিটিং-মিছিলেও ড্রোনের ব্যবহার বেড়েছে।

এ পরিস্থিতিতে ড্রোনকে আরও বেশি কার্যকর ও পরিবেশের সাথে মানিয়ে নিতে বিজ্ঞানীরা কাজ করছেন। সেই কাজের ধারাবাহিকতায় এবার ড্রোনের চিত্তাকর্ষক এক রূপ দিয়েছেন মালয়েশিয়ার একদল গবেষক। তারা অভিনব পদ্ধতির সাহায্যে পরিত্যক্ত আনারসের পাতা রূপান্তরের মাধ্যমে এক অসাধারণ উপাদান তৈরি করেছেন, যা দিয়ে ড্রোনের কাঠামো তৈরি করা যায়।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এটা সুদূরপ্রসারী ভাবনা। এই ধরনের ড্রোন তৈরি হলে তার দামও যেমন কম হবে, সেই সঙ্গে বস্তুটিও শক্তিশালী এবং পরিবেশবান্ধব হবে। রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এই প্রকল্পে মোহাম্মদ তারিক হামিদ সুলতান নামে এক গবেষক নেতৃত্ব দিচ্ছেন। তিনি মালয়েশিয়ার পুত্রা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক। কয়েক বছর ধরেই এ নিয়ে গবেষণা করছেন তারিক হামিদ।

শুধু ড্রোনই নয়, আরও নানাবিধ অ্যারোস্পেস অ্যাপ্লিকেশনেই আনারসের পাতা রূপান্তর করে একটি ফাইবারে রূপ দিয়ে এমন কাজ করার উদ্যোগ নিয়েছেন পুত্রা বিশ্ববিদ্যালয়ের এই গবেষক। সম্প্রতি তারিক হামিদ ও তার দল সেই আনারসের পাতা থেকে ফাইবারটি তৈরি করে ফেলেছেন, যা ড্রোনের বিভিন্ন অংশে কাজে লাগবে।

তারিক হামিদ জানান, জৈব কোনো উপাদান থেকে তৈরি করা ড্রোন অনেকাংশেই সিন্থেটিক ফাইবার দ্বারা নির্মিত ড্রোনের চেয়ে শক্তিশালী। শক্তি, ওজন সবদিক থেকেই জৈব উপায়ে নির্মিত ফাইবারের ড্রোন সেরা। পাশাপাশি সেগুলোর ওজনও বেশ কম, খরচও কম পড়বে এবং খুব সহজেই উড়তে পারে গন্তব্যে।

ফেসবুকের সঙ্গে তথ্য শেয়ার করবে হোয়াটসঅ্যাপ
                                  

গ্রাহকদের কাছ থেকে নেয়া তথ্য মালিক সংস্থা ফেসবুক ইনকরপোরেশনের হাতে তুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে হোয়াটসঅ্যাপ। মঙ্গলবার (৫ জানুয়ারি) থেকে গ্রাহকরা এ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি পেতে শুরু করেছেন। ভারতে অ্যান্ড্রয়েড বা আইওএস উভয় অপারেটিং সিস্টেমে চলা মোবাইলে হোয়াটসঅ্যাপ এই ধরনের বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, হোয়াটসঅ্যাপ তার শর্ত ও গোপনীয়তার নীতি বদল করছে। এতে ৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে সম্মতি না দিলে এই অ্যাপের পরিষেবা বন্ধ হয়ে যাবে ওই গ্রাহকের জন্য। তারা এটাও বলেছে, চাইলে যে কেউ হেল্প সেন্টারে গিয়ে তার অ্যাকাউন্ট মুছেও ফেলতে পারেন।

গত কয়েক বছর ধরে আর্থিক লেনদেন পরিষেবার দিকে এগুতে চাইছে ফেসবুক। সেই লেনদেন সংক্রান্ত বার্তা বিনিময় হয় হোয়াটসঅ্যাপে। সেই সব বার্তা নিজের মতো করে ব্যবহার করতে বা রাখতে হবে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে। গোপনীয়তার শর্তাবলি সেই উপযোগী করতে হচ্ছে হোয়াটসঅ্যাপকে। ব্যবসায়িক সংস্থাগুলোর জন্য হোয়াটসঅ্যাপের এনক্রিপটেড মেসেজ ও ফেসবুকের খোলা খাতার মধ্যে একটা স্থায়ী যোগসূত্র গড়ে তোলার প্রচেষ্টা চালাচ্ছে মার্ক জাকারবার্গ।

তৃতীয় পক্ষের কাছে ফেসবুকের তথ্য বিক্রির কারণে গত কয়েক বছরে নানা সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়েছে জাকারবার্গকে। হোয়াটসঅ্যাপের জনপ্রিয়তা মূলত ভাল যোগাযোগ ব্যবস্থা ও এনক্রিপশনের কারণে। অথচ প্রতিদিন বা মাসে একবার হলেও কোনো ইমেইল অ্যাকাউন্টে যখন বার্তা ও মিডিয়া ফাইল ‘ব্যাক আপ’ করা হয়, তখন গোপন সেসব বার্তার এনক্রিপশন নামের রক্ষাকবচটি আর থাকে না।

হোয়াটসঅ্যাপ এবার সরাসরি জানিয়ে দিয়েছে, গ্রাহকদের নাম, ফোন নম্বর, ফোনের তথ্য, আইপি অ্যাড্রেস, গ্রাহকের বার্তা বিনিময়ের ধরন, লেনদেন তথ্যসহ অন্যান্য কিছু তথ্য তারা এখন থেকে ফেসবুকের অন্য সংস্থাগুলোর সঙ্গে শেয়ার করবে। এটি তারা কখনো সরাসরি করবে আবার কখনো অনুমতি নিয়ে করবে বলে জানানো হয়েছে।

ফেসবুক পেমেন্টস ইনকর্পোরেশনের প্রয়োজনের কথা আগেই বলা হয়েছে। এছাড়া ওনাভো, ওকুলাস, ক্রাউডট্যাঙ্গল নামে বিভিন্ন ধরনের পরিষেবা রয়েছে ফেসবুকের। ওকুলাস অনলাইন গেম সংক্রান্ত সংস্থা। ক্রাউডট্যাঙ্গল একটি অনুসন্ধানী সংস্থা। নিরন্তর খুঁজে চলেছে, কোথায় কী হচ্ছে, কোনটা খবর হতে পারে, কার কথার গুরুত্ব কতটা, আমেরিকার নির্বাচনে কী হচ্ছে, রাশিয়ার কী প্রভাব আফ্রিকায়- এমন হাজারো বিষয় ঘেঁটে কোনো প্রতিষ্ঠানকে আরও বেশি নিখুঁত লক্ষ্যে তীর ছুড়তে সাহায্য করে এরা।

এনবিসি নিউজ কোন খবরকে জাতীয় স্তরে দেবে নাকি সাধারণভাবে উপস্থাপন করবে সেক্ষেত্রে এই অ্যাপের সাহায্য নেয় তারা। করোনায় কারা পিছিয়ে গেল, কি পদক্ষেপ নিলে প্রভাব বেশি হবে এসব বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে সাহায্য করে ক্রাউডট্যাঙ্গল।

দেশে ৪০ লাখের বেশি যাত্রী উবার ব্যবহার করেছেন
                                  

আন্তর্জাতিক রাইড শেয়ারিং কোম্পানি উবার বাংলাদেশে ৪ বছর পূর্তি উপলক্ষে জানিয়েছে, দেশে এ পর্যন্ত ৪০ লাখের বেশি যাত্রী উবার ব্যবহার করেছেন। উবারের চালক হিসেবে ১ লাখ ৭৫ হাজার লোকের কর্মসংস্থান হয়েছে।

সোমবার (৭ ডিসেম্বর) এক বিবৃতিতে রাইড শেয়ারিং কোম্পানিটি জানিয়েছে, উবার এমন একটি প্ল্যাটফর্ম যা সুবিধাজনক, সাশ্রয়ী ও নিরাপদ যাত্রা নিশ্চিত করার পাশাপাশি চালকদের সুবিধাজনক উপায়ে উপার্জন করার সুযোগ করে দেয়। বাংলাদেশের লক্ষ্য ২০২৪ সালের মধ্যে স্বল্পোন্নত দেশের (এলডিসি) তালিকা থেকে বেরিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে উন্নয়নশীল দেশের তালিকাভুক্ত হওয়া। এই লক্ষ্য পূরণে সহায়তা করতে কয়েক লাখ মানুষের কর্মসংস্থান সুযোগ তৈরি করে দেয়ার বিষয়ে উবার কাজ করছে। উবারের বাংলাদেশ এবং উত্তর ও পশ্চিম ভারতের প্রধান শিব শৈলেন্দ্রান বিবৃতিতে বলেন, ‘বাংলাদেশের মানুষের চাহিদা অনুযায়ী বিভিন্ন প্রযুক্তিগত উদ্ভাবন ও নতুন নতুন সেবা আনার নিরবচ্ছিন্ন কার্যক্রমের মাধ্যমে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে এবং দেশের অর্থনীতির চাকা আবারও সচল করতে উবার দৃঢ় প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।’ 

বাংলাদেশে নতুন ফিচার চালু করল গুগল ম্যাপস
                                  

গুগল ম্যাপস বাংলাদেশে তাদের নতুন ফিচার চালু করেছে। গুগল ট্রানজিট নামে নতুন এই ফিচারটির ফলে নিয়মিত গণপরিবহনে যাতায়াতকারীরা খুব সহজেই গণপরিবহন সংক্রান্ত তথ্য পাবেন। আজ থেকে চালু হওয়া এ ফিচারটির মাধ্যমে গুগল ম্যাপস রুট, স্টপেজ ও ভ্রমণের আনুমানিক সময় দেখাবে; যার মাধ্যমে গণপরিবহন ব্যবহারকারীরা তাদের ভ্রমণের পরিকল্পনা ঠিক করে নিতে পারবেন। এই ফিচারটি প্রাথমিকভাবে রাজধানীতে চলাচলকারী বাস ও বাংলাদেশ রেলওয়ে পরিচালিত ট্রেনের জন্য প্রযোজ্য হবে।  

নিচের সহজ ধাপগুলো অনুসরণ করে ব্যবহারকারীরা গণপরিবহন সংক্রান্ত তথ্য জানতে পারবেন: 

* অ্যান্ড্রয়েড কিংবা আইওএস ডিভাইসে গুগল ম্যাপস ওপেন করতে হবে। 

* রুট এবং গন্তব্য সংক্রান্ত তথ্য জানতে ‘ট্রানজিট’ আইকন (যদি এটা ইতিমধ্যে নির্বাচন করা না হয়) ট্যাপ করতে হবে।

* রুটের স্টপেজ সংক্রান্ত জানতে রেকমেন্ডেড রুট ট্যাপ করতে হবে।

* বাসের সময়সূচি ও গন্তব্যের তালিকা জানতে যেকোনো বাস স্টপ ট্যাপ করতে হবে।

প্রতিদিন গুগল ম্যাপস ১ বিলিয়ন কিলোমিটারেরও বেশি ট্রানজিট রেজাল্ট সরবরাহ করে এবং এর বিশ্বজুড়ে ৩ মিলিয়নেরও বেশি গণপরিবহনের পাবলিক ট্রানজিটের সময়সীমার তথ্য রয়েছে। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের শতাধিকেরও বেশি শহরে সবসময় নতুন পার্টনার যুক্ত হওয়ার মাধ্যমে গুগল ট্রানজিট ফিচারটি তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করছে। 

বঙ্গবন্ধু ইনোভেশন গ্র্যান্টের বিভাগীয় ক্যাম্পেইন শুরু
                                  

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকীতে আইসিটি বিভাগের উদ্ভাবন ও উদ্যোক্তা উন্নয়ন একাডেমী প্রতিষ্ঠাকরণ প্রকল্প (আইডিয়া) আয়োজন করছে ‘বঙ্গবন্ধু ইনোভেশন গ্র্যান্ট’ সংক্ষেপে ‘বিগ’। সোমবার (৩০ নভেম্বর) বরিশাল জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে বিগ-এর প্রথম অ্যাক্টিভেশন প্রোগ্রাম অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বরিশাল জেলা প্রশাসক এস. এম. অজিয়র রহমান। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বলেন, ‘বাংলাদেশ একসময় আইসিটি সেক্টরে অনেক পিছিয়ে ছিল কিন্তু সেই বাংলাদেশ এখন সকলকে স্বপ্ন দেখাচ্ছে যে- সবচেয়ে বড় সেক্টর হতে পারে আইসিটি খাত, যেখানে নতুন নতুন কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি হতে পারে।’ তিনি আরো বলেন, ‘দেশের নতুন উদ্যোক্তারা এখন স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছেন যে ‘আমরাও পারি’। সরকার ব্যবসা-বাণিজ্য প্রসারের জন্য যে লজিস্টিক বা অবকাঠামো উন্নয়ন করা দরকার তা এর মধ্যে অনেকটাই প্রতিষ্ঠিত করেছে।’

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বরিশাল মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর মোহাম্মদ ইউনুস এবং পরিচালক প্রফেসর মো: মোয়াজ্জেম হোসেন, পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সিএসই বিভাগের ডিন প্রফেসর ড. এস. এম. তাওহিদুল ইসলাম। অনুষ্ঠানটিতে সভাপতিত্ব করেন বরিশালের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) প্রশান্ত কুমার দাস। 

প্রাথমিকভাবে ‘বঙ্গবন্ধু ইনোভেশন গ্র্যান্ট ২০২০’ এ তথ্যপ্রযুক্তিভিত্তিক আগ্রহী স্টার্টআপগণ www.big.gov.bd এই ওয়েবসাইটে নিবন্ধন করতে পারবেন। জাতীয় পর্যায়ে আগামী ২৫ ডিসেম্বর ২০২০ এবং আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ২৫ জানুয়ারি ২০২১ তারিখের মধ্যে যেকোনো তথ্যপ্রযুক্তি ভিত্তিক উদ্যোক্তা এই প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে পারবেন। ‘বিশ্ববিদ্যালয় ও স্টেকহোল্ডার অ্যাক্টিভেশন ক্যাম্পেইন’, ‘টিভি রিয়েলিটি শো’ এবং ‘আন্তর্জাতিক রোড শো’- এই ৩টি অংশ থেকেই ‘বিগ’ এর চূড়ান্ত রাউন্ড শুরু হবে। রিয়েলিটি শো থেকে নির্বাচিত ২৬টি এবং আন্তর্জাতিক রোড শো থেকে নির্বাচিত ১০টি স্টার্টআপ নিয়ে অনুষ্ঠিত হবে ‘বিগ’ এর ফাইনাল রাউন্ড। সবশেষে, সেরা ৩৫টি স্টার্টআপকে ১০ লাখ টাকা করে ‘গ্র্যান্ট’ এর অর্থ প্রদান করার পাশাপাশি ‘বঙ্গবন্ধু ইনোভেশন গ্র্যান্ট ২০২০ (বিগ)’ এর পুরস্কার হিসেবে সেরা একটি স্টার্টআপকে দেওয়া হবে বিশেষ সম্মাননা এবং গ্র্যান্ট হিসেবে ১ লাখ ইউএস ডলার।

বরিশাল বিভাগের এই অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে শুরু হল ‘বঙ্গবন্ধু ইনোভেশন গ্র্যান্ট ২০২০ (বিগ)’ এর অ্যাক্টিভেশন ক্যাম্পেইন। অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন আইডিয়া প্রকল্পের আইন বিষয়ক পরামর্শক আদনীন জেরিন এবং প্রকল্পের পরামর্শক ওমর ফারুক। এছাড়া জেলা প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, জেলা মাধ্যমিক ও প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা, বঙ্গবন্ধু ইনোভেশন গ্র্যান্ট অ্যাক্টিভেশন ক্যাম্পেইনের বিভিন্ন কর্মকর্তা, ইউনিয়ন পরিষদ উদ্যোক্তা ও বরিশালের বিভিন্ন তরুণ উদ্যোক্তাগণ অংশগ্রহণ করেন। 

করোনা টেস্ট করবে রোবট নার্স
                                  

মিশরের একজন তরুণ প্রকৌশলী রিমোট কন্ট্রোল নিয়ন্ত্রিত এমন একটি রোবট তৈরি করেছেন, যা শরীরের তাপমাত্রা মাপতে পারে, করোনা টেস্ট করতে পারে এবং মাস্ক না পরা মানুষজনকে ভর্ৎসনাও করতে পারে। 

মানুষের চেহারার মতো দেখতে এই রোবটটির নাম সিরা-ভি০৩। এটি রক্তচাপ মাপা, ইসিজি এবং এক্সরে’র মতো টেস্টও করতে সক্ষম এবং টেস্টের ফল নিজের বুকে থাকা স্ক্রিনে প্রদর্শন করে। এছাড়া রোগীর মুখের সোয়াব সংগ্রহ করে করোনা টেস্ট করতেও পারদর্শী এই রোবট।
 

রাজধানী কায়রো থেকে প্রায় ৬০ মাইলে দূরে টান্টার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ‘সিরা-ভি০৩’ রোবটিক নার্স হিসেবে পরীক্ষামূলকভাবে কাজ শুরু করেছে।

করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে রোবটের ব্যবহার বেড়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের হার্ভার্ড মেডিকেল স্কুলের ব্রিগহাম অ্যান্ড উইম্যান হাসপাতাল করোনার নমুনা সংগ্রহে বোস্টন ডায়নামিক্সের তৈরি কুকুর আকৃতির রোবট ‘স্পট’ ব্যবহার করছে। এছাড়া সৌদি আরব, চীন, তাইওয়ানসহ আরো কিছু দেশের হাসপাতালেও করোনা শনাক্তে রোবটের ব্যবহার বেড়েছে।

 
করোনায় আক্রান্ত কিনা জানিয়ে দেবে গুগল!
                                  

অনলাইন ডেস্কঃ

মার্কিন সরকারের নির্দেশে করোনা পরীক্ষা করার জন্য নতুন ওয়েবসাইট বানাচ্ছে সার্চ ইঞ্জিন সাইট গুগল। শনিবার কোম্পানিটির পক্ষ থেকে এমনটি জানানো হয়েছে।রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, ১৭০০ ইঞ্জিনিয়ার করোনা পরীক্ষার জন্য নতুন ওয়েবসাইট তৈরির কাজ করছে। এই ওয়েবসাইটটি করোনা ভাইরাসের লক্ষণ, ঝুঁকি এবং পরীক্ষা বিষয়ক বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর জানিয়ে দেবে। একটি টুইট বার্তায় গুগলের পক্ষ থেকে বলা হয়, আমরা মার্কিন সরকারের সঙ্গে সংঘবদ্ধ হয়ে কোভিড-১৯ ভাইরাস প্রতিরোধ এবং আমাদের কমিউনিটির স্বাস্থ্য সুরক্ষায় অব্যাহতভাবে কাজ করে যাবো।

এদিকে গত শুক্রবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প গুগলের এমন কাজের প্রশংসা করেছেন এবং কোম্পানিটিকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। এ নিয়ে হোয়াইট হাউসের সমন্বয়ক ডেবোরাহ ব্রিক্স বলেন, তারা যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে ওয়েবসাইটটির ব্যবহার নিশ্চিত করতে চান। এখন পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে কমপক্ষে ৫১ জনের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে করোনা ভাইরাস।

ক্ষমা চাইলো ফেসবুক
                                  
কারিগরি ত্রুটির কারণে একাধিক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভ্রাট নিয়ে ক্ষমা চাইলো ফেসবুক। বুধবার ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম ও হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারে সমস্যা হওয়ায় গ্রাহকদের কাছে এক বার্তায় ক্ষমা চায় ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। খবর গালফ টুডের। জানা গেছে, বুধবার দুপুরের পর থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমটিতে সমস্যার সৃষ্টি হয়। ফেসবুকের পাশাপাশি সমস্যায় পড়তে হয় ছবি শেয়ারিংয়ের জনপ্রিয় অ্যাপ ইনস্টাগ্রাম এবং হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীদেরও। ফেসবুকের এই বিভ্রান্তি সবচেয়ে বেশি প্রভাব ফেলেছে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও ইউরোপের দেশগুলোতে। তবে বাংলাদেশে বুধবার ফেসবুক ব্যবহার করা গেলও তা ছিল খুবই ধীর গতির। রাত পৌনে নয়টা থেকে বাংলাদেশে সমস্যা বেশি দেখা দেয়। প্রায় ৩৯ শতাংশ ফেসবুক ব্যবহারকারী লগইন করার সময় সমস্যার মুখে পড়েন। ফেসবুক বলছে, ফেসবুকে ছবি ও ভিডিও আপলোড, এবং এগুলো পাঠাতে সমস্যা হচ্ছে। আমাদের নজরে এসেছে বিষয়টি। এজন্য আমরা ক্ষমা চাচ্ছি। আমরা সমস্যা সমাধানে কাজ করে যাচ্ছি। দ্রুতই স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসবে ফেসবুক।
নেটদুনিয়ার নেতিবাচক দিক থেকে দূরে রাখতে গুগলের উদ্যোগ
                                  
ইন্টারনেটের দৌলতে শিশুরা অনেক সময়ই না চিনতে পেরে অজান্তেই ঢুকে পড়ছে অচেনা জগতে। পথটা যদি ভুল হয় তবে তার প্রভাব পড়ে তাদের ওপর। মানসিকভাবে অসুস্থ হয়ে পড়া, আবার কখনও অজান্তেই জড়িয়ে পড়া এমন কিছু ঘটনায় যা বিড়ম্বনায় ফেলে তাদের অভিভাবকদের। শিশুদের নেটদুনিয়ার অন্ধকার জগত থেকে দূরে রাখতে এগিয়ে এসেছে গুগল। সংস্থাটির পরামর্শ, শিশুদের ইন্টারনেট ব্যবহারে ‘‌ক্রোম’র সহায়তা নিতে। যাতে আপত্তিজনক ওয়েব‌সাইট থেকে শিশুদের দূরে সরিয়ে রাখা যায়। শিশুরা কতটা সময় ইন্টারনেট ব্যবহার করবে তা ঠিক করতে হবে অভিভাবকদেরই। প্রয়োজনে অভিভাবকরা গুগলের ‘‌ফ্যামিলি লিঙ্ক’র সাহায্য নিতে পারেন। এর মাধ্যমে ইন্টারনেট ব্যবহারের প্রতিদিনের সময়সীমা নির্দিষ্ট করা এবং ব্যবহারের জন্য শিশুরা যে যন্ত্রটি ব্যবহার করছে তা তাদের জানতে না দিয়েই ‘‌লক’‌ করা যায়। প্রাপ্তবয়স্কদের বিষয়গুলি থেকে শিশুদের দূরে সরিয়ে রাখার জন্যও এটি কাজে লাগে। আবার কী চ্যানেল দেখবে বা কী দেখবে না সেটা ঠিক করার জন্য প্রয়োজনে ‘‌ইউটিউব কিডস’‌র সাহায্যও নেওয়া যেতে পারে। গুগলের আরেকটি উল্লেখযোগ্য প্রোগ্রাম ‘‌বি ইন্টারনেট অসাম’‌। যার সাহায্যে ইন্টারনেট ব্যবহারের সময় কী কী বিষয় মাথায় রাখা উচিত বা আগামী দিনে কীভাবে এ বিষয়ে একজন দায়িত্বপূর্ণ নাগরিক হয়ে ওঠা যায় তা শিশুরা জানতে পারবে।

   Page 1 of 14
     তথ্যপ্রযুক্তি
জেসিআই ঢাকা হেরিটেজের উদ্যোগে রোবটিক্স নিয়ে অনলাইন আলোচনা
.............................................................................................
বাংলাদেশে ই-স্পোর্টস: টুর্নামেন্ট ও ইউটিউব থেকে আয় হচ্ছে
.............................................................................................
গুগল ফটোসের বিনামূল্যের সেবা বন্ধ হচ্ছে
.............................................................................................
স্মার্টফোন ভিজে গেলে কী করবেন?
.............................................................................................
এসএমই ব্যবসায়ীদের জন্য ‘অনলাইন স্টোর’ নিয়ে এল এস-ম্যানেজার
.............................................................................................
ফেসবুক প্রোফাইল সুরক্ষিত রাখবেন যেভাবে
.............................................................................................
শিশু-কিশোরদের নিয়ে টেলিস্কোপ মেকিং ওয়ার্কশপ
.............................................................................................
আনারস পাতার ড্রোন বানালেন মালয়েশিয়ার গবেষকরা
.............................................................................................
ফেসবুকের সঙ্গে তথ্য শেয়ার করবে হোয়াটসঅ্যাপ
.............................................................................................
দেশে ৪০ লাখের বেশি যাত্রী উবার ব্যবহার করেছেন
.............................................................................................
বাংলাদেশে নতুন ফিচার চালু করল গুগল ম্যাপস
.............................................................................................
বঙ্গবন্ধু ইনোভেশন গ্র্যান্টের বিভাগীয় ক্যাম্পেইন শুরু
.............................................................................................
করোনা টেস্ট করবে রোবট নার্স
.............................................................................................
করোনায় আক্রান্ত কিনা জানিয়ে দেবে গুগল!
.............................................................................................
ক্ষমা চাইলো ফেসবুক
.............................................................................................
নেটদুনিয়ার নেতিবাচক দিক থেকে দূরে রাখতে গুগলের উদ্যোগ
.............................................................................................
ইন্টারনেটে ভুয়া খবরের রাজত্ব, শিকার ৮৬ শতাংশ মানুষ
.............................................................................................
২০৩৩ সালের মধ্যে মঙ্গলে যাচ্ছে নাসা?
.............................................................................................
নতুন বছরে যেসব ফোনে বন্ধ হচ্ছে হোয়াটস অ্যাপ
.............................................................................................
স্মার্টফোনে ইন্টারনেটের খরচ কমানোর উপায়
.............................................................................................
মহাকাশ কেন্দ্রে ব্যাকটেরিয়া, নাসার উদ্বেগ!
.............................................................................................
ফিল্মফেয়ারে সেরা রণবীর-আলিয়া
.............................................................................................
পরমাণু বোমার চেয়ে ১০ গুণ বেশি শক্তিশালী উল্কার ছবি প্রকাশ নাসার
.............................................................................................
নতুন অপারেটিং সিস্টেম আনছে হুয়াওয়ে
.............................................................................................
বিশ্বে ইন্টারনেট স্তা ভারতেসবচেয়ে স
.............................................................................................
সালমানের বিরুদ্ধে মন্ত্রীর যুদ্ধ ঘোষণা
.............................................................................................
ভুল করে পাঠানো মেসেজ ফেরত আনবেন যেভাবে
.............................................................................................
যেভাবে সুরক্ষিত রাখবেন মোবাইলের ব্যক্তিগত তথ্য
.............................................................................................
রোবটের মাধ্যমে পণ্য ডেলিভারি শুরু করলো আমাজন
.............................................................................................
কেমন হবে মঙ্গল গ্রহের বাড়ি?
.............................................................................................
মধ্যবিত্তের নাগালে আনতে দাম কমানো হচ্ছে আইফোনের
.............................................................................................
হার্লি ডেভিডসনের প্রথম ইলেকট্রিক বাইক লাইভওয়্যার
.............................................................................................
চাঁদের উল্টো পিঠে লাল মাটির সন্ধান
.............................................................................................
১৫০ কোটি আলোকবর্ষ দূর থেকে রেডিও সিগন্যালের সন্ধান
.............................................................................................
ফেসবুকে যে মেসেজ ফরোয়ার্ড করা বিপজ্জনক
.............................................................................................
মঙ্গলে ৫০.১ মাইল জুড়ে বরফ বিস্তৃত, জানালো ইএসএ
.............................................................................................
চীনের যোগাযোগ উপগ্রহের সফল উৎক্ষেপণ
.............................................................................................
যুক্তরাষ্ট্রের আকাশে রহস্যময় আলো, জল্পনা তুঙ্গে!
.............................................................................................
গুগল-ফেসবুকের উপর কর বসাচ্ছে ফ্রান্স
.............................................................................................
৬৮ লাখ গ্রাহকের ব্যক্তিগত ছবি ফাঁস, ফেসবুকের ঘোষণায় তোলপাড়
.............................................................................................
মার্কিন সেনেটে গুগলের বিরুদ্ধে শুনানি, সাফাইয়ে কী বললেন পিচাই?
.............................................................................................
ভারতের বিমানবন্দরে নিরাপত্তার দায়িত্ব সামলাবে রোবট কুকুর
.............................................................................................
অ্যাপলকে টপকিয়ে মাইক্রোসফট শীর্ষে
.............................................................................................
নিলামে চাঁদের কণা
.............................................................................................
মঙ্গলে বাস করতে চান স্পেসএক্স প্রধান!
.............................................................................................
বাজারে এলো বিশ্বের প্রথম স্যাটেলাইট অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন
.............................................................................................
স্মার্টফোন আসক্তিতে মস্তিষ্কের হতাশা ও উদ্বেগের সৃষ্টি!
.............................................................................................
এবার শুক্রে মহাকাশযান পাঠানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে ভারত!
.............................................................................................
নিজের ছবি দিয়ে বানিয়ে ফেলুন হোয়াটসঅ্যাপ স্টিকার
.............................................................................................
মহাকাশেই জন্ম নেবে শিশু!
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো : মাহবুবুর রহমান ।
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মো: হাবিবুর রহমান । সম্পাদক কর্তৃক বিএস প্রিন্টিং প্রেস ৫২/২ টয়েনবি সার্কুলার রোড, সুত্রাপুর ঢাকা খেকে মুদ্রিত
ও ৬০/ই/১ পুরানা পল্টন (৭ম তলা) থেকে প্রকাশিত বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৫১,৫১/ এ রিসোর্সফুল পল্টন সিটি (৪র্থ তলা), পুরানা পল্টন, ঢাকা -১০০০।
ফোনঃ-০২-৯৫৫০৮৭২ , ০১৭১১১৩৬২২৬

Web: www.bhorersomoy.com E-mail : dbsomoy2010@gmail.com
   All Right Reserved By www.bhorersomoy.com Developed By: Dynamic Solution IT & Dynamic Scale BD