ঢাকা,শনিবার,৯ কার্তিক ১৪২৭,২৪,অক্টোবর,২০২০
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : * বাংলাদেশকে দারিদ্র মুক্ত করতে হবে : প্রধানমন্ত্রী   * বাংলাদেশকে একশ অত্যাধুনিক ভেন্টিলেটর দিবে আমেরিকা   * বীজ ধানের কেজিতে ১০ টাকা ভর্তুকি দেয়া হবে: কৃষিমন্ত্রী   * মুক্তি পাচ্ছেন বেগম খালেদা জিয়া   * প্রধানমন্ত্রীর দশ নির্দেশনা   * সব ধরনের যাত্রীবাহী নৌযান চলাচল বন্ধ   * টিসিবি এবং ভোক্তা অধিদফতরের সকলের ছুটি বাতিল   * প্রয়োজনে দেশে জরুরি অবস্থা জারির পরামর্শ   * করোনায় বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা ১১ হাজার ছাড়াল!   * ঢাকা স্যানিটেশন ব্যবস্থার উন্নয়নে বিশ্বব্যাংকের অনুমোদন!  

   অপরাধ জগত -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
স্ত্রীর কাটা মাথা হাতে নিয়ে থানায় যাওয়ার পথে আটক ঘাতক স্বামী

অনলাইন ডেস্কঃ

স্ত্রীকে হত্যার পর কাটা মাথা হাতে নিয়ে থানায় যাওয়ার সময় ভারতের উত্তর প্রদেশের কাদিরপুর গ্রাম থেকে আখিলেশ রাওয়াত নামের এক ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ। শনিবার সকালে ৩০ বছর বয়সী ওই ব্যক্তিকে পুলিশ আটক করে। পুলিশের বরাত দিয়ে এই খবর নিশ্চিত করেছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস।

 

এদিকে এই ঘটনায় ইতিমধ্যে থানায় যৌতুক আইনে মামলা করেছে আখিলেশের ভুক্তভোগী স্ত্রী রজনীর বাবা।

হিন্দুস্তান টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়, আখিলেশ রাওয়াত দুই বছর আগে রজনীকে বিয়ে করেন। গত বছর রজনী একটি কন্যা সন্তানের জন্ম দেন। কিন্তু জন্মের পরই সন্তানটি মারা যায়। আর এর জন্য রজনীকে দুষতে থাকেন আখিলেশের পরিবার। এরপর থেকেই বাবার বাড়িতে চলে যান রজনী।

এই বিষয়ে পুলিশ কর্মকর্তা আরভিন্দ চতুর্ভেদি জানান, মেয়ে মারা যাওয়ার পর রজনী বাবার বাড়িতেই ছিলেন। চারদিন আগে আখিলেশ তাকে বাড়িতে আনেন।

পুলিশ জানায়, শনিবার সকালে রজনী এবং আখিলেশের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে সেটি সংঘর্ষে রুপ নেয়। পরে আখিলেশ ক্ষুব্ধ হয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে রজনীর মাথা কেটে ফেলেন। পরে জাহগিরাবাদ থানার উদ্দেশ্যে সেই কাটা মাথা নিয়ে এক কিলোমিটার হাটেন আখিলেশ। এই বিষয়ে পুলিশ কর্মকর্তা চতুর্ভেদি জানান, একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। কেন এবং কিভাবে হত্যাকাণ্ড ঘটানো হলো সেটি আমরা খতিয়ে দেখছি।

স্ত্রীর কাটা মাথা হাতে নিয়ে থানায় যাওয়ার পথে আটক ঘাতক স্বামী
                                  

অনলাইন ডেস্কঃ

স্ত্রীকে হত্যার পর কাটা মাথা হাতে নিয়ে থানায় যাওয়ার সময় ভারতের উত্তর প্রদেশের কাদিরপুর গ্রাম থেকে আখিলেশ রাওয়াত নামের এক ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ। শনিবার সকালে ৩০ বছর বয়সী ওই ব্যক্তিকে পুলিশ আটক করে। পুলিশের বরাত দিয়ে এই খবর নিশ্চিত করেছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস।

 

এদিকে এই ঘটনায় ইতিমধ্যে থানায় যৌতুক আইনে মামলা করেছে আখিলেশের ভুক্তভোগী স্ত্রী রজনীর বাবা।

হিন্দুস্তান টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়, আখিলেশ রাওয়াত দুই বছর আগে রজনীকে বিয়ে করেন। গত বছর রজনী একটি কন্যা সন্তানের জন্ম দেন। কিন্তু জন্মের পরই সন্তানটি মারা যায়। আর এর জন্য রজনীকে দুষতে থাকেন আখিলেশের পরিবার। এরপর থেকেই বাবার বাড়িতে চলে যান রজনী।

এই বিষয়ে পুলিশ কর্মকর্তা আরভিন্দ চতুর্ভেদি জানান, মেয়ে মারা যাওয়ার পর রজনী বাবার বাড়িতেই ছিলেন। চারদিন আগে আখিলেশ তাকে বাড়িতে আনেন।

পুলিশ জানায়, শনিবার সকালে রজনী এবং আখিলেশের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে সেটি সংঘর্ষে রুপ নেয়। পরে আখিলেশ ক্ষুব্ধ হয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে রজনীর মাথা কেটে ফেলেন। পরে জাহগিরাবাদ থানার উদ্দেশ্যে সেই কাটা মাথা নিয়ে এক কিলোমিটার হাটেন আখিলেশ। এই বিষয়ে পুলিশ কর্মকর্তা চতুর্ভেদি জানান, একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। কেন এবং কিভাবে হত্যাকাণ্ড ঘটানো হলো সেটি আমরা খতিয়ে দেখছি।

সোনাইমুড়ীতে কমিউনিটি পুলিশিং ডে পালিত
                                  

মোঃ রবিউল হাসান, সোনাইমুড়ী (নোয়াখালী) প্রতিনিধি :

জঙ্গী, মাদক প্রতিকারে, জনতা, পুলিশ এক কাতারে, পুলিশই জনতা, জনতাই পুলিশ এসব শ্লোগানকে সামনে রেখে দেশব্যাপী কর্মসূচীর অংশ হিসেবে সোনাইমুড়ী উপজেলা ও পৌরসভা কমিউনিটি পুলিশ এর উদ্যোগে কমিউনিটি পুলিশিং ডে-২০১৭ উদযাপন উপলক্ষে শনিবার সকালে র‌্যালী ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। সোনাইমুড়ী স্কাউট এন্ড গার্লস গাইড দল ও বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি সোনাইমুড়ী শাখার সহযোগীতায় র‌্যালিটি বাইপাস থেকে শুরু করে পৌর শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে থানা প্রাঙ্গণে আলোচনা সভায় মিলিত হয়। এতে সোনাইমুড়ী মডেল উচ্চ বিদ্যালয়সহ উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শত শত শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে।
সোনাইমুড়ী থানার আয়োজনে আলোচনা সভায় অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ইসমাইল মিঞার সভাপতিত্বে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা কমিউনিটি পুলিশের সভাপতি আফম বাবুল বাবু, সাধারণ স¤পাদক মাহফুজুর রহমান ভিপি বাহার, পৌরসভা সাধারণ স¤পাদক আবু সায়েম, জয়াগ ইউপি চেয়ারম্যান ও সভাপতি শওকত আকবর পলাশ। বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন সোনাইমুড়ী শাখার সহ সভাপতি সাংবাদিক বেলাল হোছাইন ভূঁইয়া, যুগ্ন সাধারণ স¤পাদক মাস্টার আজাদ উদ্দিন বিপ্লব, কমিউনিটি পুলিশের আমিশাপাড়া ইউপি সভাপতি পারভেজ আলম, নদনা ইউপি সভাপতি মোঃ শহীদ, সাধারণ স¤পাদক মোঃ সোহাগ, নাটেশ্বর ইউপি সভাপতি আবুল ফয়েজ সেলিম, চাষিরহাট ইউপি সাধারণ স¤পাদক ফখরুল ইসলাম সোহাগ।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, পৌর সদস্য দিলদার হোসেন নোবেল, কমিউনিটি পুলিশের দেওটি ইউপি সভাপতি দেলোয়ার হোসেন, সাধারণ স¤পাদক জামাল উদ্দিন, বজরা ইউপি সভাপতি নুর আলম মাসুদ, সাধারণ স¤পাদক সালাহ উদ্দিন আহাম্মদ।

 

 

কলারোয়ায় জঙ্গী ও মাদকের কোন স্থান নেই
                                  

ফিরোজ জোয়ার্দ্দার,কলারোয়া প্রতিনিধি :

সাতক্ষীরার কলারোয়ায় ‘জঙ্গী-মাদক প্রতিকারে, জনতা পুলিশ এক কাতারে। পুলিশ জনগণের বন্ধু, অপরাধীদের দুশমন। সমাজে শান্তি প্রতিষ্ঠা পুলিশের কাজ। আর পুলিশের পাশাপাশি সমাজে শান্তি প্রতিষ্ঠায় কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের সদস্যরা কাজ করে চলছে। কমিউনিটি পুলিশ মাদক, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, নির্মূলে পুলিশের পাশাপাশি কাজ করে যাবে। ১৯৯২ সালে প্রথমে একটি জেলায় শুরু পুলিশিং ফোরামের কাজ। পরবর্তীতে ২০০০ সাল থেকে সারাদেশ ব্যাপী চালু হয় তাদের কার্যক্রম। এই কমিটি পুলিশের সাথে সহযোগী হিসেবে কাজ করে যাচ্ছে। যে সংগঠনটি সম্পূর্ন অরাজনৈতিক ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। যার মাধ্যমে বাংলাদেশ উন্নত দেশে রুপান্তিত করতে সকলকে এক কাজ করতে হবে। তাই আসুন সমাজ থেকে সন্ত্রাস, জঙ্গীবাদ, মাদক, বাল্যবিবাহ, অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ায়। এসবের কোন স্থান নেই। কমিউনিটি পুলিশিং ডে ২০১৭ উদযাপন উপলক্ষে র‌্যালী ও আলোচনা সভায় থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বিপ্লব কুমার নাথ এসব কথা বলেন। কলারোয়া থানা পুলিশের আয়োজনে শনিবার সকাল ১০টায় থানা চত্বর থেকে বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের হয়ে পৌর বাজরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বিপ্লব কুমার নাথের সভাপতিত্বে থানা চত্বরে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফিরোজ আহম্মেদ স্বপন। এসময় তিনি বলেন, ষড়যন্ত্র ছাড়া বিএনপির কোনো কর্মসূচী নেই। ষড়যন্ত্রের রাজনীতি করতে করতে বিএনপি নিজেই এখন ষড়যন্ত্রের চোরাবালীতে আটকে গেছে। দিক নির্দেশনাহীন অবস্থায় দলটি ক্রমশ একটি ফ্যাসিস্টি জঙ্গী পরগাছা সংগঠনে পরিণত হয়েছে। বিএনপির জন্ম ক্যান্টনমেন্টের ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে। দলটি কখনোই জনগণের রায় নিয়ে ক্ষমতায় আসেনি, এসেছে ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে। ষড়যন্ত্রের মাধ্যমের দেশের উন্নয়নের গতির ধারা বিএনপি ধ্বংস করছে, এখনো করতে চায়। উপজেলা চেয়ারম্যান স্বপন আরও বলেন. ২০১৩ সালে বিএনপি-জামায়াত দেশে গণতন্ত্রের নামে চলন্ত বাসে আগুন দিয়ে মানুষ পুড়িয়ে মেরেছে। সেদিন ছিল আমাদের পুলিশ আজও আছে পুলিশ। আর এই পুলিশ দেশের মানুষের সম্পূর্ন নিরাপত্তা দিয়ে গেছে। যার রাতের আঁধারে রাস্তায় সরকারি গাছ কেটে নাশকতা সৃষ্টি ও মানুষকে কুপিয়ে মেরেছে তাদেরকে পুলিশ আটক করে বিচারের মুখোমুখী দাঁড় করেছেন। তাই সকলকে বলবো দেশে জঙ্গীবাদ, সন্ত্রাস ও মাদককে রুখতে পুলিশকে সঠিক তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করুন। তাহলে দেখবেন সমাজ থেকে অপরাধ কমে যাবে। থানার (ওসি তদন্ত) জিয়াউর রহমানের পরিচালনায় আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি’র বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের ধর্ম-বিষয়ক সম্পাদক ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ্জ্ব আরাফাত হোসেন, জেলা পরিষদের সদস্য আলহাজ্জ্ব শেখ আমজাদ হোসেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম লাল্টু, অধ্যাপক্ষ ইউনুছ আলী খান প্রমুখ। এছাড়া অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ইউপি চেয়ারম্যানগন শামসুদ্দিন আল মাসুদ বাবু, আবুল কালাম আজাদ, শেখ ইমরান হোসেন, মাস্টার নূরুল ইসলাম, আফজাল হোসেন হাবিল, এসএম মনিরুল ইসলাম, মনিরুল ইসলাম মনি, আসলাম খান, মাহবুবুর রহমান মফে, পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলামসহ বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে আগত কমিউনিটিং পুলিশ ও থানা পুলিশের সদস্যবৃন্দ। এদিকে সন্ধ্যায় থানা পুলিশের আয়োজনে মনোমুগ্ধ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

নড়াইলের নড়াগাতিতে কমিউনিটি পুলিশিং দিবস পালিত
                                  

কালিয়া (নড়াইল) প্রতিনিধি :
পুলিশই জনতা, জনতাই পুলিশ , এই শ্লোগানকে সামনে রেখে নড়াইলের নড়াগাতিতে কমিউনিটি পুলিশিং দিবস পালিত হয়েছে।
শনিবার (২৮ অক্টোবর) সকাল ১১টায় নড়াগাতি থানা থেকে একটি র‌্যালি বের হয়ে নড়াগাতি ও জয়নগর বাজারের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে জয়নগর আওয়ামিলীগ অফিসের সামনে এসে শেষ হয়। পরে সেখানে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
নড়াগাতি থানার ওসি মাহাবুবুর রহমানের সভাপতিত্বে এতে বক্তব্য রাখেন- কালিয়া উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মুন্নু শেখ, নড়াগাতি থানা ছাত্রলীগের সভাপতি মাহাবুব আলম, পহরডাঙ্গা ইউপি চেয়ারম্যান মোকাররম বাঔসোনা ইউপি চেয়ারম্যান শাহ মোঃ ফুরকান প্রমুখ। এসময় রাজনীতিবিদ ও জেলার পুলিশ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
সভায় মাদকবিরোধী, বাল্যবিয়ে, জঙ্গি নির্মূল, এ সব বিষয়ে আলোচনা হয়। এসময় একজন মুক্তিযোদ্ধা এবং পুলিশ অফিসারকে সম্মাননা ক্রেষ্ট প্রদান করা হয়।

ত্রিশালে কমিউনিটি পুলিশিং ডে পালিত
                                  

আনোয়া হোসেন,ত্রিশাল প্রতিনিধি :

ময়মনসিংহের ত্রিশালে কমিউনিটি পুলিশিং ডে ২০১৭ উপলক্ষ্যে বর্ণাঢ্য র‌্যালী, আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্টান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার ২৮ অক্টোবর সকালে ত্রিশাল থানার আয়োজনে “পুলিশই জনতা জনতাই পুলিশ” এই স্লোগান কে সামনে রেখে কমিউনিটি পুলিশিং ডে উপলক্ষ্যে র‌্যালী অনুষ্ঠিত হয়। র‌্যালীটি ত্রিশাল থানা প্রাঙ্গন থেকে বের হয়ে ত্রিশাল পৌর শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে পূণরায় ত্রিশাল থানা প্রাঙ্গনে এসে র‌্যালী শেষ হয়। র‌্যালী শেষে ত্রিশাল থানার অফিসার ইনচার্জ জাকিউর রহমানের সভাপতিত্বে কমিউনিটি পুলিশিং ডে এর আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ত্রিশাল উপজেলা নির্বাহী অফিসার আুজাফর রিপন। অলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব জয়নাল আবেদীন, ভাইস চেয়ারম্যান আশরাফুল ইসলাম মন্ডল, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান লুৎফুন্নেসা বিউটি, ত্রিশাল উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি আনোয়ার হোসেন আকন্দ, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার (ভারপ্রাপ্ত) আব্দুল মান্নান, উপজেলা কমিউনিটি পুলিশের সভাপতি আব্দুল মোতালেব, কানিহারী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আশরাফ আলী উজ্জল, আমিরা বাড়ী ইউনিয়নের কমিউনিটি পুলিশের সভাপতি মোঃ হাবিবুর রহমান। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, দলীয় নেতা কর্মী ও সাংবাদিক বৃন্দ। আলোচনা সভা শেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন কমিউনিটি পুলিশ এর সাধারন সম্পাদক ও ত্রিশাল থানা আওয়ামীলীগের সদস্য হারুন অর রশিদ।

পাতালসড়কের একি হাল!
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক

১৫ মে ২০১৭, ০৩:২৮
প্রিন্ট সংস্করণ
 
 

দেয়ালে পানের পিকের দাগ। সিঁড়িজুড়ে ছড়িয়ে–ছিটিয়ে আছে ময়লা–আবর্জনা। কারওয়ান বাজারের পাতালসড়কের এই ছবি গত বুধবার দুপুরে তোলা l প্রথম আলোদেয়ালে পানের পিকের দাগ। সিঁড়িজুড়ে ছড়িয়ে–ছিটিয়ে আছে ময়লা–আবর্জনা। কারওয়ান বাজারের পাতালসড়কের এই ছবি গত বুধবার দুপুরে তোলা l প্রথম আলোসিঁড়িজুড়ে আবর্জনা। ভেতরে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে আছে পলিথিন, চটের পচা বস্তাসহ নানা ধরনের বর্জ্য। উৎকট দুর্গন্ধ। সিঁড়ির পাশে শুয়ে আছে ভবঘুরে।

গত বুধবার দুপুরে কারওয়ান বাজারের পাতালসড়কে (আন্ডারপাস) গিয়ে দেখা যায় এই চিত্র।

বুধবার পাতালসড়কের পূর্ণিমা প্রান্তের সিঁড়ি দিয়ে নামতেই দেখা যায় কাঁথা গায়ে শুয়ে আছেন মধ্যবয়সী এক ব্যক্তি। ‘পথচারীদের হাঁটার পথে আপনি শুয়ে আছেন?—এ কথা বলার পর ছেঁড়া কাঁথাটি আরও ভালো করে গায়ে জড়িয়ে নাম বলতে অনিচ্ছুক ওই ব্যক্তি বলেন, ‘কী করমু ভাই, থাকার জায়গা নাই, শোওনেরও জায়গা নাই। এইখানে শুইলে অসুবিধা কী?’ একটু এগোতেই দেখা গেল, একজন নারী তাঁর ছোট শিশুকে নিয়ে শুয়ে আছেন।

একই দিন পাতালসড়কের সিঁড়ি দিয়ে নামতে নামতে বিরক্তি প্রকাশ করছিলেন একটি বেসরকারি সংস্থার কর্মকর্তা আবদুর রশীদ। তিনি বলেন, ‘এই পথে আর বুঝি যাওয়া যাবে না। একে তো ময়লা, আবর্জনা আর দুর্গন্ধ, তার ওপর ভবঘুরের অবাধ চলাফেরা। দেখলে মনে হয় এই আন্ডারপাসের কোনো অভিভাবক নেই।’

পাতালসড়ক দিয়ে কারওয়ান বাজারে যাওয়ার সময় কথা হয় দুই তরুণীর সঙ্গে। তাঁদের একজন বললেন, এই পথে চলতে গেলে ভয় লাগে। কয়েক দিন আগে সন্ধ্যায় তাঁর ব্যাগ ছিনতাই হয়েছে।

বুধবার পাতালসড়কের চারটি প্রবেশপথেই আবর্জনা ছড়িয়ে-ছিটিয়ে পড়ে থাকতে দেখা যায়। সেখানে দেখা যায়নি কোনো নিরাপত্তাকর্মীকে। তবে গতকাল রোববার বিকেল চারটার দিকে একজন পরিচ্ছন্নতাকর্মীকে ঝাড়ু দিতে দেখা যায়। এ সময় ধুলার কারণে পাতালসড়কে মানুষের চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। সে সময় পাতালসড়কের পশ্চিম প্রান্তে কথা হয় একটি বিমা কোম্পানির কর্মকর্তা আবদুর রহমানের সঙ্গে। তিনি বলেন, সকাল থেকে চারবার তিনি এই পাতালসড়ক দিয়ে যাতায়াত করেছেন। সকাল থেকেই ছিল আবর্জনায় ভরা। আর এখন ব্যস্ত সময়ে ঝাড়ু দেওয়া হচ্ছে।

সিটি করপোরেশন সূত্র জানায়, ১৯৯৭ সালে ঢাকা সিটি করপোরেশন পাতালসড়কটি নির্মাণ করে। ২০১৪ সালে দুটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের সহযোগিতায় সিটি করপোরেশন পাতালসড়কটি ঢেলে সাজায়। ১৭ এপ্রিল ‘প্রজাপতি গুহা’ নামে নতুনভাবে আত্মপ্রকাশ করে এটি। ভেতরে প্রায় ১৬ লাখ টাকার নতুন টাইলস বসানো হয়। বাতি দিয়ে আলোকিত করা হয়। সার্বক্ষণিকভাবে চালু থাকত একটি এলইডি টেলিভিশন। এ ছাড়া নিরাপত্তারক্ষীও থাকত সব সময়।

সিটি করপোরেশন সূত্র জানায়, সম্প্রতি পাতালসড়কের সংস্কারকাজ করা হয়েছে। সৌন্দর্যবর্ধনের কাজ কিছুদিনের মধ্যে শুরু হবে।

পাতালসড়কটি ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) অঞ্চল-৫-এর অধীনে। গত বুধবার বিকেলে যোগাযোগ করা হলে ডিএসসিসির অঞ্চল-৫-এর নির্বাহী প্রকৌশলী এস এম অজিয়র রহমান প্রথম আলোকে বলেন, পাতালসড়ক সংস্কারকাজের জন্য কিছু সময় গেছে। এখন চলাচলের উপযোগী করা হয়েছে। যাদের সহযোগিতায় পাতালসড়ককে ‘প্রজাপতি গুহা’ করা হয়েছিল, সংস্কারকাজের সময় তারা নিরাপত্তারক্ষী ও টেলিভিশনটি সরিয়ে নিয়েছিল। এরপর নিরাপত্তাকর্মীরা আর যোগ দেননি।

এস এম অজিয়র রহমান বলেন, পাতালসড়কের উন্নয়নে প্রায় ১০ লাখ টাকার একটি কাজ হবে। সেটি শেষ হলে চলাচলের সময় পথচারীদের মনে হবে, তাঁরা অ্যাকুরিয়ামের ভেতর দিয়ে চলাচল করছেন। তবে মেট্রোরেলের কাজ ছাড়াও কিছু কারিগরি কারণে কাজটি শুরু হতে সময় লাগছে। তিনি বলেন, শিগগিরই করপোরেশনের উদ্যোগে পাতালসড়কে নিরাপত্তাকর্মী দেওয়া হতে পারে। এ ছাড়া পাতালসড়ক পরিষ্কার রাখার কাজেও জোর দেওয়া হবে।

ঘুষের ৫০ হাজার টাকাসহ উপসচিব গ্রেফতার
                                  

ঘুষের টাকা নেওয়ার সময় হাতেনাতে সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপসচিব মিজানুর রহমানকে গ্রেফতার করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। সড়ক ও জনপথ বিভাগের একজন ইজারা গ্রহীতার অভিযোগের ভিত্তিতে গতকাল রবিবার রাত পৌনে ১০টার দিকে রাজধানীর খিলগাঁও তালতলা বাজার এলাকার একটি রেস্টুরেন্ট থেকে ঘুষের ৫০ হাজার টাকাসহ তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতকৃত উপসচিব মিজানুর রহমান প্রশাসন ক্যাডারের কর্মকর্তা। বর্তমানে সড়ক ও জনপদ বিভাগে আইন কর্মকর্তা হিসেবে প্রেষণে কর্মরত রয়েছেন। দুদক সূত্র জানায়, সড়ক ও জনপদ বিভাগের একজন ইজারা গ্রহীতা মাইনুদ্দীন। তার ইজারা নেওয়া একটি কাজের তদন্ত প্রতিবেদনের জন্য উপসচিব মিজানুর রহমান তার কাছে প্রথম দফায় এক লাখ ৯০ হাজার টাকা ঘুষ দাবি করেন। সেটা পরিশোধের পর ওই একই কাজের জন্য আরও নয় লাখ টাকা দাবি করেন মিজানুর রহমান। দ্বিতীয় দফার ঘুষ দাবি করার পর মাইনুদ্দীন দুদকের কাছে অভিযোগ করেন। দুদক অভিযোগ আমলে নিয়ে প্রাথমিক তদন্ত চালায়। পরে গতকাল রবিবার ঢাকা বিভাগীয় পরিচালক নাসিম আনোয়ারের নেতৃত্বে দুদকের একটি টিম খিলগাঁওয়ের বিএফসি রেস্টুরেন্টে অবস্থান নেয়। রাত ৯টার দিকে মিজানুর রহমান ইজারা গ্রহীতা মাইনুদ্দীনের কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা ঘুষ নিতে গেলে দুদক কর্মকর্তারা তাকে ঘুষের টাকাসহ হাতেনাতে গ্রেফতার করেন। বর্তমানে তাকে খিলগাঁও থানায় রাখা হয়েছে। আগামীকাল তাকে আদালতে সোপর্দ করা হবে বলে দুদকের উপ-পরিচালক (জনসংযোগ) প্রণব কুমার ভট্টাচার্য জানিয়েছেন।

গেণ্ডারিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় দু’জন নিহত
                                  

রাজধানীর গেণ্ডারিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় দু’জন নিহত হয়েছেন। সোমবার মধ্যরাতে গেণ্ডারিয়ার ধোলাইখালে একটি ট্রাক রিকশাকে চাপা দিলে চালকসহ তিনজন গুরুতর আহত হন। পরে তাদের সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে দু’জনকে মৃত ঘোষণা করা হয়। নিহত দুই আরোহী বাদল হোসেন ও সানোয়ার হোসেন। বাদল ধোলাইখালের একটি লেদ মেশিন ওয়ার্কশপের মালিক, থাকতেন ঢাকার শাহজাহানপুরে। আর সানোয়ার ছিলেন বাদলের দোকানের কর্মচারী; তার বাসা ওয়ারী এলাকায়। আহত চালক আলতাফ হোসেনকে পঙ্গু হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তিনি বলেন, ট্রাক ও চালকের সহকারীকে আটক হলেও চালক পালিয়ে গেছে।


   Page 1 of 1
     অপরাধ জগত
স্ত্রীর কাটা মাথা হাতে নিয়ে থানায় যাওয়ার পথে আটক ঘাতক স্বামী
.............................................................................................
সোনাইমুড়ীতে কমিউনিটি পুলিশিং ডে পালিত
.............................................................................................
কলারোয়ায় জঙ্গী ও মাদকের কোন স্থান নেই
.............................................................................................
নড়াইলের নড়াগাতিতে কমিউনিটি পুলিশিং দিবস পালিত
.............................................................................................
ত্রিশালে কমিউনিটি পুলিশিং ডে পালিত
.............................................................................................
পাতালসড়কের একি হাল!
.............................................................................................
ঘুষের ৫০ হাজার টাকাসহ উপসচিব গ্রেফতার
.............................................................................................
গেণ্ডারিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় দু’জন নিহত
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো : মাহবুবুর রহমান ।
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মো: হাবিবুর রহমান । সম্পাদক কর্তৃক বিএস প্রিন্টিং প্রেস ৫২/২ টয়েনবি সার্কুলার রোড, সুত্রাপুর ঢাকা খেকে মুদ্রিত
ও ৬০/ই/১ পুরানা পল্টন (৭ম তলা) থেকে প্রকাশিত বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৫১,৫১/ এ রিসোর্সফুল পল্টন সিটি (৪র্থ তলা), পুরানা পল্টন, ঢাকা -১০০০।
ফোনঃ-০২-৯৫৫০৮৭২ , ০১৭১১১৩৬২২৬

Web: www.bhorersomoy.com E-mail : dbsomoy2010@gmail.com
   All Right Reserved By www.bhorersomoy.com Developed By: Dynamic Solution IT & Dynamic Scale BD