ঢাকা,শনিবার,৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৮,২৪,জুলাই,২০২১
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : * ফরিদপুরে বিসিআই’র অক্সিজেন ও হাইফ্লো ক্যানোলা হস্তান্তর   * এলজিইডিতে করোনা মোকাবেলায় নানা কর্মসূচি নিয়েছেন   * চীন-রাশিয়া সম্পর্ক, মাঝখানে পোয়াবারো মঙ্গোলিয়ার   * রূপগঞ্জে হতাহতদের পরিবারকে সমবেদনা জানাতে যাচ্ছেন ডা. জাফরুল্লাহ   * কারখানা শ্রমিকদের জীবন নিরাপদ হয়নি: জিএম কাদের   * সরকারি অফিসের সব দাপ্তরিক কাজ ভার্চ্যুয়ালি করার নির্দেশ   * ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর জন্য ৮০০ কেজি আনারস পাঠালেন   * ‘ব্রাজিলের মাটিতে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার আনন্দ দ্বিগুণ’   * শেখ হাসিনার জন্য ২০ মণ আনারস পাঠালেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী   * করোনায় ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড ২০১ জনের মৃত্যু  

   জাতীয় -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
এলজিইডিতে করোনা মোকাবেলায় নানা কর্মসূচি নিয়েছেন

আবুল মনসুর আহমেদ: করোনা মোকাবেলায় নানা কর্মসূচি নিয়েছেন এলজিইডি ঢাকা বিভাগের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী। দেশব্যাপী করোনাভাইরাস দুর্যোগ মোকাবেলায় এলজিইডি নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। সরকারে জারিকৃত বিবিধ নিয়ম অনুসরণ করে মাননীয় মন্ত্রী মহোদয় ও প্রধান প্রকৌশলীর দিকনির্দেশনা মতো এলজিইডির কর্মকর্তা/কর্মচারীরা তাদের কর্মস্থলে অবস্থান করছেন। এই ধারাবাহিকতায় স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) ঢাকা বিভাগের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী জনাব মন্মথ রঞ্জন হালদার মাঠ পর্যায়ে কর্মরত কর্মকর্তা, কর্মচারী ও গাড়িচালকদের জন্য ইতিপূর্বে অনুসরণীয় নিয়মাবলী প্রতিপালনের জন্য যে আদেশ জারি করা হয়েছে তা কঠোরভাবে পালন করার নির্দেশ প্রদান করেন। তিনি জানান, রাস্তা ও ব্রিজ নির্মাণের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে প্রকল্প নিতে হবে। যত্রতত্র রাস্তা-ব্রিজ নির্মাণ করা যাবে না। প্রয়োজনে হাইড্রোলজিক্যাল, মরফোলজিক্যাল স্টাডির মাধ্যমে নেভিগেশন সুবিধা নিশ্চিত করে কাজ করতে হবে। উন্নয়নের স্বার্থে যেসব প্রকল্প গ্রহণ করা হয়, তার সঠিক প্রাক্কলন করতে হবে, নির্দিষ্ট টাইম শিডিউলের মধ্যে টেন্ডার আহ্বান, ইভালুয়েশান করে কাজের নোটিফিকেশন দিতে হবে। এক্ষেত্রে অযথা সময়ক্ষেপণ করা যাবে না বলেও উল্লেখ করেন তিনি। উন্নয়ন কাজ শুরু হওয়ার পর মনিটরিং জোরদার এবং কাজের গুণগত মান নিশ্চিত করে উন্নয়ন প্রকল্প সময়মতো শেষ করতে সর্বস্তরের কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন মাননীয় মন্ত্রী মহোদয় তার পেক্ষিতেই কাজ করে যাচ্ছে এলজিইডির সকর কর্মকর্তা ও কর্মচারী বৃন্দ। ঢাকা বিভাগের সকল নির্বাহী প্রকৌশলীগন নিজ জেলা প্রশাসন ও উপজেলা প্রকৌশলীরা উপজেলা প্রশাসনের সঙ্গে সমন্বয় করে রাত দিন কাজ করে যাচ্ছেন। এলজিইডির ঢাকা বিভাগের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী জনাব মন্মথ রঞ্জন হালদার চলমান কর্মকাণ্ড ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে তদারকি করছেন। এসময় তিনি মাঠ পর্যায়ে কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের কর্মক্ষেত্র এলাকা ত্যাগ না করার নির্দেশ প্রদান করেন। এলজিইডি তে সদ্য পদায়নকৃত ২৬০ জন উপজেলা প্রকৌশলী/সহকারী প্রকৌশলীদের নতুন কর্মস্থলে থাকা খাওয়ার সঠিক ব্যবস্থা করার জন্য সংশ্লিষ্ট সকলকে নির্দেশনা প্রদান করেন। ভারিবর্ষণ ও বন্যা হওয়ায় স্থানীয় প্রশাসনের সাথে সমন্বয় করে নির্বাহী প্রকৌশলীগন নিজ জেলা প্রশাসন ও উপজেলা প্রকৌশলীরা উপজেলা প্রশাসনের সঙ্গে সমন্বয় করে কাজ করার নির্দেশনা প্রদান করেন। খঈঝ কর্মিদের নিয়মিত সঠিক সময়ে বেতন ভাতা প্রদানের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করার জন্য বলা হয়। নদী ভাঙ্গনে টাঙ্গাইল জেলার বীর মুক্তিযোদ্ধার বাড়ির বিষয়ে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদান করেন। প্রোগ্রেস রিপোর্ট অগ্রগতি ও মোবাইল মেইনন্টেন্যান্স নিয়ে পর্যালোচনা করা হয়। এলজিইডিতে অবস্থিত ল্যাবরেটরির এর সকল যন্ত্রপাতি সচল রাখার জন্য প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদান করা হয়। ঢাকা বিভাগের সকল আঞ্চলিক অফিস সহ সকল উপজেলা প্রকৌশীর দপ্তর ও নির্বাহী প্রকৌশলীর দপ্তরের কম্পিউটার অফিস ফাইল সহ সকল জিনিস পত্র সুরক্ষিত রাখার জন্য নির্দেশনা প্রদান করা হয়। জাতীয় শুদ্ধাচার বিষয়ে আলোচনা করা হয়। ঢাকা বিভাগের সকল আঞ্চলিক অফিস সহ সকল নির্বাহী প্রকৌশলী দপ্তর ও উপজেলা প্রকৌশলীর দপ্তর এর সকল কর্মকর্তাদের কর্পোরেট মোবাইল সিম চালু রাখার জন্য নির্দেশ প্রদান করা হয়। ঢাকা বিভাগের সকল আঞ্চলিক অফিস সহ সকল নির্বাহী প্রকৌশলীর দপ্তর ও উপজেলা প্রকৌশলী দপ্তরের সকল কর্মকর্তার নিম্নে উপসহকারী প্রকৌশলী পযন্ত সকলের নাম পদবি ও মোবাইল নাম্বার সংগ্রহ করার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়। ঢাকা বিভাগের সকল আঞ্চলিক অফিস ও নির্বাহী প্রকৌশলীর দপ্তর ও উপজেলা প্রকৌশলী দপ্তরের সকল কর্মকর্তাদের নিয়ে অনলাইন ভিত্তিক ডিজিটার প্লাটফর্ম তৈরি করার জন্য সোস্যাল মিডিয়া হোয়াটসঅ্যাপে একটি গুরুপ খোলার নির্দেশনা প্রদান করা হয়। এ সময় অনলাইন সভায় অংশগ্রহণ করেন এলজিইডি’র ঢাকা বিভাগের সকল তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী, নির্বাহী প্রকৌশলী, সিনিয়র সহকারী প্রকৌশলী সহ সকল উপজেলা প্রকৌশলীবৃন্দ।

এলজিইডিতে করোনা মোকাবেলায় নানা কর্মসূচি নিয়েছেন
                                  

আবুল মনসুর আহমেদ: করোনা মোকাবেলায় নানা কর্মসূচি নিয়েছেন এলজিইডি ঢাকা বিভাগের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী। দেশব্যাপী করোনাভাইরাস দুর্যোগ মোকাবেলায় এলজিইডি নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। সরকারে জারিকৃত বিবিধ নিয়ম অনুসরণ করে মাননীয় মন্ত্রী মহোদয় ও প্রধান প্রকৌশলীর দিকনির্দেশনা মতো এলজিইডির কর্মকর্তা/কর্মচারীরা তাদের কর্মস্থলে অবস্থান করছেন। এই ধারাবাহিকতায় স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) ঢাকা বিভাগের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী জনাব মন্মথ রঞ্জন হালদার মাঠ পর্যায়ে কর্মরত কর্মকর্তা, কর্মচারী ও গাড়িচালকদের জন্য ইতিপূর্বে অনুসরণীয় নিয়মাবলী প্রতিপালনের জন্য যে আদেশ জারি করা হয়েছে তা কঠোরভাবে পালন করার নির্দেশ প্রদান করেন। তিনি জানান, রাস্তা ও ব্রিজ নির্মাণের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে প্রকল্প নিতে হবে। যত্রতত্র রাস্তা-ব্রিজ নির্মাণ করা যাবে না। প্রয়োজনে হাইড্রোলজিক্যাল, মরফোলজিক্যাল স্টাডির মাধ্যমে নেভিগেশন সুবিধা নিশ্চিত করে কাজ করতে হবে। উন্নয়নের স্বার্থে যেসব প্রকল্প গ্রহণ করা হয়, তার সঠিক প্রাক্কলন করতে হবে, নির্দিষ্ট টাইম শিডিউলের মধ্যে টেন্ডার আহ্বান, ইভালুয়েশান করে কাজের নোটিফিকেশন দিতে হবে। এক্ষেত্রে অযথা সময়ক্ষেপণ করা যাবে না বলেও উল্লেখ করেন তিনি। উন্নয়ন কাজ শুরু হওয়ার পর মনিটরিং জোরদার এবং কাজের গুণগত মান নিশ্চিত করে উন্নয়ন প্রকল্প সময়মতো শেষ করতে সর্বস্তরের কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন মাননীয় মন্ত্রী মহোদয় তার পেক্ষিতেই কাজ করে যাচ্ছে এলজিইডির সকর কর্মকর্তা ও কর্মচারী বৃন্দ। ঢাকা বিভাগের সকল নির্বাহী প্রকৌশলীগন নিজ জেলা প্রশাসন ও উপজেলা প্রকৌশলীরা উপজেলা প্রশাসনের সঙ্গে সমন্বয় করে রাত দিন কাজ করে যাচ্ছেন। এলজিইডির ঢাকা বিভাগের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী জনাব মন্মথ রঞ্জন হালদার চলমান কর্মকাণ্ড ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে তদারকি করছেন। এসময় তিনি মাঠ পর্যায়ে কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের কর্মক্ষেত্র এলাকা ত্যাগ না করার নির্দেশ প্রদান করেন। এলজিইডি তে সদ্য পদায়নকৃত ২৬০ জন উপজেলা প্রকৌশলী/সহকারী প্রকৌশলীদের নতুন কর্মস্থলে থাকা খাওয়ার সঠিক ব্যবস্থা করার জন্য সংশ্লিষ্ট সকলকে নির্দেশনা প্রদান করেন। ভারিবর্ষণ ও বন্যা হওয়ায় স্থানীয় প্রশাসনের সাথে সমন্বয় করে নির্বাহী প্রকৌশলীগন নিজ জেলা প্রশাসন ও উপজেলা প্রকৌশলীরা উপজেলা প্রশাসনের সঙ্গে সমন্বয় করে কাজ করার নির্দেশনা প্রদান করেন। খঈঝ কর্মিদের নিয়মিত সঠিক সময়ে বেতন ভাতা প্রদানের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করার জন্য বলা হয়। নদী ভাঙ্গনে টাঙ্গাইল জেলার বীর মুক্তিযোদ্ধার বাড়ির বিষয়ে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদান করেন। প্রোগ্রেস রিপোর্ট অগ্রগতি ও মোবাইল মেইনন্টেন্যান্স নিয়ে পর্যালোচনা করা হয়। এলজিইডিতে অবস্থিত ল্যাবরেটরির এর সকল যন্ত্রপাতি সচল রাখার জন্য প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদান করা হয়। ঢাকা বিভাগের সকল আঞ্চলিক অফিস সহ সকল উপজেলা প্রকৌশীর দপ্তর ও নির্বাহী প্রকৌশলীর দপ্তরের কম্পিউটার অফিস ফাইল সহ সকল জিনিস পত্র সুরক্ষিত রাখার জন্য নির্দেশনা প্রদান করা হয়। জাতীয় শুদ্ধাচার বিষয়ে আলোচনা করা হয়। ঢাকা বিভাগের সকল আঞ্চলিক অফিস সহ সকল নির্বাহী প্রকৌশলী দপ্তর ও উপজেলা প্রকৌশলীর দপ্তর এর সকল কর্মকর্তাদের কর্পোরেট মোবাইল সিম চালু রাখার জন্য নির্দেশ প্রদান করা হয়। ঢাকা বিভাগের সকল আঞ্চলিক অফিস সহ সকল নির্বাহী প্রকৌশলীর দপ্তর ও উপজেলা প্রকৌশলী দপ্তরের সকল কর্মকর্তার নিম্নে উপসহকারী প্রকৌশলী পযন্ত সকলের নাম পদবি ও মোবাইল নাম্বার সংগ্রহ করার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়। ঢাকা বিভাগের সকল আঞ্চলিক অফিস ও নির্বাহী প্রকৌশলীর দপ্তর ও উপজেলা প্রকৌশলী দপ্তরের সকল কর্মকর্তাদের নিয়ে অনলাইন ভিত্তিক ডিজিটার প্লাটফর্ম তৈরি করার জন্য সোস্যাল মিডিয়া হোয়াটসঅ্যাপে একটি গুরুপ খোলার নির্দেশনা প্রদান করা হয়। এ সময় অনলাইন সভায় অংশগ্রহণ করেন এলজিইডি’র ঢাকা বিভাগের সকল তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী, নির্বাহী প্রকৌশলী, সিনিয়র সহকারী প্রকৌশলী সহ সকল উপজেলা প্রকৌশলীবৃন্দ।

রূপগঞ্জে হতাহতদের পরিবারকে সমবেদনা জানাতে যাচ্ছেন ডা. জাফরুল্লাহ
                                  

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে হাসেম ফুডস-এর কারখানায়  ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে হতাহতদের পরিবারকে সমবেদনা জানাতে ঘটনাস্থলে যাচ্ছেন গণস্বাস্থ্যের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। আজ রবিবার (১১ জুলাই) দুপুর ১টায় সেখানে উপস্থিত থাকবেন বলে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রেস উপদেষ্টা জাহাঙ্গীর আলম মিন্টুর পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়েছে।  ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর সঙ্গে ঘটনাস্থলে উপস্থিত থাকবেন ভাসানী অনুসারী পরিষদের মহাসচিব শেখ রফিকুল ইসলাম বাবলু, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি, মুক্তিযোদ্ধা নঈম জাহাঙ্গীর, মুক্তিযোদ্ধা ইসতিয়াক আজিজ উলফত, রাষ্ট্রচিন্তার অ্যাডভোকেট হাসনাত কাইউম, গণস্বাস্থ্যের প্রেস উপদেষ্টা জাহাঙ্গীর আলম মিন্টু, ভাসানী অনুসারী পরিষদের সদস্য ব্যারিস্টার সাদিয়া আরমান, মো. ফরিদ উদ্দিন, ছাত্র অধিকার পরিষদের সাদ্দাম প্রমুখ।

কারখানা শ্রমিকদের জীবন নিরাপদ হয়নি: জিএম কাদের
                                  

জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান ও বিরোধীদলীয় উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ কাদের এমপি বলেছেন, স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছরেও কারখানা শ্রমিকদের জীবন নিরাপদ হয়নি। প্রতিবছর কারখানায় অগ্নিকাণ্ডে অসংখ্য শ্রমিকদের জীবন যায়। প্রতিটি দুর্ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন হয়। প্রতিবেদন আসে তাতে কিছু সুপারিশও থাকে। কখনও জনগণ সেটা জানতে পারে, কখনও তা গোপনই থেকে যায়। তবে বাস্তবায়ন হয়না বললেই চলে। প্রায় ক্ষেত্রেই আইনের ফাঁক দিয়ে বের হয়ে যায় দোষীরা। তাই থামছে না অগ্নিকাণ্ড, থামছে না মৃত্যুর মিছিল। রবিবার (১১ জুলাই) এক বিবৃতিতে জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান এসব কথা ব‌লেন। জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান বলেন, ফায়ার সার্ভিস এর তথ্য অনুযায়ী গেলো ১৫ বছরে অগ্নিদুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ৩১৭ জনের। আহত হয়েছেন ১২ হাজার ৩৭৪ জন। এরমধ্যে একটি বিশাল অংশই শ্রমিক শ্রেণির মানুষ। ২০১২ সালের ২৪ নভেম্বর ইতিহাসের ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে আশুলিয়ার তাজরীন ফ্যাশনস লিমিটেডের ১১৭ জন পোশাক শ্রমিক আগুনে পুড়ে মারা যায়, আহত হয় দুশোর বেশি শ্রমিক। প্রতিটি দুর্ঘটনায় একমাত্র উপার্জনক্ষম মানুষের মৃত্যুতে মানবিক বিপর্যয় সৃষ্টি হয় দারিদ্র্য পীড়িত পরিবার গুলোতে। বিবৃতিতে জিএম কাদের আরো বলেন, বিল্ডিং কোড মেনে তৈরি হয় না ভবন, কারখানা তৈরিতে মানা হয়না সুনির্দিষ্ট নীতিমালা। অগ্নি প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি থাকে না কারখানায়। তদারকি নেই, আর দায়িত্বশীলদের জবাবদিহিতা নেই বললেই চলে। এ কারণেই কারখানায় আগুন লাগলে রেহাই মেলে না শ্রমিকদের। তাই অগ্নিকাণ্ড কমাতে এবং শ্রমিকদের জীবন বাচাতে সরকারকে এখনই কঠোর পদক্ষেপ নিতে হবে।

সরকারি অফিসের সব দাপ্তরিক কাজ ভার্চ্যুয়ালি করার নির্দেশ
                                  

করোনা বিধিনিষেধের সময়ে দেশের সকল সরকারি অফিসের দাপ্তরিক কাজসমূহ ই-নথি, ই-টেন্ডারিং, ই-মেইল, এসএমএস, হোয়াটসঅ্যাপের মতো মাধ্যমসহ ভার্চ্যুয়ালি সম্পন্ন করতে নির্দেশ দিয়েছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। রবিবার (১১ জুলাই) মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ সরকারি অফিসের দাপ্তরিক কাজ ভার্চ্যুয়ালি করার নির্দেশনা দিয়ে সব সিনিয়র সচিব/সচিবদের চিঠি দিয়েছে। এতে বলা হয়, করোনাভাইরাসজনিত রোগের সংক্রমণ বিস্তার রোধে আরোপিত বিধিনিষেধে সব সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্বশাসিত ও বেসরকারি অফিস বন্ধ রাখার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। দেশের বর্তমান এ পরিস্থিতিতে ব্যতিক্রম হিসেবে সকল জরুরি অফিস ও সেবা কার্যক্রম চালু রয়েছে। এসব সরকারি অফিসের দাপ্তরিক কাজ ভার্চুয়ালি (ই-নথি, ই-টেন্ডারিং, ই-মেইল, এসএমএস, হোয়াটস অ্যাপসহ নানা মাধ্যম) সম্পন্ন করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নির্দেশনা দেয়া হয় চিঠিতে। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ উদ্বেগজনক হারে বেড়ে যাওয়ায় গত ১ জুলাই সকাল ৬টা থেকে শুরু হয় সাত দিনের কঠোর বিধিনিষেধ। এই বিধিনিষেধ ছিল ৭ জুলাই মধ্যরাত পর্যন্ত। পরে বিধিনিষেধের মেয়াদ আরো ৭ দিন অর্থাৎ ১৪ জুলাই পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে জারি করা প্রজ্ঞাপনে ২১টি শর্ত দেয়া হয়। শর্ত অনুযায়ী, এ সময়ে জরুরি সেবা দেয়া দফতর-সংস্থা ছাড়া সরকারি-বেসররকারি অফিস, যন্ত্রচালিত যানবাহন, শপিংমল দোকানপাট বন্ধ রয়েছে।

অভিনেতা দিলীপ কুমারের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক
                                  

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উপমহাদেশের কিংবদন্তি অভিনেতা দিলীপ কুমারের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। আজ বুধবার (৭ জুলাই) এক শোক বার্তায় প্রধানমন্ত্রী মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। বুধবার (৭ জুলাই) সকাল সাড়ে ৭টার দিকে ভারতের মুম্বাইয়েরে পিডি হিন্দুজা  সপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান দিলীপ কুমার। তার বয়স হয়েছিলো ৯৮ বছর। দীর্ঘদিন ধরেই বার্ধক্যজনিত নানা রোগে ভুগছিলেন দিলীপ। গত ৩০ জুন তাকে মুম্বাইয়ের হিন্দুজা হাসপাতালে তাকে ভর্তি করা হয়। অবস্থা খারাপ হলে তাকে হাসপাতালটির নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) নেওয়া হয়। রবিবার তার আ্যকাউন্ট থেকে একটি টুইট করে দিলীপ কুমারের অসুস্থতার কথা জানানো হয়। টুইটে স্ত্রী সায়রা বানু, কিংবদন্তি অভিনেতার জন্য প্রার্থনা করার আবেদন করেছিলেন। চিকিৎসক ডা. নিতীন গোখলের  ত্ত্বাবধানে চলতে থাকে তার চিকিৎসা। চিকিৎসকরা জানান, তার ফুসফুসে পানি জমেছে। করা হয় একাধিক পরীক্ষা।শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যার কারণ তাকে অক্সিজেন সাপোর্ট দিয়ে রাখা হয় আইসিইউতে। এদিন সকালে চিকিৎসকরা জানান অভিমেতার শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল।

গাড়ির চাপ সামলাতে হিমশিম খাচ্ছে ট্রাফিক পুলিশ
                                  

রাজধানীতে সকাল থেকেই গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি হচ্ছে। বৃষ্টি ও চলমান লকডাউনের বাধা উপেক্ষা করে সড়কে বেড়েছে মানুষ ও গাড়ির চাপ। নানা বাহানায় মানুষ ঘর থেকে বের হচ্ছেন। তবে এর মধ্যে আবার অনেককেই অফিসসহ জরুরি কাজেও বেরে হতে হচ্ছে। এদিকে, লকডাউন বাস্তবায়নে মাঠে থাকা আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা মামলা দিচ্ছেন, জরিমানা করছেন। তারপরও  রোনাভীতি ভুলে মানুষ নামছেন রাস্তায়। বুধবার (৭ জুলাই) সকাল থেকেই রাজধানীর মিরপুর ১২, ১১, ১০, ১ ও ২ নম্বর এলাকার পাড়া-মহল্লা ও বাসস্ট্যান্ড এলাকা ঘুরে এমন চিত্র দেখা যায়। করোনা সংক্রমণ রোধে কঠোর লকডাউনের সপ্তম দিন চলছে আজ। কিন্তু প্রধান সড়ক ও অলিগলি সবখানেই চলাচল বেশি। বৃষ্টির কারণে সকালের দিকে যানবাহন কম থাকলেও, বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে তা বেড়েছে। ট্রাফিক পুলিশ সদস্যরা বলছেন, লকডাউন মানার ক্ষেত্রে একটু ঢিলেঢালা ভাব লক্ষ্য করা গেছে। জরিমানা, মামলা দিলেও নানা অজুহাতে সড়কে নামছেন মানুষ। দুপুর ১২টায় মিরপুর ১০ নম্বরে দায়িত্বরত ট্রাফিক সার্জেন্ট বেলাল জাগো নিউজকে বলেন, ‘মানুষের চাপ বাড়ছে। মামলা করার পরেও তারা আবার সড়কে নামছেন। এছাড়া সড়কে প্রচুর গাড়ি বেড়েছে। ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান খোলা। গাড়ি নিয়ে মানুষ কর্মস্থলে যাচ্ছে। এছাড়া চিকিৎসার প্রয়োজনেও প্রচুর মানুষ বের হচ্ছে। মিরপুর ১০ নম্বরে আমাদের দুইটি টিম কাজ করছে। লকডাউন অমান্য করায় দুপুর পর্যন্ত ১০টি মামলা করা হয়েছে। বেশ কয়েকজনের কাছ থেকে জরিমানাও আদায় করা হয়েছে।’ মিরপুর ১০ নম্বরের গোলচত্বরের প্রতিটি মুখে গাড়ির চাপ লক্ষ্য করা গেছে। পুলিশের তল্লালি থাকায় চেকপোস্ট পার হতে গাড়িগুলোকে কিছু সময় অপেক্ষা করতে হচ্ছিল। মিরপুর ১৪ নম্বরে গাড়ির তেমন চাপ না থাকলেও ছিল প্রচুর রিকশা। তিন চাকার এই যানটিতে চড়ে যাত্রীদের বিভিন্ন গন্তব্যে যেতে দেখা গেছে। মিরপুর ১২ নম্বরে পুলিশের কোনো চেকপোস্ট চোখে পড়েনি। সড়কে প্রচুর মানুষকে হাঁটাচলা করতে দেখা গেছে। এ সময় অনেকের মুখেই ছিল না মাস্ক। মূল সড়ক থেকে একটু ভেতরের দিকের পাড়া-মহল্লার রাস্তাগুলোতে দোকান খোলা থাকতে দেখা গেছে। প্রথমে অর্ধেক সাটার খোলা রেখে দোকান খুলতে দেখা গেলেও এখন তা মানা হচ্ছে না। বেশিরভাগ দোকানিই পুরো সাটার খোলা রাখছেন। পুলিশের গাড়ি দেখেলে দ্রুত তা নামিয়ে ফেলছেন। মিরপুর ১২ নম্বর সেকশনে সিমেন্টের দোকানদার আউয়াল মিয়া বলেন, ‘গত কাল পুলিশ ধরে নিয়ে যায়। পরে ২ হাজার টাকা জরিমানা দেয়। আজকে আবার দোকান খুলছি। দোকান বন্ধ রাখলে ভাড়া, সংসারের খরচ উঠবো কোথা থেকে? এ কারণেই এভাবে কেনাবেচা করতে হচ্ছে।’ মিরপুর ২ নম্বরে ফুড পান্ডার ডেলিভারি বয় সামশুল বলেন, ‘এই কয়দিন রাস্তায় সাইকেল চালিয়ে শান্তি পাইছি। এখন রোডে প্রচুর গাড়ি, সাইকেল অলিগলি দিয়ে চালাতে হচ্ছে।’ মিরপুর ১০ নম্বর গোলচত্বরে দায়িত্বরত ট্রাফিক ইনস্পেক্টর মুজিবর বলেন, ‘প্রতিদিন ৫ থেকে ৭ লাখ টাকা জরিমানা করা হচ্ছে। জরিমানা তো সাধারণ জনগণ দিচ্ছেন। তার পরেও মানুষ ঘর থেকে বের হচ্ছেন। যারাই লকডাউনে প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের হচ্ছেন, প্রশাসনের নজরে আসলেই তাদের জরিমানা করা হচ্ছে।’

শক্তিশালী পাসপোর্ট সূচকে আট ধাপ পেছালো বাংলাদেশ
                                  

শক্তিশালী পাসপোর্ট সূচকে আট ধাপ পিছিয়েছে বাংলাদেশ। মঙ্গলবার প্রকাশিত হেনলি পাসপোর্ট সূচকে এ তথ্য জানা যায়। গ্লোবাল সিটিজেনশিপ এবং রেসিডেন্সি পরামর্শক লন্ডনভিত্তিক প্রতিষ্ঠান হেনলি অ্যান্ড পার্টনার্স প্রতি বছর এই সূচক প্রকাশ করে। ভিসা ছাড়া কোন পাসপোর্ট দিয়ে কতটি দেশে ভ্রমণ করা যায় তার ওপর ভিত্তি করে এই সূচক তৈরি করা হয়। ইন্টারন্যাশনাল এয়ার ট্রান্সপোর্ট অ্যাসোসিয়েশনের কাছ থেকে সংগৃহীত আন্তর্জাতিক যাত্রীদের ভ্রমণ তথ্য বিশ্লেষণ করে এই সূচক তৈরি করা হয়। ২০২০ সালের সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ৯৮। চলতি বছর সেই অবস্থান থেকে আরো আট ধাপ নেমে বাংলাদেশ ১০৬ নম্বরে চলে এসেছে। বর্তমান সূচক অনুযায়ী আগাম ভিসা ছাড়া ৪১টি দেশে ভ্রমণ করতে পারেন বাংলাদেশি পাসপোর্টধারীরা। তালিকায় বাংলাদেশের সঙ্গী হিসেবে রয়েছে লেবানন ও সুদান। দক্ষিণ এশিয়ার তিন দেশ নেপাল ১০৯, পাকিস্তান ১১৩ ও আফগানিস্তান ১১৬তম অবস্থানে রয়েছে। তালিকায় শীর্ষে রয়েছে এশিয়ার তিন দেশ। প্রথম অবস্থানে রয়েছে জাপান, দ্বিতীয়তে সিঙ্গাপুর এবং তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে দক্ষিণ কোরিয়া। সংস্থাটি বলছে, বাংলাদেশি পাসপোর্ট থাকলে বিশ্বের ৪১টি দেশে ভিসা ছাড়া অথবা অন অ্যারাইভাল ভিসা নিয়ে প্রবেশ করা যায়। দেশগুলো হলো—এশিয়া মহাদেশের ছয়টি দেশ ভুটান, ইন্দোনেশিয়া, মালদ্বীপ, নেপাল, শ্রীলঙ্কা ও তিমুর। আফ্রিকা মহাদেশের ১৬টি দেশ—কেপ ভার্দ দ্বীপপুঞ্জ, কমোরোস দ্বীপপুঞ্জ, গাম্বিয়া, গিনি বিসাউ, কেনিয়া, লেসোথো, মাদাগাস্কার, মৌরিতানিয়া, মোজাম্বিক, রুয়ান্ডা, সেনেগাল, সিসিলি, সিয়েরা লিয়ন, সোমালিয়া, টোগো ও উগান্ডা। ওশেনিয়ার সাতটি দেশ—কুক আইল্যান্ডস, ফিজি, মাইক্রোনেশিয়া, নিউই, সামাউ, টুভালু ও ভানুয়াতু। ক্যারিবীয় অঞ্চলের ১১টি দেশ— বাহামা, বার্বাডোজ, ব্রিটিশ ভার্জিনিয়া আইল্যান্ডস, ডোমেনিকা, গ্রানাডা, হাইতি, জ্যামাইকা, মন্ডসেরাত, সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস, সেন্ট ভিনসেন্ট অ্যান্ড গ্রেনাডিন্স ও ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাগো। আমেরিকার মাত্র একটি দেশ বলিভিয়া।

সংঘাত কবলিত মোজাম্বিকে খাদ্য সংকট আসন্ন : ডব্লিউএফপি
                                  

মোজাম্বিকের উত্তরাঞ্চলে সংঘাতের কারণে সাত লাখ ৩০ হাজারেরও বেশি মানুষ গৃহহীন হয়ে পড়েছে। এদের খাদ্য সহায়তার জন্য জরুরি তহবিলের ব্যবস্থা করতে না পারলে তারা ‘চরম খাদ্য সংকটের’ মুখে পড়তে পারে। মঙ্গলবার ইউএন ওয়ার্ল্ড ফুড প্রোগ্রাম (ডব্লিউএফপি) এমন সতর্ক বাণী উচ্চারণ করেছে। খবর এএফপি’র। ২০১৭ সাল থেকে দেশটির কাবো দেলগাদো অঞ্চলে ব্যাপক জঙ্গি তৎপরতা ছড়িয়ে পড়ে। গত বছর সেখানে জঙ্গিরা  হামলা আরো জোরদার করেছে। ইসলামিক স্টেট গ্রুপ সংলিষ্ট জঙ্গিরা মার্চে নজিরবিহীন হামলা শুরু করার পর প্রাকৃতিক গ্যাস সমৃদ্ধ এ অঞ্চল ধ্বংসের মুখে পড়ে। সেখানে জঙ্গিদের ব্যাপক হামলায় অনেক লোক নিহত হয় এবং হাজার হাজার মানুষ তাদের ঘরবাড়ি ছেড়ে চলে যায়। ডব্লিউএফপি এ সংঘাতে ক্ষতিগ্রস্ত লোকজনকে চলতি বছরের শেষ নাগাদ পর্যন্ত সহায়তা করতে ১২ কোটি ১০ লাখ ডলার সাহায্যের জরুরি আবেদন জানিয়েছে। তবে তারা সতর্ক করে  বলেছে, এক্ষেত্রে অতিরিক্ত কোন বরাদ্দ না পাওয়া গেলে নিজস্ব রেশন ব্যবস্থা চালু করার বা খাদ্য সহায়তা একেবারে বন্ধ করে দেয়ার কথা বিবেচনা করতে পারে তারা। তাঞ্জানিয়া সীমান্তবর্তী মোজাম্বিকের ওই অঞ্চলে সম্প্রতি সফরে এসে ডব্লিউএফপি’র পরিচালক ডেভিড বিয়াসলি বলেন, ‘এ সংঘাত জনগণের কর্মসংস্থান ও জীবনযাপন ব্যবস্থা এবং ভবিষ্যতের আশাকে ধ্বংস করে দিয়েছে।’ তিনি বলেন, উগ্রবাদী জঙ্গিরা অনেক মানুষকে হত্যা, বিভিন্ন পরিবারকে উচ্ছেদ, ঘরবাড়ি ধ্বংস এবং শিশুদের আতংকগ্রস্ত করেছে। বিবৃতিতে বিয়াসলি বলেন, সেখানের ‘এই নিরীহ জনগোষ্ঠী বর্তমানে সম্পূর্ণভাবে ডব্লিউএফপি এবং আমাদের অংশীদারদের দেয়া জীবন রক্ষা করা খাদ্য সহায়তার ওপর নির্ভরশীল।’ মানবিক ত্রাণ সংস্থাগুলো জানায়, মোজাম্বিকের গৃহহীন হয়ে পড়া প্রতি ১০ নাগরিকের কমপক্ষে আট জন পরিবার নিয়ে বন্ধু বা অপরিচিতদের বাসায় চলে এসেছে। এদিকে মহামারী করোনাভাইরাসের কারণে খাদ্য সামগ্রির দাম অনেক বেড়ে যাওয়ায় এবং আয় হ্রাস পাওয়ায় দেশটির জনগোষ্ঠী ইতোমধ্যে অনেক চাপের মুখে পড়েছে।

রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ভূমিকম্প অনুভূত
                                  

রাজধানী ঢাকাসহ দেশের কয়েকটি জেলায় ভূমিকম্প অনুভূত হয়েছে। কয়েক সেকেন্ড স্থায়ী হওয়া এই ভূমিকম্পে দুলেছে দিনাজপুর, রংপুর, কুড়িগ্রাম, পাবনা, লালমনিরহাট, গাইবান্ধা, শেরপুর, সিলেটসহ বেশ কয়েকটি জেলা। বুধবার সকাল ৯টা ১৫ মিনিটে এ ভূমিকম্প অনুভূত হয়। তাৎক্ষণিকভাবে ক্ষয়ক্ষতির কোনো খবর পাওয়া যায়নি। বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদফতরের ওয়ারলেস সুপাভাইজার মো. জহিরুল ইসলাম জানান, রিখটার স্কেলে ভূমিকম্পের মাত্রা ছিল ৫ দশমিক ২। এটি মাঝারি মাত্রার ভূমিকম্প। ভূমিকম্পের উৎপত্তিস্থল বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদফতরের ভূমিকম্প পরিমাপক কেন্দ্র থেকে ২৪২ কিলোমিটার উত্তরে ভারতের লখিপুরে ছিল বলেও জানান জহিরুল ইসলাম। তবে মার্কিন ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থার তথ্যানুসারে, এই ভূমিকম্পের উৎপত্তিস্থল ছিল ভারতের আসাম রাজ্যের লখিপুর শহর থেকে সাত কিলোমিটার দক্ষিণে। রিখটার স্কেলে এর মাত্রা ছিল ৫.৩। ভূমিকম্পের কেন্দ্র ছিল ভূ-পৃষ্ঠের ১০ কিলোমিটার গভীরে।

কাউন্সিলর আসাদের ‘বোতল ওয়েস্ট বিনে’ সুফল মিলছে
                                  

লাল রঙের বোতল আকৃতির পাত্রটি ফুটপাতের ওপর কাত করে রাখা। লোহা ও স্টিলের কাঠামোয় তৈরি এই বোতলের নিচে চাকা লাগানো। চলার পথে খুব সহজেই সবার দৃষ্টি পড়ে। কাছে গিয়ে দেখা যায়, এটি একটি ওয়েস্ট বিন। এর ভেতরে ব্যবহৃত প্লাস্টিকের বোতল, চা, কফি, আইসক্রিমের কাপ ও চিপসের প্যাকেটে ভরা। পাশে সড়ক বাতির খুঁটিতে ছোট্ট একটি সাইনবোর্ডে লেখা ‘বোতলের ভেতর প্লাস্টিক বর্জ্য ও বোতল রাখুন; জলাবদ্ধতা দূর করুন’। এই চিত্র ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রের (টিএসসি) সামনের। বোতল আকৃতির এই ওয়েস্ট বিন স্থাপন করেছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ২১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান আসাদ। তার এমন উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। এছাড়া বোতল আকৃতির এই ওয়েস্ট বিনের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে। সবাই শেয়ার দিয়ে আসাদুজ্জামানের এই উদ্যোগের প্রশংসা করছেন। শুধু টিএসসিতেই নয়, ঢাকা মেডিকেল কলেজের বহির্বিভাগের সামনে তথা শহীদ মিনারের পূর্ব পাশে এবং শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরের সামনে এমন আরও দুটি ওয়েস্ট বিন স্থাপন করা হয়েছে। প্রতিটি বিনের ভেতরেই বোতল, কাপ, চিপসের প্যাকেটের স্তূপ দেখা গেছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই-তৃতীয়াংশ এলাকা (জহুরুল হক হল, সলিমুল্লাহ মুসলিম হল, স্যার এ এফ রহমান হল, শামসুন নাহার হল, জগন্নাথ হল, কবি জসিম উদ্দিন হল, মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউর রহমান হল, সূর্যসেন হল, হাজী মোহম্মদ মহসিন হল, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল) ময়মনসিংহ লেন, ময়মনসিংহ রোড, পিজি ইনস্টিটিউট, জাতীয় জাদুঘর অফিসার্স কোয়াটার, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরি, পরীবাগ, পান্থকুঞ্জ, বাংলামটর এলাকা নিয়ে ডিএসসিসির ২১ নম্বর ওয়ার্ড। এই এলাকাগুলোর জনগুরুত্বপূর্ণ জায়গায় ক্রমান্বয়ে ওয়েস্ট বিন স্থাপন করা হবে বলে জানিয়েছেন আসাদুজ্জামান। পরীবাগের স্থানীয় বাসিন্দা মনিরুল ইসলাম। আলাপকালে তিনি জানান, ২০২০ সালের জানুয়ারিতে ২১ নম্বর ওয়ার্ডে কাউন্সিলর নির্বাচিত হন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্রনেতা মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান। এরপর থেকে তিনি এই এলাকার অবকাঠামোগত উন্নয়ন, সড়ক ফুটপাত থেকে অবৈধ দখলদার উচ্ছেদ, পরিষ্কার-পরিছন্নতা, জলাবদ্ধতা দূর করাসহ বিভিন্ন কাজের উদ্যোগ নেন। এখন বোতল আকৃতির এই ওয়েস্ট বিন স্থাপন করায় সবার কাছ থেকে ইতিবাচক সাড়া পেয়েছেন। আশা করি ভবিষ্যতেও তিনি তার বুদ্ধিমত্তা কাজে লাগিয়ে এলাকার উন্নয়ন করে যাবেন।

ডিএসসিসির ২১ নম্বর ওয়ার্ড কার্যালয় সূত্র জানায়, গত জুন মাসের মাঝামাঝি সময়ে ওই তিনটি ওয়েস্ট বিন স্থাপন করা হয়। প্রতিটি ওয়েস্ট বিন ছয় ফুট দৈর্ঘ্য, তিন ফুট প্রস্থের। একটি ওয়েস্ট বিন তৈরিতে খরচ হয়েছে প্রায় ২০ হাজার টাকা করে। এমন আরও আটটি বিন তৈরি করা হয়েছে। লকডাউনের পরপরই সেগুলো স্থাপন করা হবে। শনিবার (৩ জুলাই) সন্ধ্যা ৭টা। লকডাউনের মধ্যেও কয়েকজন যুবক টিএসসির সামনে বসে গান-গল্প করছিলেন। এ সময় তারা ভ্রাম্যমাণ দোকান থেকে প্লাস্টিকের কাপে চা খান। চা খাওয়ার পর নিজেরাই ওই ওয়েস্ট বিনে কাপটি ফেলেন। ওই যুবকদের একজন আদিল মাহমুদ। তিনি নিজেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র বলে দাবি করেন। তবে হল বন্ধ থাকায় এখন তিনি আজিমপুরে বাসা ভাড়া নিয়ে থাকেন। সন্ধ্যায় বন্ধুরা মিলে হাঁটতে হাঁটতে টিএসসিতে চলে আসছেন। আদিল মাহমুদ বলেন, ব্যতিক্রমী এই ওয়েস্ট বিন স্থাপনের পর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্ররা স্থানীয় কাউন্সিলরকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। এখন টিএসসি এলাকায় যারা আসেন সবাই নিজ উদ্যোগে ওয়েস্ট বিনে প্লাস্টিকের বোতল, পলিথিন রাখেন। এভাবে সবাই সচেতন হলে এবং ঢাকার অন্যান্য এলাকায় এমন বিন স্থাপন করা হলে কেউ রাস্তায় বর্জ্য ফেলবে না। ব্যতিক্রমী এই ওয়েস্ট বিন স্থাপনের বিষয়ে কথা হয় ২১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোহাম্মদ আসাদুজ্জামানের সঙ্গে। তিনি বলেন, বোতলটি তৈরি করার মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে, আমার ওয়ার্ডে যাতে জলাবদ্ধতা তৈরি না হয়। বিশেষ করে ফেলে দেয়া প্লাস্টিকসামগ্রী জলাবদ্ধতার সৃষ্টি করে। যখন আমরা নর্দমা পরিষ্কার করতে যায় তখন প্রত্যেকটা ম্যানহোলের বর্জ্যের অধিকাংশই বোতল বা প্লাস্টিকসামগ্রী পাই। বোতল থেকে মূলত জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। তখন আমি চিন্তা করলাম এই বোতলগুলো কি করা যায়, তা নিয়ে ভাবতে থাকি। কারণ মানুষকে জোর করে তো প্লাস্টিক নির্দিষ্ট স্থানের ফেলানো কঠিন। তাই আমি এই অভিনব পদ্ধতি গ্রহণ করি। তিনি বলেন, বোতলটি টিএসসিতে স্থাপনের পর মানুষ এটাকে পজিটিভলি নিয়েছে। এখন অনেকে প্লাস্টিক বোতল, আইসক্রিম, ওয়ান টাইম চায়ের কাপ এখানে ফেলছেন এবং সেলফি তুলছেন। আসাদুজ্জামান আরও বলেন, এখন যে আটটি বিন তৈরি করা হয়েছে, সেগুলো দোয়েল চত্বর, ফুলার রোড, ভিসি চত্বর, উদয়ন স্কুল, হাতিরপুল, বাংলামটর, পান্থকুঞ্জ পার্কে স্থাপন করা হবে। নিজ অর্থায়ন ও বন্ধুদের সহযোগিতায় এই উদ্যোগ বাস্তবায়ন করা হচ্ছে বলে জানান তিনি। টিকাটুলির ব্রাদার্স ক্লাব মাঠের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ডিএসসিসি মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস বলেন, আমি অত্যন্ত আনন্দিত এবং গর্বিত যে, এবার আমরা ভালো ভালো নির্বাচিত কাউন্সিলর পেয়েছি। তারা নিজ উদ্যোগে নিজ এলাকার সমস্যা সমাধানে কাজ করছেন। কাউন্সিলর আসাদুজ্জামান নিজস্ব উদ্যোগে যে ওয়েস্ট বিন স্থাপন করেছেন, এখন আমরা সেগুলোর সুফল পাচ্ছি।

করোনা টিকা নিবন্ধনের বয়স কমিয়ে ৩৫ করেছে সরকার
                                  

মহামারি করোনাভাইরাসের গণটিকার বয়স কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এর আগে টিকা গ্রহীতার বয়স সর্বনিম্ন ৪০ বছর থাকলেও এখন ৩৫ বছর থেকেই টিকার নিবন্ধন করা যাবে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। সোমবার (৫ জুলাই) বেলা ১১টায় অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এবিএম খুরশীদ আলম সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। এ সময় গণটিকার কার্যক্রম শিগগিরই চালু হবে বলে জানান তিনি। তিনি বলেন, এখন থেকে ৩৫ বছর বয়স হলেই করোনার টিকার জন্য নিববন্ধন করা যাবে। দু`এক দিনের মধ্যেই এবিষয়ে বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হবে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক জানান, খুব তাড়াতাড়িই খুলে দেওয়া হচ্ছে টিকা নিবন্ধন অ্যাপ। পাশাপাশি গণটিকার ক্ষেত্রে সর্বনিম্ন বয়সসীমা ৪০ থেকে কমিয়ে ৩৫ করা হচ্ছে। খুরশীদ আলম বলেন, নিবন্ধনের ক্ষেত্রে কৃষক-শ্রমিকদেরও যুক্ত করা হচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের (ইউজিসি) মাধ্যমে বিভিন্ন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ১ লাখ ৪৫ হাজার শিক্ষার্থীর পাওয়া তালিকা তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগকে দেওয়া হয়েছে। আজ আইসিটি বিভাগকে চিঠি পাঠানো হবে। দেশে টিকা নিবন্ধন শুরুর দিকে ৫৫ বছর বয়সীদের টিকার জন্য নিবন্ধন করার অনুমোদন দেওয়া হয়েছিল। পরে নিবন্ধন কম হওয়ায় আরো বেশি সংখ্যক মানুষকে টিকার আওতায় আনতে বয়স কমানোর সিদ্ধান্ত নেয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। সে সময় ৫৫ থেকে বয়স ৪৪ বছর করা হয়। এবার তৃতীয় দফায় টিকা গ্রহীতাদের বয়স কমিয়ে ৩৫ বছর করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। স্বাস্থ্য মহাপরিচালক বলেন, আপাতত তিনটি ক্যাটাগরিতে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে নিবন্ধন কার্যক্রম চলছে। দু`এক দিনের মধ্যেই সবার জন্য নিবন্ধন কার্যক্রম উন্মুক্ত করে দেওয়া হবে এবং সুরক্ষা অ্যাপে আগের সবগুলো ক্যাটাগরি যুক্ত করে দেওয়া হবে। টিকা প্রসঙ্গে খুরশীদ আলম বলেন, মর্ডানার টিকা শিগগিরই আমরা প্রয়োগ শুরু করে দেব। সেক্ষেত্রে অগ্রাধিকারপ্রাপ্তরা পাবেন মডার্নার টিকা। যারা আগে নিবন্ধন করেছেন, তারাই আগে টিকা পাবেন। মডার্নার টিকা প্রয়োগ ১০ দিনের মধ্যে শুরু হতে পারে জানিয়ে অধ্যাপক আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম বলেন, যিনি যে কেন্দ্রে নিবন্ধন করবেন তিনি নির্দিষ্ট কেন্দ্রেই টিকা পাবেন। কেউ মডার্নার টিকা নিতে চাইলে তাকে সিটি করপোরেশন এলাকায় নিবন্ধন করতে হবে।

রাজধানীতে আটক-জরিমানায় চলছে কঠোর লকডাউনের পঞ্চম দিন
                                  

মানুষ নানা প্রয়োজনে বাসা থেকে বের হচ্ছেন। কোনোভাবেই তাদের থামানো যাচ্ছে না। বিশেষ করে নিন্মআয়ের মানুষের অবস্থা সব চেয়ে খারাপ। যারা দিনে এনে দিনে খায় তারা চরম কষ্টের মধ্যে দিনযাপন করছেন। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সরকারঘোষিত সাত দিনের কঠোর লকডাউনের পঞ্চম দিন চলছে আজ। বৃষ্টি উপেক্ষা করে লকডাউন কার্যকরে মাঠে রয়েছেন পুলিশ, সেনাবাহিনী, বিজিবি ও র‌্যাব সদস্যরা। রাজধানীর বিভিন্ন জায়গায় চেকপোস্ট বসিয়ে তল্লাশি চালানো হচ্ছে। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের হলে জরিমানা এবং গ্রেপ্তারও করা হচ্ছে। তবে জরুরি পরিষেবায় নিয়োজিতরা পরিচয়পত্র দেখিয়ে ও প্রয়োজনীয়তার বিষয়টি তল্লাশির সময় আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে জানিয়ে গন্তব্যে বা কর্মস্থলে যেতে পারছেন। আজ সোমবার ব্যাংক বিমা এবং শেয়ার বাজার খুলছে। তবে লেনদেন হবে সীমিত পরিসরে। ব্যাংক লেনদেন চলবে সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত। শেয়ারবাজার ১০টা থেকে ১টা এবং বীমা ১০ থেকে ২টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। রাজধানীর অলিগলিতে মানুষের সমাগত খুব বেশি।

কঠোর লকডাউনেও রাজধানীতে যানজট
                                  

সরকারের ঘোষণা অনুসারে চলছে ‘সর্বাত্মক লকডাউন’। তা সত্ত্বেও আজ পঞ্চম দিনে রাজধানীর রাস্তা আবারো সেই চিরচেনা রূপে ফিরেছে। সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি মাথায় নিয়েই খুলেছে ব্যাংক-বিমা, শেয়ার বাজার ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান। ফলে সকাল থেকেই মানুষের চলাচল বেড়েছে রাজধানীর সড়কে। গন্তব্যে পৌঁছাতে প্রাইভেটকার, মাইক্রোবাস, স্টাফ বাস, মোটরসাইকেল, রিকশা ও ব্যক্তিগত সিএনজিই এখন মানুষের ভরসা। সোমবার (৫ জুলাই) রাজধানীর মিরপুর রোডের শুক্রাবাদ, কলাবাগান, ধানমন্ডি-২৭, ধানমন্ডি-৩২ ও পান্থপথ সড়ক ঘুরে দেখা যায়, সকাল থেকেই এসব সড়কে ছিল অফিসমুখী মানুষের চাপ। প্রাইভেটকার, মাইক্রোবাস, স্টাফ বাসসহ অন্যান্য গাড়ির চাপে প্রায় প্রতিটি ট্রাফিক সিগন্যালেই তৈরি হয় যানজটের। সড়কে মানুষের চলাচল বাড়লেও লকডাউন বাস্তবায়নে চেকপোস্টগুলোতে জিজ্ঞাসাবাদ করতে দেখা গেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) ট্রাফিক বিভাগ এবং সংশ্লিষ্ট থানা পুলিশের সমন্বিত এসব চেকপোস্টে পুলিশের পাশাপাশি সেনা সদস্যদেরও দেখা যায়। ধানমন্ডি-৩২ নম্বর এলাকার রাসেল স্কয়ার মোড়ের চেকপোস্টে যৌথ তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ ও সেনাবাহিনী। চেকপোস্ট পার হতে ব্যাংক কর্মকর্তা অথবা সংশ্লিষ্ট আর্থিক প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা, কর্মচারীদের নিজের পরিচয় দিতে হচ্ছিল। দেখাতে হচ্ছিল নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের বৈধ পরিচয়পত্র। এ সময় অনেককেই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের সঙ্গে বাকবিতণ্ডায় লিপ্ত হতে দেখা যায়। সংশ্লিষ্ট আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা বলছেন, ব্যাংক-বিমা ও শেয়ারবাজার খোলার অজুহাতে অনেকেই অকারণে এবং ব্যক্তিগত প্রয়োজনে ঘর থেকে বের হয়ে নানান অজুহাত দিচ্ছেন। এসব নিয়ন্ত্রণে চেকপোস্টগুলোতে তৎপরতা বাড়ানো হয়েছে। কলাবাগান এলাকার চেকপোস্টে দায়িত্ব পালন করছেন কলাবাগান থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক সুমিত আহমেদ, তিনি বলেন, সড়কে যারা বের হয়ে জরুরি পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন, তাদের প্রাতিষ্ঠানিক বৈধ পরিচয় পত্র দেখানোর পরই যেতে দেওয়া হচ্ছে। গত চার দিনের তুলনায় আজ সড়ক একটু বেশি চাপ যাচ্ছে। অকারণে সড়কে বের হয়েছেন এমন মানুষের সংখ্যাও অনেক। ব্যাংক-বিমা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন এমন অজুহাত দিয়ে অনেকেই ব্যক্তিগত কাজে বের হয়েছেন বলে জানান ট্রাফিক পুলিশের ধানমন্ডি জোনের উপ-কমিশনার জাহিদুল ইসলাম। তিনি বলেন, আজ থেকে ব্যাংক খোলা হওয়ায় সড়কে অন্যান্য দিনের তুলনায় গাড়ির চাপ বেড়েছে। গত চারদিন ধরে শুধু হাসপাতাল এবং অন্যান্য জরুরি পরিষেবায় যারা যুক্ত ছিলেন, তাদের চলাচল ছিল। আজ আবার ব্যাংক কর্মকর্তা-কর্মচারীদের গাড়িও যুক্ত হয়েছে। তবে এই ফাঁকে অনেকেই নিজেদের ব্যক্তিগত কাজেও বের হচ্ছেন।

লকডাউনের পঞ্চম দিন: চলাচল বেড়েছে, দোকানও খুলছে
                                  
কাল থেকে টিসিবির পণ্য বিক্রি শুরু
                                  

করোনা সংক্রমণের সময় ভোক্তাদের কম দামে পণ্য সরবরাহ করতে আবারও ট্রাক সেল চালু করছে ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি)। আগামীকাল সোমবার থেকে এ ট্রাক সেল শুরু হবে সারাদেশে। মাঝে ঈদের কয়েকদিন সাধারণ ছুটি বাদে চলবে ২৯ জুলাই পর্যন্ত। একইসঙ্গে এ দফায় ডিলারদের জন্য পণ্য বরাদ্দ বাড়ানোর কথা ভাবছে সংস্থাটি। টিসিবির যুগ্ম পরিচালক ও মুখপাত্র হুমায়ুন কবির বলেন, করোনার সময় কম দামে পণ্য সরবরাহ করতে উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। মানুষ যেন বেশি বেশি করে পণ্য পায় এজন্য ডিলারদের বরাদ্দ বাড়ানো হচ্ছে। টিসিবির এই কর্মকর্তা বলেন, করোনায় সাধারণ ক্রেতাদের কথা চিন্তা করে প্রতিটি ট্রাকে আগের চেয়ে বেশি তেল, ডাল ও চিনি সরবরাহ করা হবে। তবে কী পরিমাণ বাড়ানো হবে এই মুহূর্তে বলা যাচ্ছে না। ভোক্তাদের চাহিদা মোতাবেক পণ্য সরবরাহ করাই আমাদের লক্ষ্য। ইতোমধ্যে দেশজুড়ে টিসিবির ৪০০ ভ্রাম্যমাণ ট্রাকে পণ্য বিক্রি করা হচ্ছে। এর মধ্যে ঢাকা সিটিতে ৮০টি ও চট্টগ্রাম সিটিতে ২০টি ট্রাক রয়েছে। এছাড়াও প্রতিটি মহানগর ও জেলা শহরেও ট্রাক সেলের মাধ্যমে পণ্য বিক্রি করা হবে। এসব ট্রাকে কেজিপ্রতি ৫৫ টাকা দরে চিনি ও ডাল এবং লিটারপ্রতি ১০০ টাকা দরে সয়াবিন তেল বিক্রি করা হবে। পাশাপাশি টিসিবির বিক্রয় কেন্দ্রগুলোতে পাওয়া যাবে সকল পণ্য। বর্তমানে টিসিবির প্রতিটি ট্রাকে ৬০০-৮০০ কেজি চিনি, ৩০০-৬০০ কেজি মসুর ডাল এবং ৮০০-১২০০ লিটার সয়াবিন তেল বরাদ্দ রাখা হয়েছে। এই বরাদ্দ বাড়বে। একজন ব্যক্তি দৈনিক ২-৪ কেজি চিনি, ২ কেজি ডাল এবং ২-৫ লিটার ভোজ্যতেল কিনতে পারবেন।

লকডাউনেও পশুর হাট
                                  

করোনার ভয়াবহ সংক্রমণের মুখে দেশব্যাপী লকডাউন পরিস্থিতির মধ্যেও দেশের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলার বাজারে কুরবানির পশুর হাট বসানোর অভিযোগ উঠেছে। এসব হাটে স্বাস্থ্যবিধি মানা ও সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত না করায় সংক্রমণ বাড়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। অন্যদিকে লকডাউনে গরুর হাট বসবে কিনা এ বিষয়ে স্পষ্ট কোনও নির্দেশনা না থাকায় প্রশাসনও সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারছে না বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। লকডাউনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য প্রশাসনের প্রচার-প্রচারণা ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান অব্যাহত থাকলেও জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলার নাপিতেরচর গাইবান্ধা গরুর হাট বসেছে। এসব হাটে স্বাস্থ্যবিধি মানার কোনও বালাই ছিল না। হাটে আসা বেশিরভাগ ক্রেতা-বিক্রেতার মুখে মাস্ক দেখা যায়নি। এছাড়া উপজেলার পোড়ারচর, কান্দারচর, পচাবহলা, সিরাজাদাবাদ, ডিগ্রিরচর, টানাব্রিজ, ঝগড়ারচর, মলমগঞ্জ, কুলকান্দী, কড়ইতলা, হাড়গিলা, কাজলা একতা, কাঠমা জনতা বাজারসহ বিভিন্ন বাজারে মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি। উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এস. এম. মাজহারুল ইসলাম জানান, স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাজার করাসহ দৈনন্দিন জীবনে সব ধরনের কাজকর্ম করতে জনগণকে সচেতন করে যাচ্ছি। লকডাউন বাস্তবায়নে নিয়মিত ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হচ্ছে বলে জানান তিনি। এদিকে, করোনার সংক্রমণরোধে পঞ্চগড় জেলায় চলছে লকডাউন। তবে বিভিন্নস্থানে বসছে পশুর হাট। শনিবার জেলার বোদা উপজেলার নগরকুমারী পশুরহাট বসেছে। হাটে স্বাস্থ্যবিধি মানতে দেখা যায়নি ক্রেতা-বিক্রেতাদের। জানা যায়, সপ্তাহের প্রতি শনিবার ও বুধবার ঐতিহ্যবাহী হাটটি বসে। অন্যদিকে রবিবার জেলার দেবীগঞ্জ উপজেলার চিলাহাটি ইউনিয়নের ভাউলাগঞ্জ হাট বসার আগে প্রচার-প্রচারণা চালানোর অভিযোগ উঠেছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে দেবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রত্যয় হাসান বলেন, গরুর হাট বসার বিষয়ে কোনও বিধিনিষেধ নেই, বন্ধেরও কোনও নির্দেশনা আসেনি। বোদা নগরকুমারী হাটের ইজারাদার মো. আব্দুর রহমান জানান, লকডাউনে কুরবানির পশুর হাট বন্ধের বিষয়ে কোনও নির্দেশনা ছিল না। স্বাস্থ্যবিধি মেনে পশুর হাট বসানো হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি। বোদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সোলেমান আলী জানান, সকাল থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত পশুরহাট চলেছে। শতভাগ স্বাস্থ্যবিধি মেনে কুরবানির পশুর হাট বসানোর নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। পশুর হাটে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে তৎপর রয়েছে উপজেলা ও পুলিশ প্রশাসন। পশুরহাট বন্ধের বিষয়ে কোনও নির্দেশনা নেই, তবে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নির্দেশনা পেলে হাট বন্ধ করে দেওয়া হবে। অন্যদিকে, সর্বাত্মক লকডাউনের মধ্যেই হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে বসেছিল জনতার বাজার পশুহাট। তবে নির্ধারিত সময়ের পর বাজার বন্ধ করে দেয় উপজেলা প্রশাসন। শনিবার (৩ জুলাই) বিকালে সাড়ে ৫টায় জনতার বাজার পশুর হাট বন্ধ করে দেওয়া হয়। জানা যায়, জনতার বাজার পশুহাট ঢাকা সিলেট মহাসড়ক ঘেঁষা নবীগঞ্জ উপজেলার গজনাইপুর ইউনিয়নে অবস্থিত। আসন্ন ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে জনতার বাজার পশুহাট শনিবার-সোমবার বসছে। শনিবার সকাল থেকেই জনতার বাজার পশুর হাটে বিভিন্ন জেলা উপজেলা থেকে কুরবানির পশু কেনাবেচা করতে আসেন ক্রেতা-বিক্রেতারা। সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি না মেনেই চলেছে কেনাবেচা। এ সময় অধিকাংশ ক্রেতা-বিক্রেতার মুখেই ছিল না মাস্ক। কারও কারও মাস্ক থাকলেও তা ছিল পকেটে বা থুতনির নিচে। পরে প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাইকিং করে স্বাস্থ্য সচেনতা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহবান জানানো হয়। সেখানে বাজার কমিটির নেতৃবৃন্দের সঙ্গে কথা বলে পশুর হাট বন্ধ করে দেওয়া হয়। এদিকে, সরকারি নির্দেশনা উপেক্ষা করে শুক্রবার বিকাল ৪টা পর্যন্ত গলাচিপা উপজেলার গোলখালী ইউনিয়নের নলুয়াবাগী এলাকায় পশুর হাট বসানো হয়। এসময় পশুর হাটে না ছিল সামাজিক দূরত্ব না ছিল স্বাস্থ্যবিধি মানার কোনও দৃশ্য। পরে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে হাট বন্ধ হয়। তবে এ সময় কাউকে আটক বা জরিমানা করা হয়নি।


   Page 1 of 76
     জাতীয়
এলজিইডিতে করোনা মোকাবেলায় নানা কর্মসূচি নিয়েছেন
.............................................................................................
রূপগঞ্জে হতাহতদের পরিবারকে সমবেদনা জানাতে যাচ্ছেন ডা. জাফরুল্লাহ
.............................................................................................
কারখানা শ্রমিকদের জীবন নিরাপদ হয়নি: জিএম কাদের
.............................................................................................
সরকারি অফিসের সব দাপ্তরিক কাজ ভার্চ্যুয়ালি করার নির্দেশ
.............................................................................................
অভিনেতা দিলীপ কুমারের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক
.............................................................................................
গাড়ির চাপ সামলাতে হিমশিম খাচ্ছে ট্রাফিক পুলিশ
.............................................................................................
শক্তিশালী পাসপোর্ট সূচকে আট ধাপ পেছালো বাংলাদেশ
.............................................................................................
সংঘাত কবলিত মোজাম্বিকে খাদ্য সংকট আসন্ন : ডব্লিউএফপি
.............................................................................................
রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ভূমিকম্প অনুভূত
.............................................................................................
কাউন্সিলর আসাদের ‘বোতল ওয়েস্ট বিনে’ সুফল মিলছে
.............................................................................................
করোনা টিকা নিবন্ধনের বয়স কমিয়ে ৩৫ করেছে সরকার
.............................................................................................
রাজধানীতে আটক-জরিমানায় চলছে কঠোর লকডাউনের পঞ্চম দিন
.............................................................................................
কঠোর লকডাউনেও রাজধানীতে যানজট
.............................................................................................
লকডাউনের পঞ্চম দিন: চলাচল বেড়েছে, দোকানও খুলছে
.............................................................................................
কাল থেকে টিসিবির পণ্য বিক্রি শুরু
.............................................................................................
লকডাউনেও পশুর হাট
.............................................................................................
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম; আসছে নতুন আইন
.............................................................................................
বিধিনিষেধের চতুর্থ দিনে সড়কে বেড়েছে যানবাহন, চেকপোস্টে জট
.............................................................................................
মগবাজারে বিস্ফোরণের ঘটনাস্থল থেকে বের হচ্ছে গ্যাস
.............................................................................................
বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়ন যুবলীগের একমাত্র চাওয়া - নিখিল
.............................................................................................
ঢাকাসহ চার বিভাগে হতে পারে ভারী বর্ষণ
.............................................................................................
দ্বিতীয় দফায় টিকাদান শুরু
.............................................................................................
কোভিড হিরো হলেন ডা. মামুন আল মাহতাব (স্বপ্নীল)
.............................................................................................
এক দশকে বসবাসের অযোগ্য হবে ঢাকাসহ পাঁচ মহানগরী!
.............................................................................................
জুলাইয়ে আবারও গণটিকা কার্যক্রম শুরু হবে: প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব
.............................................................................................
শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস প্রকৃতপক্ষে গণতন্ত্রের মুক্তি দিবস: তথ্যমন্ত্রী
.............................................................................................
সব বিভাগে আজও বৃষ্টি হতে পারে
.............................................................................................
উপনির্বাচনে নৌকার মাঝি হলেন যারা
.............................................................................................
মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি পেলেন আরও ১৬ বীরাঙ্গনা
.............................................................................................
‘সম্মিলিত প্রচেষ্টায় শিশুশ্রম নিরসন সম্ভব’
.............................................................................................
গুচ্ছভর্তি পরীক্ষা স্থগিত
.............................................................................................
মৌসুমী বায়ুর সক্রিয়তায় আরও বাড়বে বৃষ্টি
.............................................................................................
কারা টাকা নিয়ে যায়, লিস্ট আমার কাছে নেই : সংসদে অর্থমন্ত্রী
.............................................................................................
৯ জুন থেকে আরও ১৯ জোড়া ট্রেন চলবে
.............................................................................................
টিকা আনার সব চূড়ান্ত, অপেক্ষা পৌঁছানোর
.............................................................................................
আজও থাকবে দিনভর বৃষ্টি : আবহাওয়া অধিদপ্তর
.............................................................................................
মহাখালীর সাততলা বস্তিতে আগুনের ঘটনায় তদন্ত কমিটি
.............................................................................................
প্রধানমন্ত্রী আজ বৃক্ষরোপণ অভিযান উদ্বোধন করবেন
.............................................................................................
তুরস্ক সফর শেষে দেশে ফিরেছেন নৌপ্রধান
.............................................................................................
অবস্থা বুঝে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে সিধান্ত নেওয়া হবে
.............................................................................................
রাজশাহী থেকে ঢাকায় আসবে প্রতি কেজি আম দেড় টাকায়
.............................................................................................
বন্ধ করে দেওয়া হবে বেসরকারি কলেজে অনার্স-মাস্টার্স - শিক্ষামন্ত্রী
.............................................................................................
বাংলাদেশের জিডিপি ভারত-পাকিস্তানের পর চীনকেও ছাড়িয়ে গেছে
.............................................................................................
স্কুল-কলেজ খোলা হবে ১৩ জুন - শিক্ষামন্ত্রী
.............................................................................................
আমির হামজার ১০ দিনের রিমান্ড চেয়েছে পুলিশ
.............................................................................................
`উন্নয়নশীল ভবিষ্যতের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে কমনওয়েলথ`
.............................................................................................
আসন্ন ঘূর্ণিঝড় ‌‘যশ’ মোকাবিলায় নেওয়া হয়েছে সব ধরনের প্রস্তুতি - ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী
.............................................................................................
নিষেধাজ্ঞা বহালই থাকছে ইসরায়েল ভ্রমণে
.............................................................................................
সমন্বিত যোগাযোগ ব্যবস্থা ছাড়া সুষম উন্নয়ন কখনোই সম্ভব হবে না : রেলমন্ত্রী
.............................................................................................
ঘূর্ণিঝড় ‘যশ’ মোকাবিলায় প্রস্তুত আশ্রয়কেন্দ্র ও মেডিকেল টিম
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো : মাহবুবুর রহমান ।
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মো: হাবিবুর রহমান । সম্পাদক কর্তৃক বিএস প্রিন্টিং প্রেস ৫২/২ টয়েনবি সার্কুলার রোড, সুত্রাপুর ঢাকা খেকে মুদ্রিত
ও ৬০/ই/১ পুরানা পল্টন (৭ম তলা) থেকে প্রকাশিত বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৫১,৫১/ এ রিসোর্সফুল পল্টন সিটি (৪র্থ তলা), পুরানা পল্টন, ঢাকা -১০০০।
ফোনঃ-০২-৯৫৫০৮৭২ , ০১৭১১১৩৬২২৬

Web: www.bhorersomoy.com E-mail : dbsomoy2010@gmail.com
   All Right Reserved By www.bhorersomoy.com Developed By: Dynamic Solution IT & Dynamic Scale BD