ঢাকা,বৃহস্পতিবার,৬ কার্তিক ১৪২৮,২১,অক্টোবর,২০২১
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : * কোনো বিভাগ দেবো না, কু- নাম দিয়ে : প্রধানমন্ত্রী   * কমছে পেঁয়াজের দাম   * বদরুন্নেসার সেই শিক্ষিকার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা   * ব্যর্থতা ঢাকতে সাম্প্রদায়িকতার দানব জাগিয়ে তুলেছে সরকার: রিজভী   * পুরোনো রেকর্ড বাজিয়ে যাচ্ছেন বিএনপি নেতারা : কাদের   * দেশে অন্ধত্ব কমেছে ৩৫ শতাংশ: স্বাস্থ্যমন্ত্রী   * শিগগির ট্রেনের টিকিট সম্পূর্ণ অনলাইন করা হবে   * আটক ৩, বিমানবন্দরে ট্রেনে পাথর নিক্ষেপ   * রাতে আসছে সিনোফার্মের আরও ৫৫ লাখ টিকা   * জিআই সনদ পাচ্ছে ফজলি আম ও বাগদা চিংড়ি  

   আর্ন্তজাতিক -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
লিবিয়ায় নারী-শিশুসহ ৪ হাজার অভিবাসী আটক

লিবিয়ার পশ্চিমাঞ্চলের গ্যারগ্যারেস শহরে অভিযান চালিয়ে নারী-শিশুসহ চার হাজার অভিবাসীকে আটক করেছে দেশটির আইনশৃঙ্খলা রক্ষাবাহিনী। স্থানীয় সময় শুক্রবার মাদকবিরোধী ও অবৈধ অভিবাসীদের ধরতে এ অভিযান চালায় তারা। দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ অভিযান পরিচালনা করছে। তবে তারা কোনো মাদক চোরাকারবারী বা মানবপাচারকারী আটক হয়েছে কিনা তা নিশ্চিত করেনি। দেশটির কর্তৃপক্ষ শুক্রবার পাঁচশ জন অবৈধ অভিবাসীকে আটকের কথা বললেও শনিবার জানা গেছে, আটকের সংখ্যা চার হাজার। রাজধানী ত্রিপলি থেকে ১২ কিলোমিটার (৭ দশমিক ৫ মাইল) পশ্চিমে গ্যারগ্যারেস শহর। এটি অভিবাসী ও শরণার্থীদের কেন্দ্র বলে পরিচিত। কয়েক বছর ধরে অভিযান চালিয়ে অভিবাসীদের ধরপাকড় করা হচ্ছে সেখানে, এমন অভিযোগ মানবাধিকার সংস্থাগুলোর। এবারের অভিযান সবচেয়ে বেশি ভয়ানক বলছেন মানবাধিকার কর্মীরা। লিবিয়ায় বিভিন্ন সময় অভিবাসন প্রত্যাশীদের ধরপাকড়, নির্যাতন, অপহরণ ও হত্যার বিস্তর অভিযোগ রয়েছে। বিশেষ করে ২০১১ সালে ন্যাটো বাহিনীর হাতে মুয়াম্মার গাদ্দাফি নিহত হওয়ার পর চরম অস্থিরতা তৈরি হয় দেশটিতে। অভাবের কারণে আফ্রিকা ও মধ্যপ্রাচ্য থেকে বহু মানুষ ইউরোপে উন্নত জীবনের আশায় ঝুঁকি নিয়ে পাড়ি জমান সমুদ্রপথে। লিবিয়াকে ট্রানজিট হিসেবে ব্যবহার করার সময় বিপদে পড়েন তারা।

লিবিয়ায় নারী-শিশুসহ ৪ হাজার অভিবাসী আটক
                                  

লিবিয়ার পশ্চিমাঞ্চলের গ্যারগ্যারেস শহরে অভিযান চালিয়ে নারী-শিশুসহ চার হাজার অভিবাসীকে আটক করেছে দেশটির আইনশৃঙ্খলা রক্ষাবাহিনী। স্থানীয় সময় শুক্রবার মাদকবিরোধী ও অবৈধ অভিবাসীদের ধরতে এ অভিযান চালায় তারা। দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ অভিযান পরিচালনা করছে। তবে তারা কোনো মাদক চোরাকারবারী বা মানবপাচারকারী আটক হয়েছে কিনা তা নিশ্চিত করেনি। দেশটির কর্তৃপক্ষ শুক্রবার পাঁচশ জন অবৈধ অভিবাসীকে আটকের কথা বললেও শনিবার জানা গেছে, আটকের সংখ্যা চার হাজার। রাজধানী ত্রিপলি থেকে ১২ কিলোমিটার (৭ দশমিক ৫ মাইল) পশ্চিমে গ্যারগ্যারেস শহর। এটি অভিবাসী ও শরণার্থীদের কেন্দ্র বলে পরিচিত। কয়েক বছর ধরে অভিযান চালিয়ে অভিবাসীদের ধরপাকড় করা হচ্ছে সেখানে, এমন অভিযোগ মানবাধিকার সংস্থাগুলোর। এবারের অভিযান সবচেয়ে বেশি ভয়ানক বলছেন মানবাধিকার কর্মীরা। লিবিয়ায় বিভিন্ন সময় অভিবাসন প্রত্যাশীদের ধরপাকড়, নির্যাতন, অপহরণ ও হত্যার বিস্তর অভিযোগ রয়েছে। বিশেষ করে ২০১১ সালে ন্যাটো বাহিনীর হাতে মুয়াম্মার গাদ্দাফি নিহত হওয়ার পর চরম অস্থিরতা তৈরি হয় দেশটিতে। অভাবের কারণে আফ্রিকা ও মধ্যপ্রাচ্য থেকে বহু মানুষ ইউরোপে উন্নত জীবনের আশায় ঝুঁকি নিয়ে পাড়ি জমান সমুদ্রপথে। লিবিয়াকে ট্রানজিট হিসেবে ব্যবহার করার সময় বিপদে পড়েন তারা।

ভোটে এগিয়ে মমতা ভবানীপুরে
                                  


ভোট গণনা চলছে ভবানীপুর উপনির্বাচনের। তৃতীয় রাউন্ড শেষে ৪৬০০ ভোটে এগিয়ে রয়েছেন মমতা ব্যানার্জী। মোট ২১ রাউন্ড গণনা হবে। এর পরই ফল প্রকাশ। পোস্টাল ব্যালট গণনাও এগিয়ে আছেন মুখ্যমন্ত্রী। ৭৭৫ পোস্টাল ব্যালটের গণনা শেষ হয়েছে এরইমধ্যে। অন্যদিকে, মুর্শিদাবাদের দুই কেন্দ্রে চলছে পোস্টাল ব্যালট গণনা। দু’টি কেন্দ্রেই এগিয়ে রয়েছে তৃণমূল। শমসেরগঞ্জে ২৫০ ভোটে এগিয়ে তৃণমূল প্রার্থী আমিরুল ইসলাম। জঙ্গিপুরে ১৭১৭ ভোটে এগিয়ে আছেন তৃণমূল প্রার্থী জাকির হুসেন  |

বিয়ে করলেন যুবক! রাইস কুকারকে
                                  


বিয়ে নিয়ে প্রতিনিয়তই ঘটছে নানা অদ্ভুত ঘটনা। বিয়ের জন্য শুধু নারী-পুরুষ চারহাত এক করার রীতিকে তোয়াক্কা না করেই পছন্দের জিনিসটিকে বিয়ে করেছেন অনেকে। কয়েক মাস আগেই কাজাখস্তানের এক ব্যক্তি তার দুই বছরের শয্যাসঙ্গী পুতুলটিকে বিয়ে করে একেবারে হইচই ফেলে দিয়েছিলেন। তবে এবার একজন পুরুষ তার বাড়ির রাইস কুকারের প্রেমে পড়ে বিয়ে করেছে। মাইক্রোব্লগিং সাইট টুইটারে ভাইরাল হওয়া পোস্টে দেখা যায়, বিয়ের আগে প্রিয় রাইস কুকারটিকে কনের সাজে সাজিয়েছেন সেই ব্যক্তি। এরপর প্রথা ও আইন মেনে বিয়ের প্রক্রিয়া সম্পন্ন করছেন। ভাইরাল হওয়া সেই পোস্টে তাকে রাইস কুকারটিকে চুমুও খেতে দেখা গেছে। ছবির ক্যাপশনে লেখা রয়েছে, ‘সাদা, চুপচাপ, রান্নায় পারদর্শী, স্বপ্নের মতো।’ কাহিরোল আনাম নামের এই ইন্দোনেশিয়ান ব্যক্তি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তার এই অদ্ভুত বিয়ের খবরটি জানিয়েছেন। তার দাবি, গত ২০ সেপ্টেম্বর বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সেরেছেন তিনি। ফেসবুক পোস্টের ক্যাপশনে তিনি লিখেছেন, ‘সাদা, চুপচাপ, পারফেক্ট। খুব বেশি কথা বলে না, রান্নায় ভালো, স্বপ্ন সত্যি হলো। তোমাকে ছাড়া আমার ভাত রান্না হয় না।’ নেটিজেনদের মধ্যে বেশ কৌতূহল জাগিয়েছে এই বিয়ে। একজন পোস্টের নিচে মন্তব্য করেছেন, ‘আমার এয়ার ফ্রাইয়ারকে বিয়ের কথা ভাবছি।’ অপর একজন লিখেছেন, ‘এটা সত্যিই অসাধারণ।’ অন্যদিকে, বিস্ময় নিয়ে একজন প্রশ্ন করেছেন, ‘এই ব্যক্তি কি রাইস কুকারকে বিয়ে করেছেন?’ তবে এই বিয়ে বেশিদিন স্থায়ী হয়নি। চারদিন পরেই ডিভোর্সের ঘোষণা দেন আনাম। কারণ হিসেবে তিনি জানান, ভাত চমৎকার হলেও অন্য পদের রান্নায় পারদর্শী না এই রাইস কুকার।

দুই মাস লকডাউনের পরেও মেলবোর্নে করোনা সংক্রমণের রেকর্ড
                                  

দুই মাস লকডাউনে থাকার পরেও দৈনিক করোনা রোগী শনাক্তে নতুন রেকর্ড গড়েছে মেলবোর্ন। বৃহস্পতিবার (৩০ সেপ্টেম্বর) প্রকাশিত তথ্য অনুসারে, অস্ট্রেলীয় শহরটিতে দৈনিক সংক্রমণের হার বেড়েছে প্রায় ৫০ শতাংশ। এর জন্য বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে স্থানীয়দের ‘হোম পার্টি’ আয়োজনকে দায়ী করেছে কর্তৃপক্ষ। অস্ট্রেলীয় সংবাদমাধ্যমের খবর অনুসারে, বুধবার (২৯ সেপ্টেম্বর) দেশটির ভিক্টোরিয়া অঙ্গরাজ্যে নতুন করে ১ হাজার ৪৩৮ জন করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছেন, যা এযাবৎকালের সর্বোচ্চ। একই সময় মারা গেছেন অন্তত পাঁচজন। নতুন রোগীদের মধ্যে এক-চতুর্থাংশই শনাক্ত হয়েছেন পূর্ব ও দক্ষিণপূর্ব মেলবোর্নে। গত সপ্তাহে অস্ট্রেলিয়ান রুলস ফুটবল গ্রান্ড ফিনালে দেখতে বিভিন্ন বাড়িতে পার্টির আয়োজন করেছিলেন স্থানীয়রা। হঠাৎ সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার পেছনে এই জমায়েতের বড় ভূমিকা থাকতে পারে বলে মনে করছে ভিক্টোরিয়া কর্তৃপক্ষ। রাজ্যপ্রধান ড্যানিয়েল অ্যান্ড্রুস এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, এসব ঘটনার অনেকগুলোই সম্পূর্ণ পরিহারযোগ্য ছিল। আমি কাউকে দোষারোপ করছি না, শুধু ব্যাখ্যা করার চেষ্টা করছি। কারণ অনেক লোকই এখন মাথা চুলকাবে- সংক্রমণ কীভাবে এত দ্রুত বেড়ে গেলো? গত বুধবার ৯৫০ জন নতুন করোনা রোগী শনাক্তের কথা জানিয়েছিল ভিক্টোরিয়া কর্তৃপক্ষ। কিন্তু মাত্র একদিনের ব্যবধানে তা বেড়ে দেড় হাজারের কাছাকাছি পৌঁছেছে। অথচ অতিসংক্রামক ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের বিস্তার ও মহামারির তৃতীয় ঢেউ ঠেকাতে অস্ট্রেলিয়ায় সিডনি, মেলবোর্নের মতো বড় শহরগুলোতে কয়েক সপ্তাহ ধরে লকডাউন চলছে। এই বন্দিদশা থেকে মুক্তি পেতে কোভিড-জিরো কৌশল বাদ দিয়ে সম্প্রতি উচ্চমাত্রায় টিকাদানের পথ বেছে নিয়েছে অস্ট্রেলীয় কর্তৃপক্ষ। এরই মধ্যে দেশটিতে ১৬ বছরের ঊর্ধ্বে ৫৩ শতাংশ মানুষকে টিকা দেওয়ার দাবি করেছে অস্ট্রেলিয়া সরকার। তবে ভিক্টোরিয়া অঙ্গরাজ্যে এর হার কিছুটা কম।

‘ব্লুটুথ স্যান্ডেল’ শিক্ষক নিয়োগের পরীক্ষায় নকল করতে
                                  

 
সরকারি স্কুলের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় ‘ব্লুটুথ স্যান্ডেল’ পরে নকল করার দায়ে ভারতে পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পরীক্ষায় নকলে সহায়তার জন্য তাদের স্যান্ডেলগুলো ছিল বিশেষভাবে তৈরি। এর ভেতরে বসানো হয়েছিল গোটা একটি মোবাইল ফোনের যন্ত্রাংশ, সঙ্গে ব্লুটুথ ডিভাইস। আর এ প্রতারণা ঘিরে সেখানে বিশাল একটি চক্রই গড়ে উঠেছে বলে জানিয়েছে স্থানীয় পুলিশ।ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানিয়েছে, গত রোববার (২৬ সেপ্টেম্বর) রাজস্থানজুড়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে শিক্ষক নিয়োগের যোগ্যতা পরীক্ষা (আরইইটি)। লিখিত এ পরীক্ষা বেশ কঠিন ও প্রতিযোগিতাপূর্ণ হয়ে থাকে। এ বছর মাত্র ৩১ হাজার পদের জন্য পরীক্ষা দিয়েছেন প্রায় ১৬ লাখ পরীক্ষার্থী। এ কারণে প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে অনেকেই প্রতারণার আশ্রয় নেন। কিন্তু রোববারের পরীক্ষায় ধরা পড়েছে গোটা একটি চক্রই। তারা নকলবাজ শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে দুই লাখ রুপি (২ লাখ ৩১ হাজার টাকা প্রায়) করে নিয়ে একধরনের বিশেষ স্যান্ডেল ধরিয়ে দিতো। স্থানীয় পুলিশ কর্মকর্তা রতন লাল ভার্গব বলেন, স্যান্ডেলটির ভেতরে গোটা একটি মোবাইল ফোন ও ব্লুটুথ ডিভাইস বসানো ছিল। তার সঙ্গে সংযুক্ত একটি ডিভাইস ছিল পরীক্ষার্থীর কানে, হলের বাইরে থেকে কেউ তাকে প্রতারণায় সাহায্য করছিলো। পরীক্ষায় এ ধরনের প্রতারণা প্রথম ধরা পড়ে আজমিরে। এরপর পুলিশ দ্রুত রাজ্যের বাকি পরীক্ষাকেন্দ্রগুলোকে এ বিষয়ে সতর্ক করে। এতে ব্লুটুথ ও মোবাইলযুক্ত স্যান্ডেলের খোঁজ পাওয়া যায় বিকানেয়ার এবং সিকার এলাকাতেও। পুলিশের মতে, স্যান্ডেল প্রতারণার এই চক্রের হাত ধরে ছোট-খাটো একটি শিল্পই গড়ে উঠেছে। তার অত্যন্ত চালাকির সঙ্গে সাধারণ স্যান্ডেলের ভেতরে নকল করার যন্ত্রাংশ বসিয়ে দিতো। এরপর আগ্রহীদের কাছে এর দাম হাঁকাতো দুই লাখ রুপি পর্যন্ত। আজমিরের পুলিশ কর্মকর্তা জগদীশ চন্দ্র শর্মা বলেন, আমরা নকলে সহায়ক স্যান্ডেলসহ একজনকে খুঁজে পাই। পরীক্ষার শুরুতেই আমরা তাকে ধরে ফেলেছিলাম। এরপর খোঁজ করি তার যোগসূত্র কোথায় ও এর সঙ্গে কারা জড়িত। আমরা তাৎক্ষণিকভাবে অন্য জেলাগুলোকেও সতর্ক করি। পরীক্ষার পরের ধাপে কেউ স্যান্ডেল, জুতা বা মোজা নিয়ে পরীক্ষাকেন্দ্রে প্রবেশ করতে পারবে না বলে জানিয়েছেন এ পুলিশ কর্মকর্তা। শিক্ষক নিয়োগের এ পরীক্ষা উপলক্ষে রাজস্থানের বেশ কয়েকটি জেলায় টানা ১২ ঘণ্টা মোবাইল ইন্টারনেট ও এসএমএস সেবা বন্ধ রাখা হয়েছিল। এরপরও নকলবাজরা ঠিকই প্রতারণার রাস্তা খুঁজে বের করে।

গোপনে ৬ বিয়ে, শ্বশুরবাড়ি যাওয়ার পথে ধরা পড়ে গণপিটুনি খেলেন জামাই
                                  


লুকিয়ে লুকিয়ে ছয়টি বিয়ে, সন্তানের বাবা হয়েছেন একাধিক সংসারে। কাউকে কিছু না জানিয়ে ঠিকঠাকই চালিয়ে নিচ্ছিলেন সব। কিন্তু ঝামেলা হয়ে যায় একদিন শ্বশুরবাড়ি যাওয়া পথে। পঞ্চম ও ষষ্ঠ বিয়ে করেছিলেন পাশাপাশি দুই গ্রামে। ফলে যাওয়া-আসার পথে এক জায়গায় দেখা হয়ে যায় দুই পক্ষের পরিচিতজনদের সঙ্গে। তাতেই বেরিয়ে আসে আসল ঘটনা। ফলশ্রুতিতে কপালে জোটে বেদম গণপিটুনি। সম্প্রতি এ ঘটনা ঘটেছে ভারতের পশ্চিম মেদিনীপুরের দাসপুর এলাকায়। অভিযুক্ত যুবককে তুলে দেওয়া হয়েছে পুলিশের হাতে। ছয় বিয়ের আদ্যোপান্ত জানতে শুরু হয়েছে তদন্ত। জানা যায়, হায়দ্রাবাদে ফুল সাজানোর কাজ করতেন দাসপুরের গদাইপুরের বাসিন্দা সন্তোষ দলুই। সেখানেই প্রথম বিয়ে করেন তিনি। এরপর বছর পাঁচেক আগে নিজের বাড়ি ফিরে সেখানকার এক নারীকে বিয়ে করেন। তাদের এক সন্তানও রয়েছে। এরপর মহেশপুর গ্রামে ফের বিয়ে। সেখানে রয়েছে বছর তিনেকের সন্তান। এভাবে একের পর এক বিয়ে করে দেড় বছর আগে মহেশপুরের ঠিক পাশের গ্রাম কলরার এক নারীর সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধেন। এটি ছিল তার ষষ্ঠ বিয়ে। দিন দুয়েক আগে কলরা গ্রামে শ্বশুরবাড়ি যাওয়ার পথেই বিপাকে পড়েন সন্তোষ। কলরা ও মহেশপুরের মধ্যকার রাস্তায় দাঁড়িয়ে কথা বলছিলেন কয়েকজন যুবক। তাদের চোখে পড়ে, সন্তোষ কলরা গ্রামের দিকে যাচ্ছে। এসময় মহেশপুরের পরিচিতরা ডেকে জিজ্ঞেস করেন, তিনি কোথায় যাচ্ছেন? এতজনের হাতে ধরা পড়ে সন্তোষ আর বিষয়টি সামলাতে পারেননি। একদিকে মহেশপুরের লোকজন তাকে ‘জামাই’ বলছেন, অন্যদিকে কলরা গ্রামের বাসিন্দাদেরও একই দাবি। দুই গ্রামবাসীর তর্কাতর্কি আর লাগাতার জেরার মুখে শেষ পর্যন্ত সত্যটা বলতে বাধ্য হন সন্তোষ। জানান, কলরা গ্রামের রিংকু আসলে তার ষষ্ঠ স্ত্রী। এরপরই দুই পরিবারের কাছে ‘গুণধর’ জামাইয়ের গোপন খবর পৌঁছায়। তারা ছুটে যান ঘটনাস্থলে। তবে ততক্ষণে উত্তেজিত গ্রামবাসীর হাতে গণপিটুনি খেয়ে অবস্থা খারাপ সন্তোষের। তথ্য গোপন করে ছয়টি বিয়ে করায় বেধড়ক মারধরের পর দাসপুর থানা পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয় তাকে। প্রতারণার অভিযোগে সন্তোষের নামে মামলা করেছেন পঞ্চম স্ত্রীর বাবা।

ওয়াশিংটনে মোদি-বাইডেন বৈঠক শুক্রবার
                                  

আমেরিকার প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সঙ্গে চলতি সপ্তাহে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে বসবেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।২৪ সেপ্টেম্বর ওয়াশিংটনে চতুর্দেশীয় অক্ষ বা ‘কোয়াড’ জোটভুক্ত দেশগুলোর বৈঠক হবে। তাতে যোগ দিতে আমেরিকায় সফরের কর্মসূচি রয়েছে মোদির। সব ঠিক থাকলে সেই সময় প্রথমবার মুখোমুখি হবেন দুই রাষ্ট্রনেতা। খবর এনডিটিভি ও আনন্দবাজার পত্রিকার।প্রসঙ্গত চলতি বছরের জানুয়ারিতে আমেরিকার প্রেসিডেন্ট পদে আসীন হওয়ার পর বাইডেন এই প্রথম মোদির সঙ্গে সরাসরি বৈঠক করবেন। এর আগে একাধিক ভার্চুয়াল বৈঠকে মিলিত হয়েছেন এ দুই রাষ্ট্রপ্রধান।চলতি বছরের মার্চে ‘কোয়াড’ জোটভুক্ত দেশগুলোর প্রথম বৈঠক, এপ্রিলে জলবায়ু সম্মেলন বা জুনে জি-৭ জোটভুক্ত দেশের সম্মেলনেও দুই নেতার ভার্চুয়াল বৈঠক হয়েছে।বস্তুত বাইডেন ক্ষমতায় আসার পর এই প্রথম আমেরিকা সফর মোদির। ২০১৯ সালে বাইডেনের পূর্বসূরি ডোনাল্ড ট্রাম্পের আমলে ‘হাউডি মোদি’ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে আমেরিকার হিউস্টনে গিয়েছিলেন তিনি।তবে আগামী ২৪ সেপ্টেম্বর ওয়াশিংটনে ‘কোয়াড’ জোটভুক্ত দেশগুলোর বৈঠকের আয়োজন করেছেন বাইডেন। তাতেই সরাসরি দ্বিপক্ষীয় আলোচনায় বসবেন মোদি-বাইডেন।

এক মাস পর কেমন চলছে আফগান জনজীবন?
                                  

আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণ তালেবানের গ্রহণের এক মাস পূর্ণ হয়েছে। এ সময়ে নগদ অর্থ সরবরাহ কমে গিয়ে দেশটির অর্থনীতির সংকট আরও গভীরতর হয়েছে। একই সাথে জীবনের নানা ক্ষেত্রেও প্রভাব দৃশ্যমান হতে শুরু করেছে সেখানে। আফগানিস্তান-উজবেকিস্তান সীমান্ত দিয়ে একটি সেতু পেরিয়ে নতুন "ইসলামিক আমিরাতে" ঢুকছিলো একটি মালবাহী কার্গো ট্রেন। সীমান্তে উজবেকদের উল্টো দিকে তালেবানের সাদা কালো পতাকা উড়ছিলো। কিছু ব্যবসায়ী তালেবানের ক্ষমতায় ফিরে আসাকে স্বাগত জানিয়েছে। গম বোঝাই একটি ট্রাকের চালক বিবিসি সংবাদদাতাকে বলেন, যে এর আগে চেকপয়েন্ট পার হওয়ার সময় দুর্নীতিবাজ পুলিশ কর্মকর্তাদের ঘুষ দিতে হতো। "এখন আর সেটি নেই। আমি কাবুলের পথে ড্রাইভ করে যেতে পারি কোন পয়সা না দিয়েই," বলে জানান তিনি। গত পনেরই অগাস্ট আফগানিস্তানের পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ নেয় তালেবান। দেশটিতে এখন নগদ টাকার সংকট। অর্থনীতিও গভীর সংকটে। ব্যবসায়ী সম্প্রদায় জানিয়েছে বাণিজ্য কমেছে ব্যাপকভাবে, কারণ আফগান আমদানিকারকরা অর্থ দিতে পারছে না। হাইরাতান বন্দরে তালেবানের হেড অফ কাস্টমস মৌলভী সাইদ বলছেন, বাণিজ্য বাড়াতে তারা শুল্ক কমিয়ে দিচ্ছেন এবং সম্পদশালী ব্যবসায়ীরা দেশে ফিরুক, সেটিকে তারা উৎসাহিত করতে চান। "এটি কর্মসংস্থানের সুযোগ বাড়াবে। আর পরবর্তী জীবনে ব্যবসায়ীরা পুরস্কৃত হবেন," বলছিলেন তিনি। দেশটির চতুর্থ বৃহত্তম শহর মাজার ই শরীফ থেকে এক ঘণ্টা ড্রাইভ দূরত্বে মানুষের জীবনযাত্রা মনে হল স্বাভাবিক, যদিও অনেকে অর্থনৈতিক সংকটে ভুগছেন। শহরের সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের প্রাণকেন্দ্র ব্লু মসজিদ চত্বরে আগের মত আর তরুণ নারী পুরুষের দেখা মিলে না। এখন তালেবান লিঙ্গভেদে আলাদা সময়সূচী ঠিক করে দিয়েছে: নারীরা সকালে আসবেন আর পুরুষরা দিনের বাকী সময়। ব্লু মসজিদ চত্বরে এক নারী বলেন, সব ঠিক আছে। তবে হয়তো নতুন সরকারের সাথে খাপ খাইয়ে নিতে মানুষের বেশ কিছুটা সময় লাগবে। স্থানীয় প্রভাবশালী তালেবান নেতা হাজী হেকমতের কাছে প্রশ্ন ছিলো যে `আপনারা হয়তো নিরাপত্তা দিচ্ছেন কিন্তু সমালোচকরা বলছে আপনার এখানকার সংস্কৃতিকে হত্যা করছেন"।

 তিনি উত্তর দেন: "না"।

"গত বিশ বছরে এখানে পশ্চিমা প্রভাব ছিল। চল্লিশ বছর আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণ এক বিদেশী থেকে আরেক বিদেশীর কাছে গেছে। আমরা আমাদের নিজস্ব ঐতিহ্য ও মূল্যবোধকে হারিয়েছি। এখন আমরা আমাদের সংস্কৃতিকে ফিরিয়ে আনছি," বলছিলেন হেকমত। তার মতে, ইসলামে নারী পুরুষের মেলামেশা নিষিদ্ধ। হেকমতকে মনে হল, মানুষের সমর্থনও উপভোগ করছেন। তবে কাছেই একজন বলছিলেন, "এরা ভালো লোক নয়"। হয়তো তালেবানের ইসলাম সম্পর্কিত ব্যাখ্যা দেশটির রক্ষণশীল সমাজের সাথে খুব একটা আলাদা নয়। তবে বড় শহরগুলোতে এখনো তালেবানদের নিয়ে বিরাজ করছে গভীর সন্দেহ। হাজী হেকমতের মতে, এটি বছরের পর বছর ধরে তালেবান বিরোধী প্রোপাগান্ডার ফল। কিন্তু আত্মঘাতী বোমা হামলা কিংবা `টার্গেটেড কিলিং` এর ইতিহাসও এজন্য কম দায়ী নয়। ব্লু মসজিদ থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সময় এক জায়গায় বড় একটি জটলা দেখা গেলো। সেখানে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় চারটি মৃতদেহ শুইয়ে রাখা হয়েছিল। একজনের পরিচয় হিসেবে লিখে রাখা হয়েছিল `অপহরণকারী` আর সতর্কতা ছিলো অন্য অপরাধীদের প্রতি যে শাস্তি হবে এমন। লোকজন সেখানে ফটো তুলছিল এবং নিজেদের অতীত ভুলে সামনের দিকে তাকানোর চেষ্টা ছিল তাতে। আফগানিস্তানের বড় শহরগুলোতে সহিংস অপরাধ দীর্ঘকালের সমস্যা। এখন তালেবানের সমালোচকরাও বলছেন, নিরাপত্তা বেড়েছে। একজন বলছিলেন, "এরা অপহরণকারী হলে ঠিক শাস্তিই হয়েছে। অন্যদের জন্য এটি বড় শিক্ষা হবে।" তবে শহরের অনেকেই আবার নিরাপদ বোধ করে না। আইনের ছাত্রী ফারজানা বলছিলেন, "যখনই ঘরের বাইরে যাই, তালেবানদের দেখি, ভয় লাগে।" বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো খোলা। কিন্তু সরকারিগুলো এখনো বন্ধ। তালেবানদের নতুন নিয়ম অনুযায়ী, শ্রেণীকক্ষে ছেলে ও মেয়েদের এখন থেকে মাঝখানে পর্দা দিয়ে আলাদা বসতে হবে। ফারজানার কাছে এটি ততটা গুরুত্বপূর্ণ না হলেও তার ধারণা তালেবান শেষ পর্যন্ত মেয়েদের কাজের অনুমতি দিবে না। এ মূহুর্তে যদিও শিক্ষা ও চিকিৎসার প্রয়োজন ছাড়া নারীদের নিরাপত্তার জন্য ঘরে থাকতে বলা হয়েছে। "এ মূহুর্তে আশাহত লাগছে নিজেকে, কিন্তু ভবিষ্যতের জন্য আশাবাদী হতে আমি আমার সর্বোচ্চটাই করে যাবো," বলছিলেন ফারজানা। এর আগেরবার যখন তালেবান ক্ষমতায় ছিল, তখন নিয়ননীতি আরও কঠোর ছিল। মেয়েরা তখন পুরুষ সঙ্গী ছাড়া বাইরে বের হতে পারতো না। আফগান শহরগুলো এখন সেই ভীতিই তৈরি হয়েছে যে পরিস্থিতি আস্তে আস্তে ওই রকমই হবে। দেশটির উপর পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ থাকলেও বহু মানুষের হৃদয় জয় করা থেকে অনেক দূরেই আছে তারা।

 

হাজী হেকমত বলছিলেন, "সামরিকভাবে দেশের নিয়ন্ত্রণ নেয়া ছিল কঠিন। কিন্তু আইনের শাসন বাস্তবায়ন করা ও একে সুরক্ষা দেয়া আরও কঠিন।" সূত্র- বিবিসি বাংলা

আগামী সপ্তাহে ৩ দেশের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে মার্কিন প্রেসিডেন্টের বৈঠক
                                  

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন, জাপানের প্রধানমন্ত্রী ইয়োশিহাইড সুগা, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন আগামী সপ্তাহে হোয়াইট হাউজে বৈঠকে বসতে যাচ্ছেন। খবর রয়টার্স । হোয়াইট হাউসের প্রেস সচিব জেন পাসকি এক বিবৃতিতে এ খবর জানিয়েছেন। তিনি বলেন, আগামী ২৪ সেপ্টেম্বর হোয়াইট হাউসে ও কোয়াড’ জোট শীর্ষ নেতাদের সামিট অনুষ্ঠিত হবে। তার আগে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে অংশ নেবেন নেতৃবৃন্দ। সেখানে আগামী ২১ সেপ্টেম্বর ভাষণ দেবেন জো বাইডেন। এর আগে, গত মার্চ মাসে অনলাইনে কোয়াড নেতারা বৈঠকে মিলিত হন। সে সময় তারা কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন, জলবায়ু পরিবর্তন ও ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলে বেইজিংয়ের আগ্রাসন রোধ নিয়ে আলোচনা করেন।

তালেবানে দ্বন্দ্ব: কাবুল ছাড়লেন মোল্লা বারাদার!
                                  

তালেবান নেতা এবং আফগানিস্তানের অন্তর্বর্তী সরকারের উপ-প্রধানমন্ত্রী মোল্লা আব্দুল গনি বারাদারের মৃত্যুর গুজব ছড়িয়ে পড়েছিল। কিন্তু পরে তা অস্বীকার করা হয় গোষ্ঠীটির পক্ষ থেকে। এবার জানা গেল তালেবানের সহ-প্রতিষ্ঠাতা বারাদার কাবুল ছেড়েছেন। এর কারণ হিসেবে সামনে এসেছে খলিল হাক্কানির সঙ্গে তার দ্বন্দ্ব! ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি এসব তথ্য জানায়। তালেবানের একটি সূত্রের বরাত দিয়ে খবরে বলা হয়, সম্প্রতি নতুন সরকার গঠন নিয়ে গোষ্ঠীর নেতাদের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়। যার একপক্ষে ছিলেন মোল্লা আব্দুল গনি বারাদার অপরপক্ষে ছিলেন মন্ত্রিসভার প্রভাবশালী এক মন্ত্রী। বেশ কিছুদিন ধরে বারাদার জনসম্মুখে আসছিলেন না। এরপর থেকেই মূলত মতবিরোধের বিষয়টি সামনে আসে। যদিও তালেবান দ্বদ্বের বিষয়টি আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকার করেনি। গোষ্ঠীটির একটি সূত্র জানায়, বারাদার এবং হাক্কানি নেটওয়ার্কের নেতা ও শরণার্থী বিষয়ক মন্ত্রী খলিল উর-রহমান হাক্কানির মধ্যে সম্প্রতি উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হয়। এসময় তাদের সমর্থকরাও তর্কে জড়িয়ে পড়েন। কাতারে তালেবানের আলোচক দলের এক সদস্য এবং ঘটনার সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে যুক্ত এক ব্যক্তি গত সপ্তাহে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। সূত্র জানায়, তর্কের শুরু নতুন অন্তর্বর্তী সরকারের কাঠামো নিয়ে বারাদারের অসন্তুষ্টি থেকে। তালেবানের বিজয়ের প্রকৃত দাবিদার কে তা নিয়েও দ্বন্দ্ব দেখা দেয়। বারাদার মনে করেন, এ বিজয় এসেছে তার মতো কূটনীতিকদের কারণে। কিন্তু হাক্কানি গ্রুপের মতে, যুদ্ধের মাধ্যমেই এসেছে বিজয়। বারদারই প্রথম তালেবান নেতা যিনি সরাসরি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে টেলিফোনে ২০২০ সালে আলাপ করেছেন। এর আগে তিনি তালেবানের পক্ষে আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্রের সেনা প্রত্যাহার সংক্রান্ত দোহা চুক্তিতে সই করেন। অপরদিকে প্রভাবশালী হাক্কানি নেটওয়ার্ক আফগানিস্তানে আফগান বাহিনী এবং তার বিদেশি মিত্রদের বিরুদ্ধে বেশ কিছু ভয়াবহ হামলা চালিয়েছে। গোষ্ঠীটিকে যুক্তরাষ্ট্র সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে আখ্যা দেয়। এ গোষ্ঠীর নেতা সিরাজুদ্দিন হাক্কানি নতুন সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। তালেবানের একটি সূত্র জানিয়েছে, এ বাকবিতণ্ডার পর কাবুল ছেড়ে কান্দাহারে চলে গেছেন মোল্লা বারাদার। সোমবার বারাদার একটি অডিও বার্তায় বলেন, আমি একটি সফরে আছি। আমি এই মুহূর্তে যেখানেই থাকি না কেন, আমরা সকলে ভালো আছি। যদিও বিবিসি এ অডিও রেকর্ডিংটি যাচাই করে দেখতে পারেনি। একটি সূত্র জানায়, আশা করা হচ্ছে, মোল্লা বারাদার কাবুলে ফিরে আসবেন এবং এসব বিরোধের বিষয় নাকচ করে ক্যামেরার সামনে বক্তব্য দেবেন। দীর্ঘ ২০ বছর পর যুক্তরাষ্ট্র আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহার করে। সেনা প্রত্যাহার প্রক্রিয়ার মধ্যেই ১৫ আগস্ট কাবুলের নিয়ন্ত্রণ নেয় তালেবান।  দেশটি থেকে বিদেশি সব সেনা প্রত্যাহারের পর নতুন অন্তর্বর্তী সরকার গঠন করে গোষ্ঠীটি।

বিশেষজ্ঞদের ধারণা : চীনে করোনার সর্বশেষ প্রাদুর্ভাব প্রাইমারি স্কুল থেকে:
                                  

চীনে নতুন করে আবারও করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। গত চার দিনে শতাধিক রোগী শনাক্ত হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, ফুজিয়ান প্রদেশের একটি প্রাইমারি স্কুল থেকে ভাইরাসটির সূত্রপাত। খবর প্রকাশ করেছে বিবিসি। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সাম্প্রতিক প্রতিবেদন অনুযায়ী ফুজিয়ান প্রদেশের পুটিয়ান শহরের একটি প্রাইমারি স্কুলের এক শিক্ষার্থীর বাবার শরীরে গত সপ্তাহে কোভিড-১৯ শনাক্ত হয়। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সেটিই ভাইরাসটির সর্বশেষ প্রাদুর্ভাবের প্রথম রোগী। এরপর গত চার দিনে শতাধিক রোগী শনাক্ত হয়েছে। শহরটিতে প্রায় তিন মিলিয়ন বাসিন্দা রয়েছে। এক সপ্তাহের মধ্যে সব শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীদের করোনা পরীক্ষা করানোর নির্দেশ দিয়েছে প্রদেশ কর্তৃপক্ষ।  দশ বছর পর মিশরে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী চীনের রাষ্ট্র পরিচালিত সংবাদমাধ্যম গ্লোবাল টাইমস জানিয়েছে, ওই অভিভাবকের শরীরে গত ১০ সেপ্টেম্বর করোনা শনাক্ত হয়। এর আগে তিনি ৪ আগস্ট সিঙ্গাপুর থেকে দেশে ফেরেন। পরে ২১ দিনের কোয়ারেন্টিন পর্বও পালন করেন। এই সময়ের মধ্যে তিনি ৯ বার করোনা টেস্ট করান এবং প্রতিবারই ফল নেগেটিভ এসেছে। অবশ্য এটা এখনো স্পষ্ট নয় যে, ওই শিক্ষার্থীর বাবা দেশের বাইর থেকে ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে এসেছেন কিনা। তবে বিশেষজ্ঞরা সন্দেহ করছেন, তিনিই নতুন করে করোনা ছড়িয়েছেন। এদিকে, ভাইরাসটির প্রাদুর্ভাব রোধে স্কুল বন্ধ করে দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। একই সঙ্গে নির্দেশনা জারি করা হয়েছে যে, কেউ যদি শহরের বাইরে যায় তাকে অবশ্যই করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট সঙ্গে করে নিয়ে যেতে হবে।

২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৬৮০৭, বিশ্বে আবারও বেড়েছে সংক্রমণ
                                  

বিশ্বজুড়ে আবারও বেড়েছে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ও মৃত্যু। গত ২৪ ঘণ্টায় সারাবিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন সাড়ে ৬ হাজারের বেশি মানুষ। একই সময়ে নতুন করে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৪ লাখ ২২ হাজার। যুক্তরাষ্ট্রেই একদিনে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ১ লাখ ৯ হাজার ৪৩২ জন। সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে এ সময় মারা গেছে ৮১৫ জন। অন্যদিকে দৈনিক মৃত্যুতে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে রাশিয়া। দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছে ৭১৯ জন। এর পরই আছে ইরান, দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছে ৪৪৮ জন। এতে বিশ্বব্যাপী করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ২২ কোটি ৬০ লাখ ৮৪ হাজার ছাড়িয়েছে। অন্যদিকে মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৪৬ লাখ ৫২ হাজার। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থতার পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারের সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় সারাবিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৬ হাজার ৮০৭ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে প্রায় ৮০০। একই সময়ের মধ্যে ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৪ লাখ ২২ হাজার ৯৪ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েছে প্রায় ৫০ হাজার। এতে মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত ভাইরাসে আক্রান্ত মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২২ কোটি ৬১ লাখ ৪ হাজার ৬২ জনে।

পরীক্ষা চালালো উত্তর কোরিয়া দূরপাল্লার ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্রের
                                  

দূরপাল্লার ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্রের সফল পরীক্ষা চালানোর দাবি করেছে উত্তর কোরিয়া। সোমবার দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম কেসিএনএ’র মাধ্যমে এ তথ্য জানানো হয়। খবর বিবিসির। কেসিএনএ জানায়, দেশটির জাতীয় প্রতিরক্ষা বিজ্ঞান একাডেমি গত শনিবার ও রোববার আরও উন্নত ও নতুন ধরনের দূরপাল্লার ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্রের সফল পরীক্ষা চালিয়েছে। পরীক্ষা চালানো নতুন এ ক্ষেপণাস্ত্র দেড় হাজার কিলোমিটার (৯৩০ মাইল) দূর থেকে লক্ষ্যবস্তুকে আঘাত হানতে পারে। এই পরীক্ষা জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের প্রস্তাব লঙ্ঘন করে না, তবে পারমাণবিক পরীক্ষা চালানো নিয়ে আগে থেকেই নিষেধাজ্ঞা জারি রয়েছে উত্তর কোরিয়ার ওপর। তারা বলছে, খাদ্য ঘাটতি ও অর্থনৈতিক সংকট থাকা সত্ত্বেও উত্তর কোরিয়া অস্ত্র তৈরিতে সক্ষম। রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমটি আরও জানায়, দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা রাষ্ট্রের নিরাপত্তার জন্য গুরুত্বপূর্ণ এবং শত্রুদের বিরুদ্ধে কার্যকর প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তোলার কৌশল। যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনী বলছে, উত্তর কোরিয়া তাদের সামরিক কর্মসূচির উন্নয়ন ঘটানো অব্যাহত রেখেছে এবং যেটি প্রতিবেশী দেশসহ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের জন্য হুমকিস্বরুপ।

ভারতে বাংলাদেশি গ্রেফতার তৃতীয় স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগে
                                  

ভারতে অবৈধভাবে বসবাসকারী এক ব্যক্তিকে, পরকীয়ার সম্পর্কের সন্দেহের জেরে তৃতীয় স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগে গ্রেফতার করেছে দেশটির পুলিশ। রোববার তাকে গ্রেফতার করা হয়। পশ্চিমবঙ্গ ও উত্তর প্রদেশের রেসিডেন্সিয়াল কার্ড ও ভারতীয় পাসপোর্টও জব্দ করা হয়েছে তার কাছ থেকে। খবর এনডিটিভির। অভিযুক্ত ওই ব্যক্তির নাম বাবুল মিয়া। তার অন্য দুই স্ত্রী বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গের কুচবিহারে বসবাস করেন। এক দশক আগে বাবুল অবৈধভাবে ভারতে যান। ভারতের নয়ডা পুলিশ জানায়, বাবুল মিয়া দৈনিক মজুরি শ্রমিক হিসেবে কাজ করতেন। তার স্ত্রী ফাতিমা বিবির সঙ্গে স্থানীয় এক নির্মাণকাজের কন্ট্রাক্টরের প্রেমের সম্পর্ক নিয়ে সন্দেহ করেন বাবুল। গত ৪ আগস্ট বাবুল পশ্চিমবঙ্গ থেকে ফিরে ফাতিমা ও কন্ট্রাক্টর সাজিদকে তার বাড়িতে দেখতে পান। এরপর তাদের মধ্যে কলহ শুরু হয়। বাবুলের বিরুদ্ধে অভিযোগ, সে তার স্ত্রীকে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে হত্যার পর বাড়ি থেকে পালিয়ে যান। পরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রোববার তাকে গ্রেফতার করে দেশটির পুলিশ।

স্বীকৃতি দেয়নি ফ্রান্স আফগান সরকারকে
                                  

ফ্রান্স বলছে, তারা এখনও আফগানিস্তানে তালেবানের নতুন তত্ত্বাবধায়ক সরকারকে স্বীকৃতি দেয়নি। ফ্রান্সের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জিন-ইয়েভস লি দ্রিয়ান শনিবার রাতে এক বিবৃতিতে বলেন, তালেবান মিথ্যা বলছে। তাদের নতুন সরকারের সঙ্গে ফ্রান্স সম্পর্ক তৈরি করেনি। আফগানিস্তানে অবস্থানরত বিদেশিদের পরবর্তীতে কিভাবে সরিয়ে নেওয়া হবে সে বিষয়ে আলোচনা করতে কাতারে যাচ্ছেন এই পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তার আগেই তিনি আভাস দিলেন যে, তালেবান সরকারের সঙ্গে ফ্রান্স এখনও সম্পর্ক প্রতিষ্ঠা করেনি। লি দ্রিয়ান ফ্রান্স ৫ টিভিকে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে বলেন, তারা (তালেবান) বলছে, কিছু বিদেশি এবং আফগান নাগরিককে তারা দেশ ছাড়ার অনুমতি দেবে। একটি অন্তর্ভুক্তিমূলক এবং প্রতিনিধিত্বমূলক সরকারের কথা বলেছিল তারা। কিন্তু তারা মিথ্যা বলেছিল। তিনি বলেন, তালেবানের নতুন সরকারকে স্বীকৃতি দেয়নি ফ্রান্স এবং তাদের সঙ্গে কোনো ধরনের সম্পর্কও প্রতিষ্ঠা হয়নি। আমরা তালেবানকে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিতে দেখতে চাই। তাদের এই মুহূর্তে অর্থনৈতিক সংকট রয়েছে এবং আন্তর্জাতিক সম্পর্ক উন্নয়ন দরকার। তবে এটা তাদের ওপরই নির্ভর করছে। এখন পর্যন্ত প্রায় তিন হাজার মানুষকে আফগানিস্তান থেকে সরিয়ে নিয়েছে প্যারিস। রোববার কাতারের রাজধানী দোহায় সফর করার কথা রয়েছে লি দ্রিয়ানের।

৪ ফিলিস্তিনিকে আটক করেছে ইসরায়েল ,কারাগার থেকে পালানো
                                  

কারাগার থেকে যে ছয়জন ফিলিস্তিনি পালিয়েছিল তাদের মধ্যে এখন পর্যন্ত চারজনকে আটক করেছে ইসরায়েল। গত সপ্তাহে উচ্চ নিরাপত্তা সম্পন্ন একটি কারাগার থেকে পালিয়ে যান ওই ছয় ফিলিস্তিনি। স্থানীয় পুলিশ কর্মকর্তারা বলছেন, দেশের ইতিহাসে এটি অন্যতম একটি দুঃসাহসিক ঘটনা। গত সপ্তাহে ইসরায়েলের জেনিন শহরের সুরক্ষিত গিলবোয়া কারাগার থেকে সুড়ঙ্গ খুঁড়ে পালিয়ে যান ছয় ফিলিস্তিনি বন্দি। ইসরায়েলের সবচেয়ে সুরক্ষিত কারাগারগুলোর মধ্যে অন্যতম গিলবোয়া কারাগার। এটি এতটাই সুরক্ষিত যে, সেটিকে ইসরায়েলের ‘সিন্দুক’ বলা হয়। বন্দিদের খুঁজে বের করতে পশ্চিত তীরে ব্যাপক অভিযান চালায় ইসরায়েলি বাহিনী। পরে শুক্রবার দু`জনকে আটক করা হয়। পুলিশ জানায়, মাহমুদ আরাদেহ ও ইয়াকুব কাদেরি নামে দুই ফিলিস্তিনি বন্দিকে আটক করেছেন তারা। ইসরায়েলি পুলিশের এক মুখপাত্র জানান, তাদেরকে নাজরাথের খ্রিস্টানদের পবিত্র স্থান মাউন্ট প্রিসিপিস থেকে আটক করা হয়েছে। পরবর্তীতে আরও দু`জনকে আটক করা হয়। এর মধ্যে একজন খ্যাতনামা সাবেক জঙ্গি নেতা বলে দাবি করেছে ইসরায়েল। পুলিশ জানিয়েছে, উত্তরাঞ্চলীয় ইসরায়েলের নাজারেথের বাইরে একটি লরি পার্ক থেকে তাকে আটক করা হয়। সর্বশেষ আটক দুই ফিলিস্তিনি বন্দি হলেন জাকারিয়া জুবেইদি (৪৬) এবং মোহাম্মদ আরদাহ (৩৯)। পশ্চিম তীরের জেনিন শহরে ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের ফাতাহ আন্দোলনের সশস্ত্র শাখার নেতৃত্ব দিচ্ছিলেন জাকারিয়া। অপরদিকে ইসলামি জিহাদি সশস্ত্র শাখার সঙ্গে সম্পৃক্ততার অভিযোগে মোহাম্মদ আরদাহকে ২০০২ সালে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়। পুলিশ জানিয়েছে, তারা ট্রাক রাখার একটি পার্কিং লটে তারা লুকিয়ে ছিলেন। পালিয়ে যাওয়া বাকি দুই বন্দির খোঁজে তল্লাশি চালানো হচ্ছে বলে জানানো হয়েছে।


   Page 1 of 71
     আর্ন্তজাতিক
লিবিয়ায় নারী-শিশুসহ ৪ হাজার অভিবাসী আটক
.............................................................................................
ভোটে এগিয়ে মমতা ভবানীপুরে
.............................................................................................
বিয়ে করলেন যুবক! রাইস কুকারকে
.............................................................................................
দুই মাস লকডাউনের পরেও মেলবোর্নে করোনা সংক্রমণের রেকর্ড
.............................................................................................
‘ব্লুটুথ স্যান্ডেল’ শিক্ষক নিয়োগের পরীক্ষায় নকল করতে
.............................................................................................
গোপনে ৬ বিয়ে, শ্বশুরবাড়ি যাওয়ার পথে ধরা পড়ে গণপিটুনি খেলেন জামাই
.............................................................................................
ওয়াশিংটনে মোদি-বাইডেন বৈঠক শুক্রবার
.............................................................................................
এক মাস পর কেমন চলছে আফগান জনজীবন?
.............................................................................................
আগামী সপ্তাহে ৩ দেশের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে মার্কিন প্রেসিডেন্টের বৈঠক
.............................................................................................
তালেবানে দ্বন্দ্ব: কাবুল ছাড়লেন মোল্লা বারাদার!
.............................................................................................
বিশেষজ্ঞদের ধারণা : চীনে করোনার সর্বশেষ প্রাদুর্ভাব প্রাইমারি স্কুল থেকে:
.............................................................................................
২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৬৮০৭, বিশ্বে আবারও বেড়েছে সংক্রমণ
.............................................................................................
পরীক্ষা চালালো উত্তর কোরিয়া দূরপাল্লার ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্রের
.............................................................................................
ভারতে বাংলাদেশি গ্রেফতার তৃতীয় স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগে
.............................................................................................
স্বীকৃতি দেয়নি ফ্রান্স আফগান সরকারকে
.............................................................................................
৪ ফিলিস্তিনিকে আটক করেছে ইসরায়েল ,কারাগার থেকে পালানো
.............................................................................................
শীর্ষে উত্তর প্রদেশ , ভারতে নারী নির্যাতন বেড়েছে ৪৬ শতাংশ
.............................................................................................
করোনায় গাফিলতি: তদন্তের মুখে সাবেক ফরাসি স্বাস্থ্যমন্ত্রী
.............................................................................................
পালানোর জন্য ক্ষমা চাইলেন সাবেক আফগান প্রেসিডেন্ট
.............................................................................................
গভীর রাতের প্যারেডে কিম জং উন
.............................................................................................
শরিয়া আইন নিয়ে নতুন সরকারকে যে নির্দেশ দিলেন তালেবানের শীর্ষ নেতা
.............................................................................................
তালেবানের নতুন সরকার নিয়ে উদ্বিগ্ন যুক্তরাষ্ট্র
.............................................................................................
আফগানিস্তানে মানবিক সহায়তা অব্যাহত রাখার অঙ্গীকার চীনের
.............................................................................................
পাঞ্জশিরের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে তালেবান
.............................................................................................
ফ্লোরিডায় গুলিতে নারী শিশুসহ নিহত ৪
.............................................................................................
আফগানদের ত্রাণ দিলেও তালেবান সরকারকে অর্থ দেবে না যুক্তরাষ্ট্র
.............................................................................................
বাংলাদেশ থেকে পাচার হয়ে ভারতে গেলো দুটি সাদা ময়ূর!
.............................................................................................
এবার আফগান টিভির মর্নিং শো`র উপস্থাপনায় নারী
.............................................................................................
তালেবানের সাথে ব্রিটিশদের প্রথম আলোচনা
.............................................................................................
৬০ শতাংশ মানুষ ভ্যাকসিন নেওয়ার পরেও ইসরায়েলে রেকর্ড সংক্রমণ
.............................................................................................
করোনা মোকাবিলায় যুগান্তকারী আবিষ্কার: সাপের বিষেই ‘বিশ্ব রক্ষা’
.............................................................................................
৩০’র পর পরিবারের সঙ্গে থাকতে চান না সিঙ্গাপুরের তরুণরা
.............................................................................................
পেরুতে দুই নৌকার সংঘর্ষে নিহত ১১
.............................................................................................
আফগান নারী স্বাস্থ্যকর্মীদের কাজে ফেরার আহ্বান তালেবানের
.............................................................................................
ভারতে ফের সংক্রমণ-মৃত্যু বাড়ছে
.............................................................................................
কাবুলে হামলার আশঙ্কা করছে যুক্তরাষ্ট্র
.............................................................................................
যুক্তরাষ্ট্রের কাছে অর্থ ফেরত চায় তালেবান
.............................................................................................
আফগান হিন্দু শিখদের আশ্রয় দেবে ভারত: মোদি
.............................................................................................
২০ হাজার আফগান শরণার্থীকে আশ্রয় দেবে যুক্তরাজ্য
.............................................................................................
কাবুল বিমানবন্দরে সামরিক ফ্লাইট চালু
.............................................................................................
পদত্যাগ করলেন মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
যুদ্ধে যোগ দিতে বেশ কয়েকজন আফগানিস্তানের পথে: ডিএমপি কমিশনার
.............................................................................................
আফগানিস্তানে বাংলাদেশিদের কী হবে?
.............................................................................................
ফিলিস্তিনের গাজায় আবারও ইসরাইলের বিমান হামলা
.............................................................................................
প্রধানমন্ত্রীর চেয়ারে জান্তা প্রধান, জরুরি অবস্থা বাড়ল মিয়ানমারে
.............................................................................................
লাদাখ ইস্যুতে ফের মুখোমুখি চীন-ভারত
.............................................................................................
কান্দাহার বিমানবন্দরে রকেট হামলা, সব ফ্লাইট বাতিল
.............................................................................................
চীন-রাশিয়া সম্পর্ক, মাঝখানে পোয়াবারো মঙ্গোলিয়ার
.............................................................................................
নিরাপত্তা-সুরক্ষা ইস্যুতে পাকিস্তানে বসবাসরত হিন্দুদের আন্দোলনের ডাক
.............................................................................................
আফগানিস্তান থেকে ৯০ শতাংশেরও বেশি মার্কিন সৈন্য প্রত্যাহার সম্পন্ন : পেন্টাগন
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো : মাহবুবুর রহমান ।
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মো: হাবিবুর রহমান । সম্পাদক কর্তৃক বিএস প্রিন্টিং প্রেস ৫২/২ টয়েনবি সার্কুলার রোড, সুত্রাপুর ঢাকা খেকে মুদ্রিত
ও ৬০/ই/১ পুরানা পল্টন (৭ম তলা) থেকে প্রকাশিত বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৫১,৫১/ এ রিসোর্সফুল পল্টন সিটি (৪র্থ তলা), পুরানা পল্টন, ঢাকা -১০০০।
ফোনঃ-০২-৯৫৫০৮৭২ , ০১৭১১১৩৬২২৬

Web: www.bhorersomoy.com E-mail : dbsomoy2010@gmail.com
   All Right Reserved By www.bhorersomoy.com Developed By: Dynamic Solution IT & Dynamic Scale BD